kalerkantho


‘পদের কর্তব্য পালন করিব’

শপথ নিল তারুণ্যনির্ভর মন্ত্রিসভা

বিশেষ প্রতিনিধি   

৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



‘পদের কর্তব্য পালন করিব’

বঙ্গভবনে গতকাল নতুন প্রতিমন্ত্রীদের শপথ পাঠ করান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। ছবি : বাসস

টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করল আওয়ামী লীগ। নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ নিয়েছেন। গতকাল সোমবার বিকেলে বঙ্গভবনের দরবার হলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথবাক্য পাঠ করান। অনুষ্ঠানের শুরুতে হ্যাটট্রিকসহ চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এই শপথ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের তারুণ্যনির্ভর সরকারের যাত্রা শুরু হলো। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রিসভার ৪৭ সদস্য গতকাল শপথ নেন। এর মধ্যে পূর্ণমন্ত্রী আছেন ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন আর উপমন্ত্রী তিনজন। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ছোট বোন শেখ রেহানা, তাঁর ছেলে রাদওয়ান সিদ্দিক ববি ও পুত্রবধূ পেপ্পি, স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, সিইসি কে এম নুরুল হুদা, দশম সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এবং বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও গণমাধ্যমসহ সামাজিক-সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া সামনের দুই সারিতে বসেন বিদায়ি মন্ত্রীরা।

শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

জোটের শরিক দলের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব আবদুল মান্নান, যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি চৌধুরী ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম। নতুন মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের গত রবিবারই টেলিফোনে জানানো হয়। ওই দিন বিকেলে মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম ও তাঁদের দপ্তরের তালিকা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেন। তালিকা অনুযায়ী নতুন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের জন্য সরকারি পরিবহন পুল থেকে গাড়ি পাঠানো হয়। ওই গাড়িতে চড়ে মন্ত্রীরা বঙ্গভবনে শপথ নিতে যান। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে বঙ্গভবনের উত্তর প্লাজায় আপ্যায়িত করা হয় অতিথিদের। প্রধানমন্ত্রী ঘুরে ঘুরে অতিথিদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

নতুন ২৪ পূর্ণমন্ত্রী গতকাল শপথ নিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি তাঁদের পাঠ করান : ‘আমি...সশ্রদ্ধচিত্তে শপথ করিতেছি যে, আমি আইন অনুযায়ী সরকারের মন্ত্রী পদের কর্তব্য বিশ্বস্ততার সহিত পালন করিব। আমি বাংলাদেশের প্রতি অকৃত্রিম বিশ্বাস ও আনুগত্য পোষণ করিব। আমি সংবিধানের রক্ষণ, সমর্থন ও নিরাপত্তা বিধান করিব। এবং আমি ভীতি বা অনুগ্রহ, অনুরাগ বা বিরাগের বশবর্তী না হইয়া সকলের প্রতি আইন অনুযায়ী যথাবিহিত আচরণ করিব।’

শপথ নেওয়া মন্ত্রীরা হলেন—আ ক ম মোজাম্মেল হক (মুক্তিযুদ্ধ), ওবায়দুল কাদের (সড়ক পরিবহন ও সেতু), ড. আব্দুর রাজ্জাক (কৃষি), আসাদুজ্জামান খান কামাল (স্বরাষ্ট্র), ড. হাছান মাহমুদ (তথ্য), আনিসুল হক (আইন), আ হ ম মুস্তফা কামাল (অর্থ), তাজুল ইসলাম (স্থানীয় সরকার), ডা. দীপু মনি (শিক্ষা), এ কে আব্দুল মোমেন (পররাষ্ট্র), এম এ মান্নান (পরিকল্পনা), নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন (শিল্প), গোলাম দস্তগীর গাজী (বস্ত্র ও পাট), জাহিদ মালেক স্বপন (স্বাস্থ্য), সাধন চন্দ্র মজুমদার (খাদ্য), টিপু মুনশি (বাণিজ্য), নুরুজ্জামান আহমেদ (সমাজকল্যাণ), শ ম রেজাউল করিম (গণপূর্ত), মো. শাহাব উদ্দিন (পরিবেশ ও বন), বীর বাহাদুর উ শৈ সিং (পার্বত্য চট্টগ্রাম), সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ (ভূমি), নুরুল ইসলাম সুজন (রেলপথ), ইয়াফেস ওসমান (বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি), মোস্তাফা জব্বার (ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি)।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে একই শপথবাক্য পাঠ করেন ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী। তাঁরা হলেন—কামাল আহমেদ মজুমদার (শিল্প), ইমরান আহমেদ (প্রবাসীকল্যাণ), জাহিদ আহসান রাসেল (যুব ও ক্রীড়া), নসরুল হামিদ (বিদ্যুৎ ও জ্বালানি), আশরাফ আলী খান খসরু (মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ), মন্নুজান সুফিয়ান (শ্রম), খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (নৌপরিবহন), জাকির হোসেন (প্রাথমিক ও গণশিক্ষা), শাহরিয়ার আলম (পররাষ্ট্র), জুনাইদ আহেমদ পলক (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি), ফরহাদ হোসেন দোদুল (জনপ্রশাসন), স্বপন ভট্টাচার্য (স্থানীয় সরকার), জাহিদ ফারুক (পানিসম্পদ), মো. মুরাদ হাসান (স্বাস্থ্য), শরীফ আহমেদ (সমাজকল্যাণ), কে এম খালিদ (সংস্কৃতি), ডা. এনামুর রহমান (দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ), মাহবুব আলী (বিমান) ও শেখ মো. আবদুল্লাহ (ধর্ম)। একই শপথ নিয়েছেন তিন উপমন্ত্রীও। তাঁরা হলেন হাবিবুন নাহার (পরিবেশ), এ কে এম এনামুল হক শামীম (পানিসম্পদ) ও মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল (শিক্ষা)।

নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় ধানমণ্ডির ঐতিহাসিক ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে এবং সকাল সাড়ে ১০টায় সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করবেন।

শপথগ্রহণের জন্য দুপুরের পর থেকে মন্ত্রিসভার সদস্যরা বঙ্গভবনে উপস্থিত হতে শুরু করেন। সঙ্গে ছিলেন পরিবার সদস্য ও স্বজনরা। শপথ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পান আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য, বিচারপতি, উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী নেতাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। এ ছাড়া সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

শপথ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিকেল ৩টা ১৮ মিনিটে বঙ্গভবনে যান। বিকেল ৩টা ৩৩ মিনিটে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ দরবার হলে উপস্থিত হন। ওই সময় বিউগলে সুর বেজে ওঠে। ৩টা ৩৪ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন ৩টা ৩৯ মিনিটে। রাষ্ট্রপতির কাছে শপথ ও গোপনীয়তার শপথবাক্য পাঠ করেন তিনি। শপথ শেষে ৩টা ৪০ মিনিটে উভয় শপথপত্রে সই করেন তিনি।

বিকেল ৪টায় মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম শপথ অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

শপথ গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যদের নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিসভার সদস্য মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের দপ্তর বণ্টন করেও আলাদা আদেশ জারি হয়।

 



মন্তব্য