kalerkantho


হাইকোর্টে রিট খারিজ

নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদ বৈধ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদ বৈধ

ফেনী-২ আসন থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ নেতা নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা রিট আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ফলে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদ বৈধ থাকল।

বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকীর একক বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এই রায় ঘোষণা করেন। এ রায়ের মধ্য দিয়ে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদ নিয়ে হাইকোর্টে বিচারাধীন মামলা নিষ্পত্তি হলো।

তবে এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারী স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া।

আইনজীবীরা জানান, হাইকোর্ট তাঁর রায়ে বলেছেন যে নিজাম হাজারী রিট আবেদনকারীর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ। রিট আবেদনটি জনস্বার্থমূলক নয়। এর সঙ্গে রিট আবেদনকারীর ব্যক্তিস্বার্থ জড়িত। অসৎ উদ্দেশ্যে এ রিট আবেদন করা হয়েছে। তা ছাড়া সাজা পুরোপুরি খেটেছেন কি না, সেটা একটি বিতর্কিত বিষয়। তাই রিট আবেদন খারিজ করা হলো।

গত চার বছর থেকে বিষয়টি বিচারাধীন ছিল। এর আগে ২০১৬ সালের ৬ ডিসেম্বর হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ দ্বিধাবিভক্ত রায় দেন। এ কারণে বিষয়টি একক বেঞ্চে নিষ্পত্তি করা হলো।

আদালতে নিজাম হাজারীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ ও অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন। রিট আবেদনকারী শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়ার পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট কামরুল হক সিদ্দিকী ও সত্যরঞ্জন মণ্ডল। 

নিজাম হাজারীর কারাভোগ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ২০১৪ সালে ‘সাজা কম খেটেই বেরিয়ে যান সাংসদ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট আবেদন দাখিল করা হয়। অস্ত্র মামলায় সাজা কম খাটার অভিযোগ এনে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া। এ রিট আবেদনে ২০১৪ সালের ৮ জুন হাইকোর্ট এক আদেশে ফেনী-২ আসন কেন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। এ রুলের ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ ২০১৬ সালের ৬ ডিসেম্বর দ্বিধাবিভক্ত রায় দেন।

রায়ে বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকা অবৈধ ঘোষণা করেন। আর কনিষ্ঠ বিচারপতি সংসদ সদস্য পদে থাকা বৈধ ঘোষণা করেন। দ্বিধাবিভক্ত রায় দেওয়ায় বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য হাইকোর্টের একক বেঞ্চ গঠন করেন প্রধান বিচারপতি। কিন্তু একাধিক বেঞ্চ এ রিট আবেদনটি শুনতে বিব্রত হয়েছেন। সর্বশেষ বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকীর হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানি শেষে গতকাল রুল খারিজ করে রায় দিলেন।


মন্তব্য