kalerkantho


প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে গুরুত্ব পাবে কানেক্টিভিটি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে গুরুত্ব পাবে কানেক্টিভিটি

ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন ভারত সফরে ‘কানেক্টিভিটি’ (যোগাযোগ) বিশেষ গুরুত্ব পাবে। সফরের প্রস্তুতি নিয়ে গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠকের পর ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা সাংবাদিকদের এ কথা জানান। ওই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সফরের বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা হয়।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, শেখ হাসিনার ভারত সফরের প্রস্তুতি বেশ জোরেশোরে চলছে। এরই অংশ হিসেবে তিনি পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। আলোচনায় বিভিন্ন বিষয় সংযোজন-বিয়োজন হচ্ছে। এ সফরের জন্য বেশ কিছু বিষয়ে অগ্রগতি হয়েছে।

হাইকমিশনার বলেন, এ সফরে বিশেষ অগ্রাধিকার হলো ‘কানেক্টিভিটি’। তিনি এ বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চান না। এসব উপযুক্ত সময়েই প্রকাশিত হবে। রেল, সড়ক সংযোগ বৃদ্ধি ও বিদ্যুৎ আনার মতো বিষয়ে আরো অগ্রগতি হতে পারে।

এক প্রশ্নের উত্তরে ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, এ অঞ্চলে ‘বাংলাদেশ-ভুটান-ভারত-নেপাল’ (বিবিআইএন) উদ্যোগ বেশ গুরুত্বপূর্ণ ও সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হয়ে উঠেছে। এটি এ অঞ্চলে যুগান্তকারী ফল আনবে। ’

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৭ থেকে ১০ এপ্রিল ভারতে দ্বিপক্ষীয় সফরে যাবেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে এ সফরে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অতিথি হিসেবে তিনি থাকবেন নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এ সফর দুই দেশের ক্রমবর্ধমান সহযোগিতামূলক সম্পর্কের ক্ষেত্রে মাইলফলক হয়ে থাকবে। ঢাকার কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি স্বাক্ষরের ব্যাপারে এখনো কোনো ইতিবাচক ইঙ্গিত না থাকলেও বাংলাদেশের প্রত্যাশার বিষয়ে ভারত অবগত। শীর্ষ বৈঠকে গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে তিস্তাসহ অভিন্ন নদ-নদীর পানিবণ্টন ও যৌথ ব্যবস্থাপনার মতো বিষয়।


মন্তব্য