kalerkantho


সেই থাই গুহা হবে জাদুঘরহবে সিনেমাও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



সেই থাই গুহা হবে জাদুঘরহবে সিনেমাও

থাইল্যান্ডের ‘থাম লুয়াং নাং নন’ গুহাটি ইতিমধ্যে একটা গল্প হয়ে গেছে। এবার গুহাটিকে একটি জাদুঘর বানানোর ঘোষণা দিয়েছে থাই সরকার। এ ছাড়া চলচ্চিত্র নির্মাণকারী দুটি প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, তারা এ ঘটনা নিয়ে চলচ্চিত্র বানাতে চায়; যেখানে তুলে ধরা হবে ১২ খুদে ফুটবলার এবং তাদের কোচকে জীবিত উদ্ধারের ‘মিশন ইমপসিবল’ কাহিনি।

টানা ১৮ দিন পর ওই গুহা থেকে উদ্ধার হওয়া ১৩ জনই এখন হাসপাতালে চিকিত্সাধীন। বাড়ি ফিরতে আরো দিন পাঁচেক অপেক্ষা করতে হবে তাদের। গুহায় আটকে পড়া থেকে শুরু করে তাদের উদ্ধার অভিযান গত কয়েক দিন ধরেই ছিল বিশ্বগণমাধ্যমের মূল শিরোনাম।

হাসপাতালে চিকিত্সাধীন শিশু-কিশোরদের একটি ভিডিও গত বুধবার সন্ধ্যায় প্রকাশ করে থাইল্যান্ডের সামরিক বাহিনীর বিশেষ উদ্ধারকারী দল ‘নেভি সিল’। ভিডিওতে প্রত্যেককেই সুস্থ এবং বেশ প্রফুল্ল দেখা যায়। ‘নেভি সিল’ আরেকটি ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে, যাতে রোমহর্ষক উদ্ধার অভিযানের একটি দৃশ্য রয়েছে।

উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াং রাই প্রদেশের ওই গুহায় নেভি সিলের উদ্ধার অভিযান শেষ হয় গত মঙ্গলবার। তবে দলটির সদস্যরা রাজধানী ব্যাংককে ফেরেন গতকাল। সেখানে সামরিক একটি বিমানবন্দরে অবতরণের পর করতালি ও ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় তাদের।

‘থাম লুয়াং নাং নন’ থাইল্যান্ডের সবচেয়ে বড় গুহাগুলোর একটি। চিয়াং রাই প্রদেশের ছোট্ট শহর মায়ে সাইয়ের পাশে যে পাহাড়ি এলাকা রয়েছে, এটির অবস্থান সেখানে। পর্যটকদের জন্য বানানো কয়েকটি স্থাপনা বাদে অবকাঠামোর দিক থেকে এলাকাটি খুবই অনুন্নত।

গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সাবেক গভর্নর এবং উদ্ধার অভিযানের প্রধান নারোংসাক ওসোত্তানাকর্ন বলেন, ‘পর্যটকদের সামনে উদ্ধার অভিযানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তুলে ধরতে এ এলাকাকে জীবন্ত জাদুঘরে পরিণত করা হবে।’ সেখানে একটি ‘ইন্টারেক্টিভ ডাটাবেইস’ গড়ে তোলা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচা এরই মধ্যে জানিয়েছেন, গুহার ভেতরে ও বাইরের নিরাপত্তাব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে। বাড়ানো হবে গুহার প্রবেশমুখ ও নির্গমন পথের নজরদারি।

এদিকে পুরো ঘটনা নিয়ে সিনেমা বানাতে ইতিমধ্যে দুটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে গেছে। এমনকি ১৩ জনের জীবিত উদ্ধার হওয়ার আগেই মার্কিন প্রতিষ্ঠান ‘পিওর ফ্লিক্স’ ঘোষণা দেয় যে তাদের প্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকারীদের সাক্ষাত্কার নিয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির সহপ্রতিষ্ঠাতা মাইকেল স্কট থাইল্যান্ডে থাকেন। তিনি জানান, তাঁর স্ত্রীর বেড়ে ওঠা ডুবুরি সামান গুনানের সঙ্গে, যিনি উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। স্কট বলেন, ঘটনাটি তাঁর জীবনের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। এ কারণে তিনি বিষয়টি নিয়ে সিনেমা বানাবেন।

লস অ্যাঞ্জেলসভিত্তিক আরেক প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘ইভানহৌ পিকচার্স’ দাবি করেছে, পুরো ঘটনা নিয়ে সিনেমা বানাতে থাই সরকার ও সেনাবাহিনী ইতিমধ্যে তাদের নির্বাচিত করেছে। প্রতিষ্ঠানটির উদ্ধৃতি দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম বলেছে, জন এম চুকে এরই মধ্যে সিনেমার পরিচালক বানানোও হয়ে গেছে।

সিনেমা বানানোর খবরে থাইল্যান্ডের অনেকেই নানা সন্দেহ প্রকাশ করেছে। কেউ কেউ বলছে, সিনেমায় থাইল্যান্ডের ডুবুরিদের বাদ দিয়ে বিদেশি ডুবুরিদের নায়ক হিসেবে দেখানো হতে পারে। জন এম চু অবশ্য জোর দিয়েই বলেছেন, তাঁর সিনেমা পুরোপুরি নিরপেক্ষ হবে। সূত্র : বিবিসি।

 



মন্তব্য