kalerkantho


চলে গেলেন থাই রাজা ভূমিবল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চলে গেলেন থাই রাজা ভূমিবল

বিশ্বে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে সিংহাসনে থাকা থাইল্যান্ডের রাজা ভূমিবল আদুলিয়াদেজ আর নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজপ্রাসাদ থেকে তাঁর মৃত্যুর খবর ঘোষণা করা হয়েছে।

তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। ভূমিবলের উত্তরসূরি ৬৩ বছর বয়সী ক্রাউন প্রিন্স ভাজিরালংকর্ন থাইল্যান্ডের পরবর্তী রাজা হওয়ার বিবেচনায় রয়েছেন।

৭০ বছর ধরে রাজার দায়িত্ব পালন করে আসা ভূমিবল থাইল্যান্ডে অত্যন্ত শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন। থাই জনগণ তাঁকে দেবতুল্য ও ‘জাতীয় ঐক্যের প্রতীক’ মনে করে। থাইল্যান্ডের চলমান রাজনৈতিক সংকট সমাধানে তিনি অন্যতম প্রধান ভূমিকা পালনকারী হিসেবেও বিবেচিত হয়েছিলেন।

ভূমিবল বেশ কিছুদিন ধরেই স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছিলেন। কয়েক মাস ধরে তাঁকে জনসমক্ষে দেখা যায়নি। গেল বছরের বেশি ভাগ সময় তিনি হাসপাতালেই কাটিয়েছেন। রাজপরিবার থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ব্যাংককের সিরিরাজ হাসপাতালে স্থানীয় সময় বিকেল ৩টা ৫২ মিনিটে রাজার মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে রবিবার মধ্যরাতে এক বিবৃতিতে রাজপ্রাসাদ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, রাজা ভূমিবল আদুলিয়াদেজের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল নয়।

কিডনি জটিলতায় ভুগতে থাকা রাজা ভূমিবল আদুলিয়াদেজের হেমোডায়ালাইসিস করার সময় তাঁর রক্তচাপ কমে যায়। পরে কৃত্রিম শ্বাসযন্ত্রের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাস চালিয়ে তাঁর রক্তচাপ স্বাভাবিক করার পর তাঁকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল।

ব্যাংককের যে হাসপাতালটিতে ভূমিবলের চিকিৎসা চলছিল, সেখানে কয়েক দিন ধরেই ভিড় জমায় শত শত মানুষ। তাঁর আরোগ্য কামনায় গোলাপি পোশাক পরে সেখানে জড়ো হয়ে প্রার্থনা করছিল বহু থাই নাগরিক। গতকাল তাঁর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর পরই তাদের শোকে মাতম করতে দেখা যায়। তাঁর মৃত্যুতে তাৎক্ষণিকভাবে থাই পার্লামেন্টে বিশেষ শোকসভার আয়োজন করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলাদা বার্তায় রাজা ভূমিবলের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন।

১৯৪৬ সালে ভাইয়ের মৃত্যুর পর মাত্র ১৮ বছর বয়সে রাজা ভূমিবল থাইল্যান্ডের সিংহাসনে আরোহণ করেন। চলতি বছরের জুন মাসে তাঁর সিংহাসনের আরোহণের ৭০তম বার্ষিকী পালন করা হয়। আশঙ্কা রয়েছে, তাঁর মৃত্যুতে থাইল্যান্ডে নতুন রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরি হতে পারে। ভূমিবলের পুত্র রাজকুমার ভাজিরালংকর্ন পরবর্তী রাজা হওয়ার বিবেচনায় রয়েছেন। তবে তিনি তাঁর বাবার মতো অতটা জনপ্রিয় নন। অবশ্য রাজ উত্তরসূরি নিয়ে খোলামেলা আলোচনাকে থাইল্যান্ডে কঠোর অপরাধ বলে বিবেচনা করা হয় এবং এর জন্য দীর্ঘ সাজা প্রদান করা হয়ে থাকে। ২০১৪ সালে অভ্যুত্থানের পর থাইল্যান্ডে এ মুহূর্তে সামরিক সরকার ক্ষমতায় রয়েছে। সূত্র : বিবিসি, এএফপি, রয়টার্স।


মন্তব্য