kalerkantho


২৮ কম্পানির ওষুধ উৎপাদন বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



২৮ কম্পানির ওষুধ উৎপাদন বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ

মানসম্পন্ন না হওয়ায় ২৮টি কম্পানির অ্যান্টিবায়োটিক, স্টেরয়েড, অ্যান্টিক্যান্সার ও হরমোন সংক্রান্ত ওষুধ উৎপাদন বন্ধে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। নির্দেশ কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে তা জানিয়ে স্বাস্থ্য ও শিল্পসচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ পাঁচজনকে দুই সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। এ কাজে সহায়তা দিতে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ও র্যাবের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল সোমবার এ নির্দেশ দেন। মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) করা রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দেওয়া হয়। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।

আদালত অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেছেন। রুলে ওই ২৮ কম্পানির অ্যান্টিবায়োটিক, স্টেরয়েড, অ্যান্টিক্যান্সার ও হরমোন জাতীয় ওষুধ উৎপাদন ও বিক্রি বন্ধের কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না এবং ওই সব কম্পানির ওষধু উৎপাদন ও বিক্রি বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য ও শিল্পসচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ওষুধ উৎপাদন মালিক সমিতির সভাপতি, আইজিপি ও র্যাবের মহাপরিচালকসহ আট বিবাদীকে দুই সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

যে ২৮ প্রতিষ্ঠানের ওষুধ উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো অ্যামিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, এজটেক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বেঙ্গল টেকনো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বেনহাম ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ডিসেন্ট ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ড. টিমস ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, গ্লোবেক্স ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, গ্রীনল্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইনোভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ম্যাক্স ড্রাগস ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেডিমেট ল্যাবরেটরিজ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মডার্ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মিসটিক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ন্যাশনাল ল্যাবরেটরিজ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, অর্গানিক হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ওয়েস্টার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, প্রিমিয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, প্রাইম ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, সীমা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, হোয়াইট হর্স ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মমতাজ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইউনিক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইউনাইটেড কেমিক্যালস অ্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, এফএনএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, টেকনো ড্রাগস লিমিটেড ইউনিট-১, ২ ও ৩।

এর আগে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি এক রায়ে হাইকোর্ট ২০টি কম্পানির সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন এবং ১৪টি কম্পানির অ্যান্টিবায়োটিক (পেনিসিলিন, নন-পেনিসিলিন ও সেফালোস্পোরিন গ্রুপ) উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিলেন।

 


মন্তব্য