kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এবার ফরিদপুরে কলেজ ছাত্রীকে ছুরি মারার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



এবার ফরিদপুরে কলেজ ছাত্রীকে ছুরি মারার চেষ্টা

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সিলেটের কলেজ ছাত্রী খাদিজাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় সারা দেশ যখন প্রতিবাদমুখর, এরই মধ্যে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এক কলেজ ছাত্রীকে ছুরি মারার চেষ্টা চালিয়েছে একই কলেজের দুই ছাত্র। পরে আটক ওই দুই ছাত্রকে এক বছর করে বিনা শ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

তাদের কলেজ থেকেও সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ভাঙ্গায় সরকারি কেএম কলেজ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

দণ্ডিতরা হলো কলেজের একাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী ও ভাঙ্গা পৌরসভার ভারইডাঙ্গা গ্রামের আওয়াল মিয়ার ছেলে সবুজ মাতুব্বর (২০) এবং তার বন্ধু দ্বাদশ শ্রেণির ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ছাত্র ও ভাঙ্গা উপজেলার আলগী ইউনিয়নের সুয়াদী গ্রামের জাহাঙ্গীর মোল্লার ছেলে সুজন মোল্লা (২০)।

কলেজের একাধিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে একাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল সবুজ মাতুব্বর। তাকে সহযোগিতা করছিল তার বন্ধু সুজন। কিন্তু প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ক্যাম্পাসের ভেতর সবুজ ও সুজন ছুরি দিয়ে ওই ছাত্রীকে কোপানোর চেষ্টা চালায় এবং তার মুখের হিজাব টেনে ছিঁড়ে ফেলে। এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার করতে করতে দৌড় দিলে অন্য শিক্ষার্থীরা ও শিক্ষকরা ছুটে গিয়ে চাকুসহ সবুজ ও সুজনকে আটক করে অধ্যক্ষের কক্ষে আটকে রাখে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ছুটে আসে ক্যাম্পাসে।

ভাঙ্গা থানার ওসি মিজানুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে ওই দুই ছাত্রের কাছ থেকে অত্যাধুনিক ছুরি ও মোবাইল ফোন জব্দ করেছে। পরে ক্যাম্পাসে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে দুই ছাত্রকেই এক বছর করে কারাদণ্ড দিয়ে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন ভাঙ্গার সহকারী কমিশনার (ভূমি) পূরবী গোলদার। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, উত্ত্যক্ত করা এবং ছুরি দিয়ে ভয় দেখানোর দায়ে দণ্ডবিধির ৫০৯ ধারায় ওই দুই ছাত্রকে এক বছর করে বিনা শ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

কলেজের অধ্যক্ষ মোশায়েদ হোসেন ঢালী কালের কণ্ঠকে বলেন, অভিযুক্ত দুই ছাত্রকে তাৎক্ষণিকভাবে কলেজ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। আর ওই ছাত্রীকে নিরাপদে তার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য