kalerkantho


ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত করার কথা স্বীকার বখাটে অভির

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত করার কথা স্বীকার বখাটে অভির

বগুড়ায় কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে তার দেহের স্পর্শকাতর স্থানে ছুরিকাঘাত করার কথা স্বীকার করেছেন শহর যুবলীগ সভাপতির ছেলে কাওসার আলম অভি। রিমান্ডে (জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজত) থাকা অবস্থায় তিনি ওই অপরাধের কথা স্বীকার করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তদন্তসংশ্লিষ্ট এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, জিজ্ঞাসাবাদে অভি দাবি করেন যে নির্যাতিত ছাত্রীকে তিনি ভালোবাসতেন। কিন্তু অন্য একজনের সঙ্গে ওই ছাত্রীর সম্পর্ক থাকা এবং বিয়ে ঠিক হওয়ার কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে অভি ওই কাণ্ড ঘটান।

গত সোমবার বিকেলে অভিকে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠিয়ে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক ফরিদ উদ্দিন জানান, বিচারক শুনানি শেষে অভির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আজ বুধবার তাঁকে আবার আদালতে হাজির করা হবে। এর আগে রবিবার রাত সাড়ে ১১টায় মা নাসরিন আলমের সঙ্গে গিয়ে সদর থানার পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন অভি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, অভি বগুড়ার অপরাধজগতের সঙ্গে জড়িত। প্রভাবশালী পরিবারের ছেলে হওয়ায় তাঁর মধ্যে সব সময়ই একটা ‘ড্যাম কেয়ার’ ভাব দেখা যায়। সব সময়ই অভির সঙ্গে ২০-২২ জনের একটি ‘বাহিনী’ থাকত। তারা চলাফেরা করত ৮-১০টি মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে। অভির নেতৃত্বে তাঁর ‘বাহিনী’ ঘটনার দিন বাদুরতলা এলাকা থেকে ওই তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল। এরপর কাটনারপাড়া এলাকায় তার দেহের স্পর্শকাতর স্থানে ছুরিকাঘাত করেন অভি নিজে।

বগুড়া পৌরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম বলেন, নির্যাতিত ছাত্রীর পরিবার এখনো ঝুঁকির মধ্যে আছে। তারা মোবাইল ফোন ধরা বন্ধ করে দিয়েছে। এলাকাবাসী ও পুলিশের সাপোর্টে তারা চলাফেরা করছে।



মন্তব্য