kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাংলাদেশ-ভারত ফাইনাল আজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশ-ভারত ফাইনাল আজ

সেমিফাইনালে চায়নিজ তাইপেকে ৬-১ গোলে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৮ এশিয়া কাপ হকির ফাইনালে বাংলাদেশ। আজ বিকেল ৩টায় ভারতের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ। ছবি : হকি ফেডারেশনের সৌজন্যে

প্রথমার্ধের অচেনা বাংলাদেশ ছন্দে ফেরে দ্বিতীয়ার্ধে। তারপর গোলে গোলে ‘শোরগোল’ তুলে বাংলাদেশ ৬-১ গোলে চাইনিজ তাইপেকে হারিয়ে পৌঁছে গেছে অনূর্ধ্ব-১৮ এশিয়া কাপ হকির ফাইনালে।

আরেক সেমিফাইনালে পাকিস্তানকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপার মঞ্চে ভারতও। তবে আজকের এই ফাইনালে বাংলাদেশকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে টুর্নামেন্টের  প্রথম ম্যাচ। ওই ম্যাচে ট্যাকটিক্যালি এগিয়ে থাকা ভারতকে হারিয়েছিল স্বাগতিকরা। সে আত্মবিশ্বাস নিয়েই বাংলাদেশের রোমান-আশরাফুলরা বিকেল ৩টায় শুরু করবে শিরোপার লড়াই।

এ টুর্নামেন্টেই বাংলাদেশের প্রথমবার ফাইনাল খেলা কি না, সে নিয়ে তর্ক আছে। তবে যেভাবে ফাইনালে উঠেছে তাতে স্বপ্ন দেখার জায়গা আছে। সেমিফাইনালের ম্যাচ সেরা বাংলাদেশের নাইম উদ্দিনের প্রতিশ্রুতি, ‘ভারত ট্যাকটিক্যালি ভালো দল। কিন্তু আমরাও খারাপ খেলছি না। তাদের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে আমরা কৌশলে খেলেই জিতেছি। দেশের মাঠে শিরোপা জেতার জন্য সবাই শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। ’ সেই প্রথম ম্যাচে ভারত-বধের বড় একটা অংশজুড়েই ছিল আশরাফুল ইসলামের পেনাল্টি কর্নার। কালও এই স্পেশালিস্ট করেছেন তিন গোল। তবে আগের মতো যেন উজ্জ্বল নন, ৭টা পেনাল্টি কর্নারে তাঁর চার-চারটি হিটই ঠেকিয়ে দিয়েছেন তাইপের গোলরক্ষক। তাহলে কি আশরাফুলকে বুঝে ফেলেছে প্রতিপক্ষ? ‘না, সেরকম কিছু নয়। গোলকিপার ঠেকায়নি, হিটগুলো গোলকিপার সোজা গেছে’, বলেছেন বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ কাওসার আলী।

কাল মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে চাইনিজ তাইপের বিপক্ষে ৩ মিনিটে স্বাগতিকদের গোল উৎসবের শুরু এই আশরাফুল হকের পেনাল্টি কর্নার গোলেই। শুরুতেই গোল আরো গোলের বান ডাকবে, দর্শক-সমর্থকদের এমন প্রত্যাশায় জল ঢেলে তাইপে হয়ে গেছে পুরো ডিফেন্সমুখো। সেই প্রাচীর তো আর ভাঙা যায় না। অবশেষে ভাঙে ২৮ মিনিটে রোমান সরকারের বানিয়ে দেওয়া বলে রাজু আহমেদের রিভার্স হিটে। এই ২-০ গোলের লিড নিয়েই স্বাগতিকরা বিরতিতে যায়।

বিরতির পর চ্যাং হো ইয়ংয়ের গোলে ব্যবধান কমে ২-১ হলে দুশ্চিন্তার ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। তখন আবার স্বাগতিকরা ফেরে রুদ্র রূপে। ৪৮তম মিনিট থেকে শুরু, ১৭ মিনিটে চার গোল করে তাইপেকে ধসিয়ে দিয়ে ফাইনালের মঞ্চ প্রস্তুত করে ফেলে স্বাগতিকরা। ৪৮ মিনিটে আশরাফুলের পেনাল্টি কর্নার গোলের পর ৫২ মিনিটে আবার পেনাল্টি স্ট্রোক থেকে করেছেন নিজের তৃতীয় গোল। সুবাদে তিন ম্যাচে তাঁর গোল সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০! এরপর সজীব ও ফজলে রাব্বি করেছেন একটি করে গোল। ৬-১ গোলে সেমিফাইনাল জেতার পর বাংলাদেশ কোচ কাওসার আলীর কাটাছেঁড়ায় প্রথমার্ধের ভুল ধরা পড়েছে, ‘প্রথমার্ধে তারা খেলাটা গুলিয়ে ফেলেছে। আমাদের খেলোয়াড়রা গোলের জন্য অতিমাত্রায় চাপ দিতে গিয়ে ওদের সবাইকে ডিফেন্সে ঠেলে দিয়েছে। তাতে করে আমাদের ফিল্ড গোলের সুযোগগুলো নষ্ট হয়েছে। তাইপে ওভারহেড খেলে সময়ও নষ্ট করেছে। ’

সেমিফাইনাল শেষ হতে না হতেই ফাইনালের ভাবনা হাজির। প্রতিপক্ষ আবার সেই ভারত, একটু অনুপ্রাণিত কী? কাওসার আলী যেন একটু দ্বিধায়, ‘প্রথম ম্যাচে তাদের হারিয়েছে, সেই বিশ্বাসটা খেলোয়াড়দের মধ্যে কাজ করবে। তবে ভারত টেকনিক্যালি ভালো দল, প্রত্যেকটা ম্যাচে তারা উন্নতি করেছে। পাকিস্তানের বিপক্ষে সেরা দল হিসেবেই জিতেছে তারা। আরেকটি ভালো ম্যাচ চাই আমার ছেলেদের কাছ থেকে, যেখানে সবাই মনোযোগী হয়ে ট্যাকটিস মেনে খেলে যাবে শেষ পর্যন্ত। ’ আজ সেই সর্বস্ব দিয়ে লড়াইয়ের ম্যাচ। ভারতকে আরেকবার হারালেই দেশের হকি জাগরণের একটা উপলক্ষ তৈরি হবে।


মন্তব্য