kalerkantho

এমপিওর দাবিতে রাস্তায় শিক্ষকরা

‘প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ছাড়া ঘরে ফিরব না’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ছাড়া ঘরে ফিরব না’

এমপিওভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গতকালও দেশের বিভিন্ন স্থানের শিক্ষক-কর্মচারীদের অবস্থান। ছবি : স্টার মেইল

এমপিওভুক্তির দাবিতে রাস্তায় নেমে আসা শিক্ষকরা তাঁদের দাবি আদায়ে অনড়। গতকাল শুক্রবার ছুটির দিনেও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তায় হাজার হাজার শিক্ষক অবস্থান করেছেন। এমনকি জুমার নামাজও তাঁরা রাস্তায়ই আদায় করেছেন। এই অবস্থান কর্মসূচিতে প্রতিদিনই দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে শিক্ষকরা এসে শামিল হচ্ছেন। অন্যদের সঙ্গে রাস্তায় পলিথিন ও কাগজ বিছিয়ে বসে পড়ছেন।

অবস্থান কর্মসূচিতে শিক্ষক নেতারা জানিয়েছেন, এমপিওভুক্তির ব্যাপারে তাঁদের এর আগেও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পরে আর তা রক্ষা করা হয়নি। এবার তাঁরা দাবি পূরণের ব্যাপারে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ না করে ঘরে ফিরে যাবেন না। সে জন্য যত দিনই লাগুক না কেন তাঁরা রাজপথে অবস্থান করবেন।

এদিকে আন্দোলনকারী একজন শিক্ষক গতকাল অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাঁর নাম শৈলেন চন্দ্র মজুমদার। বরগুনার তালতলী উপজেলার এতিম মঞ্জিল মহিলা দাখিল মাদরাসার এই শিক্ষককে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালের সিসিইউতে রাখা হয়েছে।

সারা দেশের হাজার হাজার শিক্ষক এমপিওভুক্তির দাবি আদায়ে গত বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে রাস্তার একপাশজুড়ে অবস্থান নেন। টানা তৃতীয় দিনের মতো গতকালও তাঁরা সেখানেই অবস্থান নিয়ে থাকেন। শুধু দিনে নয়, রাতেও তাঁরা প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তায়ই অবস্থান করছেন।

আন্দোলনকারী নন-এমপিও শিক্ষকরা প্রথম দুই দিন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে পদযাত্রা কর্মসূচি পালনের চেষ্টা করলেও পুলিশি বাধার মুখে এগোতে পারেননি। তাঁরা একই জায়গায় অবস্থান করে স্লোগান দিচ্ছেন—‘এমপিও চাই দিতে হবে/এমপিও ছাড়া বাড়ি ফিরে যাব না।’

বাংলাদেশ নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, ‘আগে একাধিকবার আমরা দাবি আদায়ে রাস্তায় নেমে এলেও সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের আশ্বাসে বাড়ি ফিরে গেছি। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি। এবার আমরা সংকল্পবদ্ধ, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা না করে বাড়ি ফিরব না। কারণ আমরা বিশ্বাস করি, তিনি আমাদের খালি হাতে বাড়ি ফেরাবেন না।’

আন্দোলনকারীরা বলেন, ‘আমরা লক্ষাধিক শিক্ষক-কর্মচারী ১০ থেকে ১৫ বছর বিনা বেতনে চাকরি করছি। পরিবার-পরিজন নিয়ে দিন কাটছে অনাহার-অর্ধাহারে। তাই এবার আমরা এমপিও ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ি ফিরে যাব না।’

নন-এমপিও শিক্ষকরা গত বছর ঝড়-বৃষ্টি মাথায় নিয়ে টানা ৩২ দিন অবস্থান কর্মসূচি ও আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করেছিলেন। তবে সরকারের আশ্বাসে শেষ পর্যন্ত তাঁরা বাড়ি ফিরে গিয়েছিলেন। কিন্তু এক বছর পার হতে চললেও কেবল নন-এমপিও প্রতিষ্ঠানের আবেদন গ্রহণ ছাড়া আর কোনো অগ্রগতি নেই।

 

 

 

মন্তব্য