kalerkantho


প্র তি ক্রি য়া

অনেকে ভুলে যান তাঁরা দলের নন রাষ্ট্রের কর্মচারী

ব্রি. জে. (অব.) সাখাওয়াত হোসেন, সাবেক নির্বাচন কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



অনেকে ভুলে যান তাঁরা দলের নন রাষ্ট্রের কর্মচারী

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ে সে সময়ের রাষ্ট্রীয় গেয়েন্দা সংস্থার প্রধান ও উচ্চপর্যায়ের কয়েকজন কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড ও বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এঁদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক সেনা ও পুলিশ কর্মকর্তা। এ সম্পর্কে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ ও সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, এই রায়ে আদালতের যে পর্যবেক্ষণ তা পুরোপুরিভাবে না জেনে মন্তব্য করা ঠিক হবে না। তবে সাধারণভাবে বলা যায়, বিরোধী পক্ষকে দমনের জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার এ দেশে দীর্ঘদিন ধরেই চলে আসছে। ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার ঘটনাটি ছিল এ ক্ষেত্রে একটি ভয়াবহ ঘটনা। এ ধরনের ঘটনায় নিজেকে যুক্ত করার ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনেক সময় তাঁদের চাকরির টার্মস অব রেফারেন্স ভুলে যান। ব্যক্তিগত কারণে এবং উৎসাহে দলীয় আচরণ করে থাকেন। কিন্তু সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চার্টার অব ডিউটির বাইরে কাজ করা উচিত নয়।

তিনি বলেন, সামরিক বাহিনীতে এই মর্মে শপথ নিতে হয় যে, সুপিরিয়র বস যা কমান্ড করবে তার জন্য জলে, স্থলে, আকাশে যেখানেই হোক জীবন দিয়েও সে কমান্ড মানতে বাধ্য থাকব। এর সঙ্গে অবশ্য একটি কথা যুক্ত থাকে। তা হলো—‘লফুল কমান্ড’। কমান্ড হতে হবে বিধি বা আইনসংগত। অন্য বাহিনীতে এ ধরনের শপথ নিতে হয় কি না জানি না, তবে সামরিক বাহিনীতে এই শপথ নিয়েই কর্মজীবন শুরু হয়। তার পরও নানা কারণে অনেক সময় কেউ কেউ হয়তো ভুলে যান কোনটা লফুল আর কোনটা তা না। তাঁরা যে কোনো দলের বা বিশেষ কোনো গোষ্ঠীর নন, রাষ্ট্রের কর্মকর্তা-কর্মচারী এটাও ভুলে যান।

সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার ঘটনায় অভিযুক্তরা কোন প্রেক্ষাপটে জড়িয়ে পড়েছিলেন তা নথি না দেখে সঠিকভাবে বলা যায় না। এর সঙ্গে রাজনৈতিক বিষয়ও রয়েছে।

এই রায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে কি না—এ প্রশ্নে তিনি বলেন, এটি কোনো দলের রাজনৈতিক এজেন্ডা হতে পারে, নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রচারের উপকরণ বা স্লোগান হিসেবে ব্যবহার হতে পারে, কিন্তু সার্বিকভাবে বড় কোনো প্রভাব ফেলবে বলে মনে হয় না। তারেক রহমানের তো আগেই সাজা হয়েছে। সে সাজার ফলে তারেক রহমান নির্বাচনে অযোগ্যই রয়েছেন।



মন্তব্য