kalerkantho


সংবাদ সম্মেলনে ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জাকাতের টাকা দেওয়ার তথ্য সত্য নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মে, ২০১৭ ০০:০০



প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জাকাতের টাকা দেওয়ার তথ্য সত্য নয়

এক পরিচালকের বক্তব্যকে অসত্য বললেন ইসলামী ব্যাংক চেয়ারম্যান আরাস্তু খান। তিনি বলেন, পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান আহসানুল আলম ব্যাংকটি সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার মতিঝিলে ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন আরাস্তু খান।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন পর্ষদ সদস্য জয়নাল আবেদিন, মিজানুর রহমান, অধ্যাপক সিরাজুল করিম, অধ্যাপক নাজমুল হাসান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল হামিদ মিঞা। এ ছাড়া ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরাস্তু খানের মতে, গত ১৩ মে অনুষ্ঠিত বোর্ডসভার বরাত দিয়ে ব্যাংকের জাকাত ফান্ড, শিক্ষাবৃত্তি,ইফতারের অর্থ ব্যয়, শীর্ষ নির্বাহীদের বদলি ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধাসংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য গণমাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। সেসব তথ্য আহসানুল আলমই দিয়েছেন। ব্যাংক চেয়ারম্যান বলেন, যেসব সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তা বিভ্রান্তিকর। ওই সংবাদগুলোতে বলা হয়েছে ব্যাংকের জাকাত ফান্ডের ৪৫০ কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদান করা হবে। এমন কোনো সিদ্ধান্ত বোর্ডসভায় গৃহীত হয়নি। এ ছাড়া ব্যাংকের ১৯ কোটি টাকার শিক্ষাবৃত্তিপ্রাপ্ত সুবিধাভোগীদের বিষয়ে খতিয়ে দেখা এবং সিএসআর সুবিধাভোগীদের তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। আসন্ন রমজানে সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ব্যাংকের ১৩ কোটি টাকার ইফতার বিতরণের সিদ্ধান্ত হয়েছে মর্মে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তাও সঠিক নয়। তা ছাড়া ব্যাংকের জনসংযোগ, মার্কেটিং ও সিএসআর বিভাগের প্রধানদের বদলি এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা কমানোর আলোচনাই হয়নি বোর্ডসভায়।

আরাস্তু খান বলেন, আহসানুল আলম বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বলে বেড়াচ্ছেন ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদে একটি বিশেষ গোষ্ঠী ঢোকানোর জন্য আইডিবির শেয়ার বিক্রি করা হচ্ছে। এ ছাড়া জাকাত ফান্ডের সাড়ে চার শ কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ব্যাংকের পরিচালনা থেকে সরে যেতে তাঁকে একটি মহল হুমকি দিচ্ছে। চেয়ারম্যান বলেন, ‘এসব অসত্য বক্তব্য। এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা নেই। আমাদের কেউ হুমকি দেয়নি। আর তাঁর বিষয়ে আমরা এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। পরিচালকরা কিছু শর্ত মেনে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। কিন্তু এই দায়িত্ব ভুলে গিয়ে তিনি বিভ্রান্তি ছড়িয়েছেন যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। ’

ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘ওই পরিচালকের সততা সম্পর্কে আমাদের কোনো প্রশ্ন নেই। কিন্তু ব্যাংক ও পরিচালকদের নিয়ে তিনি যা প্রকাশ্যে বলেছেন তা সঠিক কাজ নয়। ’ তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কয়েকজন পরিচালক দেশের বাইরে রয়েছেন, সে জন্য সংবাদ সম্মেলনে আসতে পারেননি। এমনকি আহসানুল আলমও ভারতে সফরে রয়েছেন বলে তিনি ব্যাংককে জানিয়েছেন। ’


মন্তব্য