kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কুষ্টিয়ায় আ. লীগে সংঘর্ষ গুলি নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কুষ্টিয়ায় আ. লীগে সংঘর্ষ গুলি নিহত ২

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরো অন্তত ২০ জন।

তাদের মধ্যে আটজন গুলিবিদ্ধ। গতকাল শনিবার সকালে ঝাউদিয়া ইউনিয়নের মাছপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কেরামত আলী ও দলের ঝাউদিয়া ইউনিয়ন শাখার সভাপতি বখতিয়ার হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর গ্রাম্য দলাদলি ও আধিপত্য নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। কেরামত ওই ইউনিয়নের বর্তমান এবং বখতিয়ার সাবেক চেয়ারম্যান।

নিহত দুজন হলেন মাছপাড়া গ্রামের ইমান আলী (৩৫) ও বৈদ্যনাথপুর গ্রামের শাহাবুদ্দিন (৪০)।   গুলিবিদ্ধ আটজনকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা ছররা গুলিতে আহত হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে, নির্বাচনের পর থেকে কেরামতের সমর্থকদের সঙ্গে বখতিয়ার হোসেনের সমর্থকদের বিরোধ চলে আসছে। দুই পক্ষের মধ্যে প্রায়ই হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনা ঘটছে। গত এক সপ্তাহে আরো দুবার দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এর মধ্যে সোমবার রাত ১টার দিকে ইউনিয়নের আলীনগরসহ কয়েকটি গ্রামে হামলা হয়। এ সময় শতাধিক বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, গতকাল সকাল ৬টার দিকে কাশিনাথপুর, বৈদ্যনাথপুর ও ঝাউদিয়া গ্রামের কেরামত আলীর সমর্থকরা জোট বেঁধে মাছপাড়া গ্রামে হামলা চালায়। বখতিয়ার হোসেনের সমর্থকরা বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

পুলিশ জানায়, কেরামত ও বখতিয়ারের সমর্থক সাবেক দুই ইউপি সদস্য যথাক্রমে সুজা ও মজিদের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। দুই পক্ষই আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে একে অন্যের ওপর হামলা চালায়।

প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে এই সংঘর্ষে কেরামতের পক্ষের ইমাম আলী দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে ঘটনাস্থলে নিহত হন। একইভাবে আহত শাহাবুদ্দিনকে হাসপাতালে নেওয়ার পর তাঁর মৃত্যু হয়।

সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষই ২০-২৫টি বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলা হয়নি বলে সদর থানা পুলিশ জানিয়েছে।

কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার প্রলয় চিসিম সংঘর্ষে দুজন নিহত হওয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দুজন নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ।


মন্তব্য