kalerkantho


উপজেলা নির্বাচনে ইসির ভূমিকা দেখবে বিএনপি

১৮টিতে নির্বাচন ৬ মার্চ, বিএনপির প্রার্থী ১০টিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



উপজেলা নির্বাচনে ইসির ভূমিকা দেখবে বিএনপি

নতুন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অধীনে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা জানালেও রাজনৈতিকভাবে এ নির্বাচনকে খুব একটা গুরুত্ব দিচ্ছে না বিএনপি। তবে নির্বাচনী পরিবেশের দিকে নজর রাখতে চায় দলটি। আগামী ৬ মার্চ যে ১৮টি উপজেলায় নির্বাচন হতে যাচ্ছে তার ১০টিতে প্রার্থী দিয়েছে বিএনপি। দলের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা জানিয়েছেন, গুরুত্ব যা-ই হোক না কেন, এই নির্বাচন পরিচালনায় নতুন ইসির ভূমিকা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে বিএনপির পক্ষ থেকে।

জানা গেছে, যাঁরাই দলের মনোনয়ন চেয়েছেন তাঁদেরই দেওয়া হয়েছে। আর যেসব উপজেলায় নেতারা আগ্রহ দেখাননি সেখানে কোনো প্রার্থীও দেওয়া হয়নি। ১০টি উপজেলায় বিএনপির যাঁরা প্রার্থী হয়েছেন তাঁদের পক্ষে কেন্দ্রীয় নেতারা প্রচারে নামবেন কি না সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানা যাবে ১৭ ফেব্রুয়ারির পর। তবে একটি সূত্র মতে, শীর্ষস্থানীয় কেন্দ্রীয় নেতারা এই নির্বাচনে প্রচারে নামবেন না।

 বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এবং স্থানীয় পর্যায়ে অবস্থানরত কেন্দ্রীয় নেতারা প্রচারে নামতে পারেন।

জানতে চাইলে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা প্রায় প্রতিটি উপজেলায়ই প্রার্থী দিয়েছি। এ নির্বাচন নতুন ইসির জন্য ছোটখাটো এসিড টেস্ট।

যার কোনো যোগ্যতা নেই, সেই তিনি (নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার) কী ধরনের নির্বাচন করেন তার ওপর নজর থাকবে আমাদের। ’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গত সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলেছি, নতুন নির্বাচন কমিশনের প্রধান কর্মকর্তা, তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার হওয়ার মতো যোগ্য ব্যক্তি নন। এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় নির্বাচনে যাব কি যাব না, সেটা অনেক পরের ব্যাপার। তবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন—এটা চলমান প্রক্রিয়া, আমরা তা করছি এবং তা করব। ’

জানা গেছে, মামলা, মৃত্যুসহ নানা কারণে বিভিন্ন পদে নির্বাচন না হওয়ায় আগামী ৬ মার্চ ১৮টি উপজেলায় ভোট হবে দলীয় প্রতীকে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিল করার সময় শেষ হয়েছে ৯ ফেব্রুয়ারি, যাচাই-বাছাই হয়েছে ১০ ফেব্রুয়ারি। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করার শেষ দিন ১৭ ফেব্রুয়ারি।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় এবং দলীয় চেয়ারপারসনের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মঈনুল হক চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে গউস মিয়া এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মুসলিমা আক্তারকে মনোনয়ন দিয়েছি দলটি। খাগড়াছড়ির গুইমাই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মো. ইউসুফ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পুন্নকান্তি ত্রিপুরা এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মাওবিন মারমা বিএনপির মনোনীত প্রার্থী। বিএনপি মনোনীত অন্য প্রার্থীদের মধ্যে আছেন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় আতাউর রহমান, ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলায় সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলায় জহিরুল ইসলাম, বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় এস এম মঞ্জুর হোসেন মিলন, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালি উপজেলায় মো. জাহাঙ্গীর হোসেন আকন্দ, কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলায় মো. রেজাউল কাইয়ুম।

দলটির একাধিক নেতা জানান, ১০ উপজেলার বাইরে কোথাও কোথাও বিএনপির কোনো নেতাই প্রার্থী হতে আগ্রহ দেখাননি। আবার কোথাও জোটের শরিক অন্য দলকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য