kalerkantho


সড়কের নিরাপত্তায় চাই সমন্বিত উদ্যোগ

১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



সড়কের নিরাপত্তায় চাই সমন্বিত উদ্যোগ

সৈয়দ আবুল মকসুদ, লেখক ও গবেষক

পৃথিবীর সব দেশের মানুষ যেমন এক রকম নয়, সব দেশের সমস্যাও এক রকম নয়। সমাধানও এক রকম নয়। একটি উন্নত, কম জনসংখ্যার দেশের গণপরিবহন সমস্যা আর জনবহুল বাংলাদেশের গণপরিবহন সমস্যা এক রকম নয়। উন্নত দেশের রাস্তাঘাট আর বাংলাদেশের রাস্তাঘাটের অবস্থা এক রকম নয়।

বহুদিন ধরে এ খাতের সমস্যা নিয়ে কাজ করতে গিয়ে দেখেছি, এই সমস্যা বহুমাত্রিক ও অতি জটিল।

আমাদের দেশে সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে বেশি কথা হয়। কিন্তু এর সঙ্গে আরো অনেক বিষয় যুক্ত। আমার ধারণা, এই সমস্যা সমাধানে সুশাসন খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। শাসনব্যবস্থার আমূল সংস্কার ছাড়া গণপরিবহনে শৃঙ্খলা রক্ষা সম্ভব নয়। সড়কে যাতায়াত নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করা সম্ভব নয়।

আমরা নিরাপদ সড়কের প্রশ্নে চালকদের অদক্ষতা ও খামখেয়ালির কথাই শুধু বলি। যাত্রী কিংবা পথচারীদের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কথা বলি না। ট্রাফিক আইন সম্পর্কে আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষের ধারণা নেই বললেই চলে। আমি নিজে ২০টিরও বেশি ফুট ওভারব্রিজের সামনে জরিপ করে দেখেছি, পথচারীদের ১০ শতাংশও ওই ব্রিজ ব্যবহার করে না। দিনের ব্যস্ত সময়ে ব্রিজের নিচ দিয়ে সড়ক পারাপার হয়।

পথচারীদের আরো অনেক সমস্যা রয়েছে। এক শ্রেণির পথচারী আছে, রাস্তা পারাপারের সময় অথবা রাস্তার পাশ দিয়ে হাঁটার সময় মোবাইল ফোনে কথা বলা যাদের অতি প্রিয় অভ্যাস। আরেক শ্রেণির পথচারী কানে হেডফোন লাগিয়ে গান শুনতে শুনতে চলাফেরা করে। গানের সুরে এরা এতটাই মশগুল থাকে, কোনো দিকে তাকানোরও সুযোগ পায় না। মোটরসাইকেলের পেছনে বসা যাত্রী মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ঘাঁটে। বাইসাইকেলচালককে এক হাতে মোবাইল ফোনে কথা বলা অবস্থায় ব্যস্ত সড়কে চলাচল করতে দেখা যায়। এক শ্রেণির মোটরসাইকেল আরোহীকেও মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে চলতে দেখা যায়। এগুলো কোনো দায়িত্বশীল নাগরিকের কাজ নয়।

নাগরিক সমাজ ও শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আমরা একটি কঠোর সড়ক নিরাপত্তা আইন পেতে যাচ্ছি। যদিও বর্তমানে আইনের যে খসড়াটি করা হয়েছে, তাতে অনেক দুর্বলতা রয়েছে। সেগুলো সংশোধনের এখনো সুযোগ আছে। কিন্তু আইন যত কঠিনই হোক, আইনের প্রয়োগ কঠিন না হলে কোনো কাজই হবে না।

শুধু বেপরোয়া চালকদের শাস্তি দিলেই হবে না। বেপরোয়া পথচারী ও নাগরিকদেরও ট্রাফিক আইন অমান্য করার শাস্তির বিধান করা প্রয়োজন। সবার সমন্বিত প্রচেষ্টা ছাড়া সড়কের নিরাপত্তা বিধান করা সম্ভব নয়।

শ্রুতলিখন : রেজাউল করিম



মন্তব্য