kalerkantho


আ. লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ৩৪ জন

এমপি গাজীর বিরুদ্ধে সবাই একাট্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



এমপি গাজীর বিরুদ্ধে সবাই একাট্টা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন মোট ৩৪ জন। তবে তাঁদের মধ্যে বর্তমান সংসদ সদস্য গাজী গোলাম দস্তগীরের বিরুদ্ধে অন্য সবাই একাট্টা। মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকারীদের মধ্যে আবার ৩২ জনই জন্মসূত্রে রূপগঞ্জের সন্তান। তাঁদের মধ্যে সাবেক সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) কে এম সফিউল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ শাজাহান ভূইয়া, শিল্পপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিক অন্যতম।

জানা যায়, ক্ষমতাসীন দলের এমপি গাজীর সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দ্বন্দ্বের কারণে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকারীর সংখ্যা এত বেশি হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সঙ্গে স্থানীয় এমপির দ্বন্দ্বের জের ধরেই দাবি ওঠে রূপগঞ্জের সন্তানকে এই আসনে মনোনয়ন দেওয়ার।

তাৎপর্যের বিষয় হলো, মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা ৩৪ জন প্রার্থীর মধ্যে এমপি গাজীসহ দুজন ছাড়া সবাই জন্মসূত্রে রূপগঞ্জের সন্তান।

মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকারী রূপগঞ্জ আওয়ামী লীগের অন্যরা হলেন—উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা, সহসভাপতি খন্দকার আবুল বাশার টুকু, ইঞ্জিনিয়ার শেখ সাইফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক ভূইয়া, প্রচার সম্পাদক এবং জেলা যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মানজারী আলম টুটুল, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল আজিজ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি হাফিজুর রহমান ভূইয়া সজীব, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হারেজ, মুক্তিযুদ্ধকালীন রূপগঞ্জ থানা কমান্ডার আব্দুল জাব্বার খান পিনু, আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ, মোশারফ হোসেন বাবু, কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভানেত্রী ডা. খালেদা খানম, দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হোসেন ভূইয়া রানু, ভুলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন ভূইয়া, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা, উপজেলা শ্রমিক লীগ নেতা মতিউর রহমান আকন্দ, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য কামরুল হাসান তুহিন, মিজানুর রহমান মিজান ও শীলা রানী পাল, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম চৌধুরী অপু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মেহের, সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভূইয়া, মুড়াপাড়া সরকারি কলেজের ভিপি শাহরিয়ার পান্না সোহেল, আওয়ামী লীগ নেত্রী মাহনুর সুলতানা মুনমুন, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদ আলী ও যুবলীগ নেতা শাহীন মালুম।

অন্যদিকে মহাজোটের শরিক দল জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্তে এবার নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে দলীয় প্রার্থী দিয়েছে। উপজেলা জাতীয় পার্টির সহসভাপতি ও জাতীয় যুব সংহতির উপজেলা সভাপতি সাইফুল ইসলাম এই আসনে দলের মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন।

আব্দুল হাই বলেন, ‘আমি দেখেছি গত দশ বছরে রূপগঞ্জ আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী মামলা-হামলার শিকার হয়েছে। স্থানীয় সন্তান হিসেবে রূপগঞ্জ আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে আসন্ন সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-১ আসন (রূপগঞ্জ) থেকে দলের মনোনয়ন ফরম কিনেছি। নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিলে এখানে নৌকাকে বিজয়ী করব।’

আলহাজ শাহজাহান ভূইয়া বলেন, ‘দেশের উন্নয়নের স্বার্থে শেখ হাসিনাকে আবার ক্ষমতায় আনতে হবে। রূপগঞ্জের উন্নয়নের জন্য আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ করে নৌকাকে বিজয়ী করতে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। নেত্রী এই আসনে রূপগঞ্জের সন্তানকে মনোনয়ন দিলে আমরা নৌকাকে বিজয়ী করব।’

হাফিজুর রহমান ভূইয়া সজীব বলেন, ‘রূপগঞ্জের সন্তান যে কাউকে মনোনয়ন দিলে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকাকে বিজয়ী করব।’

আব্দুল জাব্বার খান পিনু বলেন, ‘রূপগঞ্জবাসীর প্রাণের দাবি এই আসনের সংসদ সদস্য হবেন রূগগঞ্জের সন্তান। সে হিসেবে একজন মুক্তিযোদ্ধা হয়ে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। আশা করি জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপগঞ্জের সন্তানকে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দিয়ে রূপগঞ্জবাসীর আশা পূরণ করবেন।’

আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিক বলেন, ‘রূপগঞ্জে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নামে দুই হাজার সাত শ মামলা দেওয়া হয়েছে। নেতাকর্মীদের মামলা থেকে মুক্ত করতে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে রূপগঞ্জ আসনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছি। আমাকে মনোনয়ন দিলে রূপগঞ্জবাসীকে সঙ্গে নিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করে আসনটি নেত্রীকে উপহার দেব।’



মন্তব্য