kalerkantho


ঢাকা সিটির ভোট ২৬ ফেব্রুয়ারি

দুই সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন ১৩ মার্চ

বিশেষ প্রতিনিধি   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকা সিটির ভোট ২৬ ফেব্রুয়ারি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৬ ফেব্রুয়ারি। এদিন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির নতুন যুক্ত হওয়া ৩৬টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও ভোটগ্রহণ হবে। এসংক্রান্ত তফসিল ঘোষণা করা হবে ৯ জানুয়ারি। আর সংসদ সদস্যের মৃত্যুতে সদ্য শূন্য হওয়া গাইবান্ধা-১ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের উপনির্বাচন হবে ১৩ মার্চ। গতকাল বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনে (ইসি) অনুষ্ঠিত বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয়েছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে গতকাল কমিশনে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন ও সিটির দুই অংশের ৩৬ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ হবে ২৬ ফেব্রুয়ারি। তফসিল ঘোষণা করা হবে ৯ জানুয়ারি। কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত ছাড়াও সম্প্রতি শূন্য হওয়া গাইবান্ধা-১ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের উপনির্বাচনের জন্য ১৩ মার্চ দিন ধার্য হয়েছে। এর তফসিল ঘোষণা করা হবে ৫ ফেব্রুয়ারি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, ‘ঢাকা সিটির নির্বাচনে ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) ব্যবহার বিষয়ে কমিশন সভায় কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে। রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে যেহেতু একটি কেন্দ্রে সফলভাবে ইভিএম ব্যবহার করতে পেরেছি। ঢাকার বিষয়েও ইভিএমের কার্যকরী দিক পর্যালোচনা করে কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে। ঢাকা সিটির  নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীর পোস্টার-ব্যানার অপসারণের জন্য আমরা ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার, দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা, পুলিশ কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশনা দিয়েছি। আগামী ৬ জানুয়ারি মধ্যরাতের মধ্যে নিজ দায়িত্বে সম্ভাব্য প্রার্থীদের পোস্টার-ব্যানার অপসারণ করতে বলা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে কেউ যদি অপসারণ না করে, তাহলে আর্থিক জরিমানাসহ আইনানুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ঢাকা উত্তর সিটির (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুতে মেয়র পদ শূন্য হয়েছে গত ৩০ নভেম্বর। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে গত ৪ ডিসেম্বর এ বিষয়ে গেজেট জারি করা হয়। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইনের ১৫(ঙ) ধারা অনুসারে সিটি করপোরেশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার ১৮০ দিনের আগে মেয়র বা কাউন্সিলরের পদ শূন্য হলে ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন সম্পন্ন করতে হবে। নির্ধারিত এ সময়ের মধ্যেই ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশন গতকাল সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে গত জুলাই মাসে ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনে নতুন করে যুক্ত হওয়া ১৬টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে ৩৬টি ওয়ার্ড গঠন করা হয়েছে। এ নিয়ে দুই সিটিতে মোট ওয়ার্ডের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৯। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ১৮টি করে ওয়ার্ড যুক্ত হয়েছে। নতুন এসব ওয়ার্ডের সাধারণ ও নারী কাউন্সিলর মিলিয়ে ৪৮টি পদে ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ইসি সচিবালয় সূত্র জানায়, ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র চূড়ান্ত করা এবং ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের তালিকা তৈরির কাজ এখনো বাকি রয়েছে। দ্রুতই তা করা হবে। এবার দুই সিটির নির্বাচন হতে যাচ্ছে প্রায় ৩৫ লাখ ভোটার নিয়ে। এর মধ্যে উত্তরের মেয়র পদে নির্বাচনের ক্ষেত্রে ভোটার থাকছে ৩০ লাখের কাছাকাছি। বর্তমানে দুই সিটির নতুন ৩৬টি ওয়ার্ডের  ভোটার সংখ্যা ১০ লাখ ৫৩ হাজার ৯৯৪। এর মধ্যে নারী পাঁচ লাখ ১৭ হাজার ১৬১ জন এবং পুরুষ পাঁচ লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৩ জন। ঢাকা উত্তর সিটির নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের মোট ভোটার পাঁচ লাখ ৭৮ হাজার ১৬২ জন। এর মধ্যে নারী দুই লাখ ৮৫ হাজার ৬৭৭ জন এবং পুরুষ দুই লাখ ৯২ হাজার ৪৮৫ জন। ঢাকা দক্ষিণ সিটির নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের মোট ভোটার চার লাখ ৭৫ হাজার ৮৩২ জন। এর মধ্যে নারী দুই লাখ ৩১ হাজার ৪৮৪ জন এবং পুরুষ দুই লাখ ৪৪ হাজার ৩৪৮ জন। দুই সিটির নতুন ওয়ার্ডগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ১১ হাজার ৯৯৮ জন ভোটার দক্ষিণের ৬৯ নম্বর ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডটি কামারগোপ খালপাড়া, কামারগোপ দক্ষিণ, ডেমরা, আহম্মদ বাগুয়ানি টেক্সটাইল মিল, লতিফ বাওয়ানি জুটমিল, নড়াইবাগ, মিরপাড়া ও রাজাখালী এলাকা নিয়ে গঠিত। আর সবচেয়ে বেশি ৫৩ হাজার ১১৭ জন ভোটার রয়েছেন উত্তরের ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডটি দক্ষিণখান  মৌজার কাওলা, আশকোনা ও গাওয়াইর এলাকা নিয়ে গঠিত।

অন্যদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি গোলাম মোস্তফা ও বার্ধক্যজনিত কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের এমপি প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হক মারা যান। এ দুটি শূন্য আসনে আগামী ১৩ মার্চ ভোটগ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন।



মন্তব্য