kalerkantho


ভুল শুধরে আজ জয়ের আশা বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১৯ মে, ২০১৭ ০০:০০



ভুল শুধরে আজ জয়ের আশা বাংলাদেশের

একাদশের সবাই ঘাম ঝরিয়েছেন জিমে। বাকি সাতজন করেছেন নেটে অনুশীলন। স্বাগতিকদের বিপক্ষে আজ ফিরতি ম্যাচের আগে কাল আয়ারল্যান্ডে এভাবেই কেটেছে বাংলাদেশ দলের সময়। ছবি : সৌজন্য

আয়ারল্যান্ড ও বাংলাদেশের মধ্যকার ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচটি ভেসে গিয়েছিল বৃষ্টিতে। আজ পরেরটিও কি যাবে?

কাল যখন এই ম্যাচের ভেন্যু ম্যালাহাইড গ্রাউন্ডে অনুশীলনে বাংলাদেশ শিবির, তখন ঘন কালো মেঘে ঢাকা আকাশ সেই সংশয় উসকে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। আর এর সঙ্গে ছিল কনকনে ঠাণ্ডা হাওয়া। তা বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের এমনই কাঁপিয়ে দিচ্ছিল যে লজিস্টিকস ম্যানেজার ও সাবেক ক্রিকেটার সাব্বির খান বলছিলেন, ‘তাপমাত্রা ১১ ডিগ্রি, কিন্তু কাঁপুনিটা ৭-৮ ডিগ্রির মতো। ’

আয়ারল্যান্ডে মাশরাফি বিন মর্তুজাদের জন্য এই ঠাণ্ডাও কম বড় চ্যালেঞ্জের নয়। আর বৃষ্টি নিয়েও আশঙ্কার মেঘ জমে আছে বাংলাদেশ শিবিরে। নিশ্চিতভাবেই তারা আজ স্বাগতিকদের বিপক্ষে পুরো ম্যাচ খেলতে মরিয়া হয়ে আছে। নিউজিল্যান্ড ম্যাচের ভুল-ত্রুটি শুধরে নেওয়ার জন্যই শুধু নয়, এই ম্যাচ জেতা জরুরি অন্য কারণেও। এই টুর্নামেন্টে ফাইনাল নেই। তবে তিন দলের মধ্যে তৃতীয় হওয়ার লজ্জায় যাতে পড়তে না হয়, সেই তাগিদ আছে। আর র্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের ওপরের নিউজিল্যান্ড এবং নিচে থাকা আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে চার ম্যাচের ফলাফলের সঙ্গে র্যাংকিংয়ে পয়েন্ট বাড়া-কমাও সম্পর্কিত। তাই এই ম্যাচটি টাইগারদের জন্য এক অর্থে বাঁচা-মরার ম্যাচও হয়ে উঠেছে।

সেই ম্যাচ খেলতে নামার আগে নিউজিল্যান্ড ম্যাচের ঘাটতিগুলোই পুষিয়ে নেওয়ার লক্ষ্য মাশরাফিদের। কিউইদের বিপক্ষে খেলা ১১ জন অবশ্য কাল অনুশীলন করেননি। তাঁরা জিমে সময় ব্যয় করেছেন। তবে খোলা আকাশের নিচেও অনুশীলন ছিল। তাতে অংশ নিয়েছেন ১৮ জনের স্কোয়াডের সেই সাতজন, যাঁরা নিউজিল্যান্ড ম্যাচ খেলেননি। তবে বৃষ্টির কারণে সেটাও নির্বিঘ্নে হতে পারেনি।

আগের ম্যাচে দলের হারে মুখ তুলে তাকানো ব্যাপারগুলোই আইরিশদের বিপক্ষে সারিয়ে নিতে চান মাশরাফি। পরশু রাতে নিউজিল্যান্ড ম্যাচ খেলার পরই বলেছেন, ‘সব জায়গায় উন্নতি করতে হবে। ফিল্ডিং অবশ্য আজ (পরশু) ভালোই ছিল। কিন্তু ব্যাটিং ও বোলিং ভালো করতে হবে। এই ম্যাচে আমরা ২০ রানের মতো কম করেছি। বোলিংয়েও শুরুতে উইকেট নিতে হবে। ’ অবশ্য যাঁদের ব্যাটে রানের দেখা মিলেছে, তাঁদের কথাও বলতে ভোলেননি বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। সেই সঙ্গে টেনে এনেছেন সেই বোলারদেরও, যাঁরা বোলিং ব্যর্থতার মধ্যেও আলো ছড়িয়েছেন, ‘সৌম্য রান করেছে। মুশফিক এবং মাহমুদ উল্লাহও রান পেয়েছে। টপ অর্ডারে তামিম ও সৌম্য ভালো জুটি গড়েছে। মুস্তাফিজ ভালো করেছে। রুবেলও দারুণভাবে ফিরেছে। ’ কিন্তু এঁদের আলো ছড়ানোও কোনো ফল দিতে পারেনি। কারণ ব্যাটসম্যানদের অনেকে সেট হয়ে আউট হয়েছেন। সৌম্য ও মুশফিক ফিফটি করেও ইনিংস বড় করতে পারেননি। বোলাররা দিতে পারেননি শুরুর সাফল্য। এঁদের মধ্যে ইনিংসের প্রথম তিন বলের মধ্যেই ছক্কা ও বাউন্ডারির মার খাওয়া অধিনায়কও ছিলেন। মাশরাফি নিজের ব্যর্থতাও মেনেছেন, ‘শুরুর দিকে বোলিং আরো ভালো হতে পারত। বিশেষ করে আমার। সাকিব ভালো করেছে। আমি পারিনি। ব্যাটিংয়ে আমাদের ২০ রানের ঘাটতি ছিল। জুটি গড়েছি আমরা কিন্তু বড় করতে পারিনি। ’ এই না পারা ব্যাপারগুলোই আজ আইরিশদের বিপক্ষে পারতে চায় বাংলাদেশ!


মন্তব্য