kalerkantho


দুই দিন পর নিখোঁজ দুই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দুই দিন পর নিখোঁজ দুই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নামোশংকরবাটি এলাকার ফতেপুর গ্রাম থেকে নিখোঁজ হওয়ার দুই দিন পর দুই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই গ্রামেরই এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে।

সুমাইয়া খাতুন মেঘলা ও মেহজাবিন আক্তার মালিহা নামের এই দুই স্কুলছাত্রী গত রবিবার দুপুর থেকে নিখোঁজ ছিল। মেঘলা ওই গ্রামের মিলন রানার মেয়ে। সে স্থানীয় কিন্ডারগার্টেন ছোটমণি বিদ্যানিকেতনের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মালিহা একই গ্রামের আব্দুল মালেকের মেয়ে। সে ছিল ওই স্কুলের নার্সারি শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডের কারণ তাত্ক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি। তবে স্থানীয় লোকজন ধারণা করছে যে শিশুদের গায়ে সোনার গয়না ছিল। সেই গয়না নেওয়ার উদ্দেশ্যেই তাদের হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, রবিবার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে আসে মেঘলা ও মালিহা। এরপর তারা বাড়ির বাইরে খেলতে যায়। তখন থেকে তারা নিখোঁজ ছিল। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাদের পাওয়া না যাওয়ায় ওই দিন বিকেলেই পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। পুলিশ ওই দিন রাতেই সন্দেহভাজন হিসেবে ফতেপুরের পাশের তেলিপাড়া ঘোষপাড়া গ্রামের বাবু শম্ভুর মেয়ে গীতা রাণীকে (১৮) আটক করে।

দুই শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে সন্দেহ করা হয় যে গীতা পাচারের উদ্দেশ্যে তাদের সন্তানকে অপহরণ করেছে। তবে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে তার কাছ থেকে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য পায়নি। গতকাল দুপুরে গীতাকে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ রিমান্ডের আবেদন জানায়। বিচারক তাকে কারাগারে পাঠান।

গীতাকে আটক প্রসঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, এই তরুণীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার বক্তব্যে অসংলগ্নতা পাওয়া যায়। তবে তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ অভিযান চালিয়েও শিশুদের খোঁজ পায়নি।

এ অবস্থায় স্থানীয় লোকজন গতকাল শিশুদের উদ্ধারে ফতেপুর গ্রামের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি করার উদ্যোগ নেয়। তল্লাশির একপর্যায়ে গ্রামের ভ্যানচালক ইয়াসিন আলীর (৭০) ঘরের খাটের নিচে বস্তাবন্দি অবস্থায় দুই শিশুর লাশ পাওয়া যায়।


মন্তব্য