kalerkantho


ইসি গঠন

দলগুলোর প্রস্তাবই প্রাধান্য পাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দলগুলোর প্রস্তাবই প্রাধান্য পাবে

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য রাজনৈতিক দলগুলো যে নামগুলো প্রস্তাব করেছে তার মধ্য থেকেই বেশির ভাগ নামের সুপারিশ করবে সার্চ কমিটি। কমিটির একজন সদস্য গত রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা প্রক্রিয়াটিকে বেশি জটিল করব না। রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে আসা প্রস্তাবগুলো থেকেই আমরা বেশি নাম রাখার চেষ্টা করব। প্রতিটি পদে দুজন করে মোট ১০ জনের তালিকা করতে হবে। ’

নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগের লক্ষ্যে গঠিত সার্চ কমিটির গত বৃহস্পতিবারের বৈঠকে ২০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকার তথ্যই পর্যালোচনা করা হয়। কমিটি আগামী সোমবার বিকেল ৫টায় আবারও এ নিয়ে বৈঠকে বসবে। সেখানেই রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশের জন্য ১০ জনের নাম চূড়ান্ত হতে পারে।   গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নিজস্ব অনুসন্ধান থেকে আর কারো নাম এ তালিকায় সংযোজন বা বিয়োজন হয়নি।

সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি বৃহস্পতিবার বৈঠক করে। পরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও বিধি) আব্দুল ওয়াদুদ সাংবাদিকদের বলেন, ২০ জনের বাইরে নতুন কোনো নাম সার্চ কমিটি সংযুক্ত করেনি। তবে কমিটি চাইলে নিজেরা নাম সংযোজন করতে পারে।

বিশিষ্টজনদের পরামর্শের একটি সারসংক্ষেপ গণমাধ্যমকেও দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সার্চ কমিটির প্রস্তাবিত নাম গণমাধ্যমে প্রকাশ করা ঠিক হবে না বলে অভিমত জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ইসি পুনর্গঠন নিয়ে গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে বঙ্গভবনে পর্যায়ক্রমে মোট ৩১টি রাজনৈতিক দলের সংলাপ হয়। সংলাপে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পৃথক দিনে অংশ নেয়। সংলাপ শেষে রাষ্ট্রপতি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে আপিল বিভাগের একজন বিচারপতির নেতৃত্বে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি করে দেন। আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত কমিটিতে আরো রয়েছেন হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) মাসুদ আহমেদ, সরকারি কর্মকমিশনের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য শিরীণ আখতার। সার্চ কমিটিকে ১০ কার্যদিবস বা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাদের সুপারিশ রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠাতে হবে।


মন্তব্য