kalerkantho


কালের কণ্ঠকে পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছায় বিভাগের নাম হচ্ছে ময়নামতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছায় বিভাগের নাম হচ্ছে ময়নামতি

প্রস্তাবিত কুমিল্লা বিভাগের নাম হবে ময়নামতি, গত মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এমন কথা জানান। এর পর থেকেই আন্দোলনে নেমেছে জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

কুমিল্লা সদরের সংসদ সদস্য, জেলা পরিষদের প্রশাসক, জেলা আওয়ামী লীগের নেতারাও মাঠে নেমেছেন সরকারের এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। এরই মধ্যে জেলার বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা হয়েছে। সবার দাবি, কুমিল্লার নামেই বিভাগ ঘোষণা করতে হবে। অন্য কোনো নামে বিভাগ করলে তারা সেই সিদ্ধান্ত মানবে না। দাবি আদায় না হলে ভবিষ্যতে আরো বড় কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে কুমিল্লার সাধারণ মানুষ। আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির ডাক দেওয়া হয়েছে সচেতন কুমিল্লাবাসীর পক্ষ থেকে।

প্রস্তাবিত কুমিল্লা বিভাগের নাম ময়নামতি এবং জেলার সাধারণ মানুষের আন্দোলন প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল কালের কণ্ঠকে বলেন, কুমিল্লা বিভাগের নাম ময়নামতি করার ইচ্ছা একান্তই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। তিনিই চেয়েছেন, কুমিল্লা বিভাগ হলে তার নাম হবে ময়নামতি। এখানে অন্য কারো কোনো মতামত নেই।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, কুমিল্লার নামে বিভাগ হলে পাশের জেলা নোয়াখালী, ফেনী, চাঁদপুর ও লক্ষ্মীপুর থেকেও একই দাবি আসবে। তাদের জেলাকে  বিভাগ বানাতে হবে। তা ছাড়া অন্য  কোনো জেলাকে বিভাগ ঘোষণা করতে গেলেও পাশের জেলা থেকে দাবি আসতে শুরু হবে। ভবিষ্যতে বিভাগ ঘোষণা করতে গিয়ে যাতে কোনো ধরনের জটিলতা তৈরি না হয়, সে জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আন্দোলন প্রসঙ্গে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘তাদেরকে বুঝতে হবে যে নাম কোনো বিষয় নয়। প্রশাসনিক সব কর্মকাণ্ড হয়ে থাকে কুমিল্লা মহানগরে। বিভাগ হলে মহানগর থেকেই সব কর্মকাণ্ড বাস্তবায়িত হবে, অন্য কোথাও থেকে নয়। এখানে শুধু নামটাই পরিবর্তন হচ্ছে। আর বাকি সব ঠিক থাকবে। ময়নামতি ঐতিহাসিক নাম, ফলে এই নামে বিভাগ ঘোষণার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। ’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে যদি গোপালগঞ্জকে বিভাগ ঘোষণার উদ্যোগ নেওয়া হয়, সেটির নাম গোপালগঞ্জ করা হবে না। বিভাগের নাম হবে ‘মধুমতি’। এটাও প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছা। তিনিই এই নাম দিয়েছেন। ভবিষ্যতে যত বিভাগ ঘোষণা দেওয়া হবে, তা ওই জেলার নামে হবে না। হবে অন্য কোনো নামে। আর এটা করা হচ্ছে পাশের জেলাগুলোর মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে। এটা প্রধামন্ত্রীর মনোভাব। কবে নাগাদ কুমিল্লা বিভাগের নাম ময়নামতি ঘোষণা আসবে এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আগে এই উদ্যোগ খুব একটা এগোয়নি। তবে আবার গতি এসেছে। শিগগিরই বিভাগ ঘোষণা আসতে পারে।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম বিভাগ ভেঙে কুমিল্লা ও নোয়াখালী নিয়ে আলাদা একটি বিভাগ করা যায় কি না তা যাচাই-বাছাই করতে ২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিসভার বৈঠকে নির্দেশ দেন। সে আলোকে এখন কাজ চলছে। সর্বশেষ ২০১৫ সালে ময়মনসিংহকে অষ্টম বিভাগ ঘোষণা করা হয়। কুমিল্লাকে বিভাগ ঘোষণা করা হলে বিভাগ হবে ৯টি।

এদিকে কুমিল্লার নামে বিভাগ ঘোষণার দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবারও জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। জেলার চিকিৎসক, প্রকৌশলী, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ মানববন্ধনে অংশ নেয়। তাদের একটাই দাবি, কুমিল্লার নামেই বিভাগ করতে হবে। কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মফিজুর রহমান বাবলু, জেলা পরিষদের প্রশাসক ওমর ফারুকসহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা সরকারের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তাঁদের মতে, বিভাগ করতে হবে কুমিল্লার নামে।   


মন্তব্য