kalerkantho


সড়ক দুর্ঘটনায় সাত জেলায় নিহত ১৭

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



সড়ক দুর্ঘটনায় সাত জেলায় নিহত ১৭

গত দুই দিনে দেশের সাত জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন। নিহতদের মধ্যে নওগাঁয় ছয়জন, গাইবান্ধায় দুজন, ময়মনসিংহের হাওরাঞ্চলে দুজন, নান্দাইলে দুজন ও ত্রিশালে একজন, পঞ্চগড়ে একজন, কুড়িগ্রামে একজন ও নারায়ণগঞ্জে একজন রয়েছে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে বিস্তারিত—

নওগাঁ : নওগাঁয় গতকাল রবিবার পৃথক দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত ও চারজন আহত হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে পোরশা-সরাইগাছী সড়কের কুসরপাড়া নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাস ধাক্কা দিলে ইজিবাইক উল্টে গিয়ে ঘটনাস্থলেই তিন যাত্রী নিহত হন। পরে আহত চারজনকে হাসপাতালে নেওয়া হলে আরো দুই যাত্রীর মৃত্যু হয়।

নিহত পাঁচজনের মধ্যে তিন যাত্রীর পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন উপজেলার কসরা গ্রামের মৃত মুনির উদ্দিনের ছেলে আব্দুস সালাম (৪৮), একই গ্রামের মোসলেমের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (৪২) ও বোরা  গ্রামের রানার স্ত্রী হিরা বেগম (৬০)। তা ছাড়া সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পত্নীতলার নজিপুর বাজার এলাকায় একটি ট্রাক ধাক্কা দিলে পথচারী রমজান আলী (৫০) ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

গাইবান্ধা : গাইবান্ধায় গত শনিবার পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত ও দুজন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে দুপুরে গাইবান্ধা-নাকাইহাট সড়কের নতুন বাজার এলাকায় অটোরিকশার ধাক্কায় ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র কিশোর এলিন (১৩) নিহত ও আরেকজন গুরুতর আহত হন। এলিন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাই ইউনিয়নের পগইল গ্রামের তাজুরুল ইসলামের ছেলে। তা ছাড়া সন্ধ্যায় সুন্দরগঞ্জ সদরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বাসচাপায় নিহত হন গৃহবধূ রানজিলা বেগম আঁখি আকতার (৩০)। এ সময় তাঁর চার বছরের ছেলে রাকিবুল ইসলাম রাকিব আহত হয়। রানজিলা সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মোস্তাফিজার রহমান লিটনের স্ত্রী।

হাওরাঞ্চল : ময়মনসিংহের বাজিতপুর-ভৈরব রুটে গতকাল ভোরে ট্রাক্টরের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশার দুই যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছেন চালকসহ আরো তিন যাত্রী। নিহতরা হলেন বাজিতপুরের রাহেলা গ্রামের এনজিও কর্মকর্তা আব্দুল করিম ও শিমুলতলা গ্রামের সাবান কারখানাকর্মী মো. শাহীন মিয়া। আহতদের মধ্যে শিমুলতলার ব্যাংক কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম সুসান ঢাকার একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। তা ছাড়া পৈলনপুর গ্রামের লালন মিয়া ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত এ দুজনের জ্ঞান ফেরেনি।

ময়মনসিংহ (আঞ্চলিক) : ময়মনসিংহের নান্দাইল-তাড়াইল সড়কের কলাপাড়া নামক স্থানে গত শনিবার সকালে পাওয়ার ট্রলির সঙ্গে অটোরিকশার সংঘর্ষে দুজন নিহত ও তিনজন আহত হন। অটোরিকশাচালক মো. সোহেল মিয়া (৩০) ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত চারজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয় ঝুটন ভৌমিকের (৪৫)। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্য তিনজনের অবস্থাও গুরুতর।

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের ত্রিশালে গতকাল পৃথক দুর্ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবক নিহত ও অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন। আহতদের মাঝে তিনজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ত্রিশালের বানারব্রিজ ও রাগামারা এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার বুড়াবুড়ি নামক স্থানে গত শনিবার বিকেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে একটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল আরোহী রাসেল ইসলাম (২০) নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো তিনজন। এর মধ্যে গুরুতর দুজনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহত রাসেল উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের জামাদারগছ এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে সাবিহা নামের ছয় বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল দুপুরে পাকুন্দিয়া পৌর এলাকার বরাটিয়া চৌরাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সাবিহা উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের বাহাদিয়া গ্রামের মো. শরীফুল ইসলামের মেয়ে।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম-রংপুর সড়কের ছিনাই বাজারের কাছে গতকাল বিকেলে ট্রাকের ধাক্কায় মিজানুর রহমান (৩৫) নামের এক সাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। তাঁর বাড়ি লালমনিরহাটের পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের নয়ারহাট বাজার এলাকায়।

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলার জালকুড়ি এলাকায় শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাস্তা পারাপারের সময় বাসচাপায় অজ্ঞাতপরিচয় এক নারী (৫৫) নিহত হয়েছেন। তাঁর পরনে ছিল ছাপা জামা, নীল পায়জামা ও কালো ওড়না।

 


মন্তব্য