kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তনু হত্যাকাণ্ড

ছয় মাসেও খুনি শনাক্ত হয়নি

ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চলছে : তনুর বাবা
► বিচার দাবিতে বাউলদের পদযাত্রা সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ছয় মাসেও খুনি শনাক্ত হয়নি

কুমিল্লার কলেজ ছাত্রী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনুকে কে বা কারা হত্যা করেছে, তা গত ছয় মাসেও শনাক্ত করতে পারেনি মামলার তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি। এই হত্যার বিচার আদৌ হবে কি না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে তাঁর পরিবার।

অবিলম্বে তনুর খুনিদের শনাক্ত এবং গ্রেপ্তার করে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার কুমিল্লার কান্দিরপাড় পূবালী চত্বরে বাউল পদযাত্রা ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে অচীন পাখি বাউল গোষ্ঠী ও গণজাগরণ মঞ্চ, কুমিল্লা।

গতকাল তনু হত্যার ছয় মাস পূর্ণ হয়েছে। এই দীর্ঘ সময়েও খুনি শনাক্ত না হওয়া বা গ্রেপ্তার না হওয়ায় তনুর বাবা ইয়ার হোসেন অভিযোগ করেছেন, তনু হত্যাকাণ্ড ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চলছে। কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের অফিস সহকারী ইয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আশা একটাই, যদি আল্লাহ বিচার করে। সবই দেখতেছে। কী আর বলব? গরিবের তো কোনো বিচার নাই। ’

জানা গেছে, তনুর লাশ উদ্ধারের পর তাঁর পোশাক থেকে ধর্ষণের আলামতসহ তিন ব্যক্তির যে ডিএনএ নমুনা পাওয়া যায়, তাও সন্দেহভাজন কারো সঙ্গে মেলানোর কার্যক্রম এখনো শুরু করতে পারেনি সিআইডি।

গতকাল প্রতিবাদ সমাবেশে তনুর মা আনোয়ারা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমি তো আমার মেয়েকে পাব না। আমি তনু হত্যার সত্যিকার বিচার চাই। ছয় মাস হয়ে গেল, এখনো বিচার হচ্ছে না। বিচারটা যদি হতো কিছুটা সান্ত্বনা পাইতাম। ’ তিনি বলেন, ‘মেয়ের চিন্তায় আমার স্বামী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ঈদের দিন মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে সে হাঁটতে পারে নাই। জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে তাকে ধরাধরি করে বাসায় নিয়ে আসা হয়। দেশবাসীর কাছে, মিডিয়ার কাছে, সরকারের কাছে আমার প্রার্থনা—তনু হত্যার বিচার করা হোক। ’

আনোয়ারা বেগম বলেন, ‘আমার সামনে পথ নাই। শান্তি আসে না, বিচারের অপেক্ষায় আছি। কেউ আমাদের সাহস দেয় না। খালি বলে, আপনি বাসায় বসে থাকেন। আমি যে এত কষ্ট করে সন্তানদের মানুষ করতে চেয়েছি এর কোনো মূল্য নাই। আমি ঘর থেকে বেরোতে পারি না। কারো সাথে কথা বলতে পারি না। আমাকে বলে আইনের আশ্রয়ে আসুন। আমি তো আইনের সাহায্য চাইছি। আমি তো পালাইতেছি না। এর পরেও আমাকে ধমকায়। আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় আছে। আমি সরকারের কাছে আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই। ’

তনুর ভাই আনোয়ার বলেন, ‘আমার বোনের হত্যার ছয় মাস হয়ে গেল, এখনো বিচার হচ্ছে না। আমরা কি তনু হত্যার বিচার পাব না?’ তিনি বলেন, ‘আমরা এখন নিরাপত্তাহীনতায় আছি। মাঝে মাঝে আমাদের জীবননাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। ’

প্রতিবাদী সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন গণজাগরণ মঞ্চ কুমিল্লার অন্যতম সংগঠক খায়রুল আনাম রায়হান ও অচীন পাখি বাউল গোষ্ঠীর সংগঠক বাবুল বাউল। তাঁরা বলেন, ছয় মাস হয়ে গেলেও তনু হত্যার বিচারের কোনো অগ্রগতি নেই। ময়নাতদন্তের নামে বিভ্রান্তিকর প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে এবং সেসব চিকিৎসককে এখনো বহাল তবিয়তে রাখা হয়েছে। এ মামলার তদন্তকারী সিআইডি কর্মকর্তাকে এখান থেকে বদলি করা হয়েছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত নতুন কর্মকর্তা এ বিষয়ে এখনো কোনো পদক্ষেপ নেননি। অবিলম্বে তনুর হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করা এবং তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান বক্তারা।

প্রতিবাদ সমাবেশে অচীন পাখি বাউল শিল্পীগোষ্ঠীর শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন এবং সমাবেশ শেষে পৌর উদ্যানের জামতলা পর্যন্ত পদযাত্রা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মার্চ রাতে কুমিল্লা সেনানিবাস এলাকার একটি জঙ্গল থেকে উদ্ধার করা হয় তনুর লাশ। এ ঘটনার পরদিন তনুর বাবা ইয়ার হোসেন অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। দুই দফায় তদন্তকারী সংস্থা ও কর্মকর্তা পরিবর্তন করে গত ১ এপ্রিল থেকে মামলাটি তদন্ত করছে সিআইডি।


মন্তব্য