kalerkantho


শিক্ষামন্ত্রীর পিওসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে ডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শিক্ষামন্ত্রীর পিওসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে ডিবি

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা (পিও) মোতালেব হোসেনকে (৪৫) নিখোঁজের ২৪ ঘণ্টা পর গ্রেপ্তার দেখাল ডিবি পুলিশ। এর আগে গত বৃহস্পতিবার নিখোঁজ নাসির উদ্দিন (৫০) নামের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মী ও শনিবার নিখোঁজ গুলশানের লেকহেড গ্রামার স্কুলের মালিক খালেদ হাসান মতিনকেও গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছেন ডিবি কর্মকর্তারা।

গতকাল রবিবার রাতে মোতালেবকে বসিলা থেকে এবং নাসির উদ্দিন ও খালেদ হাসান মতিনকে গুলশান থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন। তিনি জানান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গ্রহণ ও বিতরণ শাখার উচ্চমান সহকারী নাসিরের কাছে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা পাওয়া গেছে।

ডিবি সূত্র জানায়, প্রশ্নপত্র ফাঁসসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে নানা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মোতালেব ও নাসিরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর খালেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে।

এই তিনজনের মধ্যে মোতালেবকে বসিলা থেকে এবং খালেদকে গুলশান থেকে শনিবার বিকেলে কয়েকজন ব্যক্তি তুলে নিয়ে যায় বলে তাঁদের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করা হয়। আর বৃহস্পতিবার দুপুরে বনানীর একটি প্রতিষ্ঠানে গিয়ে সেখান থেকে বেরোনোর পর থেকে নাসিরের খোঁজ মিলছিল না বলে তাঁর পরিবার জানিয়েছিল।

সম্প্রতি রাজধানীতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তার বাসায় গিয়ে অপরিচিত লোকজন খোঁজখবর নেয়। এসব ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

গতকাল বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নিখোঁজ মোতালেব ও নাসিরকে যেকোনো মূল্যে উদ্ধারের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁদের উদ্ধারের জন্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুই ঘটনার মধ্যে সংযোগ আছে নাকি পৃথক ঘটনা—সেটাও খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।’

মোতালেবের ভাই শাহাবুদ্দিন শনিবার সন্ধ্যায় হাজারীবাগ থানায় ভাই নিখোঁজ জানিয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। তাতে তিনি উল্লেখ করেন, ওই দিনই (২০ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার পর থেকে মোতালেবের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি উল্লেখ করেছেন, ‘ধারণা করছি ডিবি পরিচয়ে কেউ আমার বড় ভাইকে তুলে নিয়ে গেছে।’ মোতালেব ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার আমতলী গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে।

গতকাল দুপুরে শাহাবুদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, বসিলা এলাকায় গত বছর থেকে ছয়তলা একটি বাড়ি নির্মাণ করছিলেন তাঁর ভাই। শনিবার বিকেলে তিনি স্যানিটারির কিছু জিনিসপত্র কিনে দিতে সেখানে আসেন। ওই সময় বাড়ির নিচে অপেক্ষা করছিলেন তিন ব্যক্তি। তাঁদের সঙ্গে একটি মাইক্রোবাস ও একটি কালো রঙের প্রাইভেট কার ছিল। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মোতালেব নিচে নামার পর তিন ব্যক্তি এগিয়ে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন আপনার নাম কি মোতালেব? পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর তাঁরা বাড়ি ভাড়া নেবেন বলে বাড়ি দেখতে চান। তিনি তাঁদের পরে আসতে বললেও তাঁরা বাড়ি দেখতে চান। অগত্যা ভাতিজা শাহাদাতকে বাসা দেখানোর দায়িত্ব দিলেও তাঁরা মোতালেবকে বাড়ির ভেতরে যাওয়ার জন্য জোর করতে থাকেন। একপর্যায়ে তাঁকে প্রাইভেট কারে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে ভাতিজাসহ আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। তখন তাঁরা নিজেদের প্রশাসন ও ডিবির লোক বলে পরিচয় দেন। এরপর তাঁকে প্রাইভেট কারে তুলে গাড়ি ছেড়ে দেন। সাদা মাইক্রোবাস ওই গাড়ির পেছনে যেতে থাকে। ভাতিজা সঙ্গে সঙ্গে মোতালেবের মোবাইলে ফোন দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। শাহাবুদ্দিন বলেন, ‘এলাকায় কারো সঙ্গে আমার ভাইয়ের কোনো শত্রুতা ছিল না।’

এ বিষয়ে হাজারীবাগ থানার ওসি মীর আলিমুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জিডির পর আমরা ওই এলাকায় গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি বাড়ি নির্মাণ নিয়ে মোতালেবের সঙ্গে কারো কোনো ঝামেলা ছিল না। তাঁর নিখোঁজের বিষয়ে এখনো কোনো সূত্র খুঁজে পাওয়া যায়নি।’

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে বনানী থেকে নাসির উদ্দিন (৫৫) নামের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মী নিখোঁজ হন বলে জিডি করে জানান তাঁর শ্বশুর আবদুল মান্নান খান। নাসির শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘গ্রহণ ও বিতরণ শাখা’র উচ্চমান সহকারী হিসেবে কর্মরত। এ ছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী সমবায় সমিতি লিমিটেডের যুগ্ম সম্পাদকও। জিডিতে অভিযোগ করা হয়, নাসির উদ্দিন কনকর্ড লেকসিটির বৈকালী ভবনের বাসা থেকে বৃহস্পতিবার সকালে বের হন। দুপুরে তাঁর স্ত্রী নিশাত জাহানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হয়। বিকেল ৩টা থেকে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। গতকাল রাতে তাঁকেও গ্রেপ্তার দেখায় ডিবি।

গুলশানের লেকহেড গ্রামার স্কুলের মালিক খালেদ হাসান মতিনেরও ‘খোঁজ’ মিলছে না জানিয়ে শনিবার একটি জিডি করা হয়। গুলশান থানায় করা এই জিডিতে তাঁর অফিসের স্টাফ ইদ্রিস আলী অভিযোগ করেন, খালেদ বিকেল ৪টায় গুলশান-১-এর ১৩৫ নম্বর রোডে অবস্থিত লেকহেড গ্রামার স্কুলের সামনে থেকে ‘নিখোঁজ’ হয়েছেন। তাঁকেও রাতে ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার দেখিয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি : গতকাল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এসএসসি পরীক্ষার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার বিষয়ে একটি সভা ছিল। ওই সভায় পর পর দুজন কর্মীকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা নিয়েও আলোচনা হয়। নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে গতকালই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।



মন্তব্য