kalerkantho


পহেলা বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রা হবে সারা দেশে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পহেলা বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রা হবে সারা দেশে

বাংলা নববর্ষের সূচনার দিন পহেলা বৈশাখে কেবল ঢাকা নয়, সারা দেশে সরকারিভাবে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

গতকাল সোমবার শিল্পকলা একাডেমির সেমিনার কক্ষে পহেলা বৈশাখ উদ্যাপনের জন্য আন্ত মন্ত্রণালয় বৈঠকের শুরুতে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, এত দিন শুধু ঢাকায় পহেলা বৈশাখে উৎসবমুখর পরিবেশে মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হতো। এখন থেকে সারা দেশের জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়েও উদ্যাপিত হবে বাংলা নববর্ষ, অন্যান্য আয়োজনের সঙ্গে থাকবে মঙ্গল শোভাযাত্রাও।

সংস্কৃতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং শিল্পকলা একাডেমির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের আবেদনে গত বছরের ৩০ নভেম্বর জাতিসংঘের সংস্থা ইউনেসকো বাংলাদেশের মঙ্গল শোভাযাত্রাকে তাদের ‘ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ অব হিউম্যানিটি’ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে।

চারুপীঠ নামের একটি সংগঠন ১৯৮৫ সালে যশোরে প্রথমবারের মতো নববর্ষের উৎসবে পাপেট ও মুখোশ নিয়ে বাদ্য বাজিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করে। এরপর ১৯৮৯ সাল থেকে ঢাকা চারুকলার শিক্ষার্থীরা পহেলা বৈশাখের সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করে আসছে। এই শোভাযাত্রা এখন কেবল বর্ষবরণ উৎসবের অনুষঙ্গই নয়, এর মধ্য দিয়ে বাঙালি সংস্কৃতিকে মেলে ধরার পাশাপাশি সমাজে অবক্ষয় থেকে মুক্তি, পেছনের দিকে হাঁটা প্রতিরোধের আহ্বানও জানানো হয়।

ইউনেসকো বলেছে, এই মঙ্গল শোভাযাত্রা বাংলাদেশের মানুষের সাহস আর অশুভের বিরুদ্ধে গর্বিত লড়াই এবং ন্যায় ও সত্য প্রতিষ্ঠার আকাঙ্ক্ষার প্রতীকী রূপ।

বৈঠকে আসাদুজ্জামান নূর বলেন, গোটা বাংলাদেশে মঙ্গল শোভাযাত্রা উদ্যাপনের মাধ্যমে আমরা পৃথিবীর কাছে এক নতুন পরিচয় তুলে ধরব।

আমরা প্রমাণ করতে চাই, এ দেশ সংস্কৃতির দেশ, আবহমান কালের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের দেশ। উগ্র মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদকে বাঙালি যে প্রত্যাখ্যান করেছে, অসাম্প্রদায়িক মঙ্গল শোভাযাত্রা সারা দেশে উদ্যাপনের মাধ্যমে তা আমরা সারা বিশ্বকে জানিয়ে দিতে চাই।

বৈঠকে জানানো হয়, রমনা বটমূলে ছায়ানটের পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান ও চারুকলা অনুষদের মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠানের মধ্যের বিরতি এবার দীর্ঘায়িত হবে, যাতে এ অনুষ্ঠানের শ্রোতারাও মঙ্গল শোভাযাত্রায় যোগ দিতে পারে।

সারা দেশে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান ও মঙ্গল শোভাযাত্রায় দুই থেকে তিন স্তরবিশিষ্ট নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


মন্তব্য