kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিউ ইয়র্কে সু চির সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ভাষণ

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নিউ ইয়র্কে সু চির সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে গতকাল মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি : পিআইডি

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে যোগ দিতে কানাডার মন্ট্রিয়ল থেকে স্থানীয় সময় রবিবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্ক পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার সকালে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন তিনি।

পরে নিউ ইয়র্কে প্রথম কর্মসূচিতে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে উদ্বাস্তু ও অভিবাসন-সংক্রান্ত সাধারণ পরিষদের প্ল্যানারির উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী।

ভাষণে প্রধানমন্ত্রী অভিবাসী ও শরণার্থীদের অধিকার সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, অভিবাসন বিষয়টি সার্বিকভাবে মোকাবিলায় বিশ্বকে পারস্পরিক দায়িত্বশীলতার ওপর ভিত্তি করে একটি সাধারণ সমঝোতায় পৌঁছাতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যেকোনো পরিস্থিতিতে তাঁদের মর্যাদা নির্বিশেষে অভিবাসীদের অধিকার সুরক্ষা করতে হবে। বিশ্বব্যাপী আমাদের বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর মধ্যে সম্প্রীতি এবং অভিবাসী ও শরণার্থীদের অধিকার সংরক্ষণ সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ। ’ শরণার্থী ও অভিবাসীদের বিষয়ে প্রথমবারের মতো সম্মেলন আহ্বান করায় জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। গতকাল তিনি কমনওয়েলথের মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া জ্যানেটের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।

প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের বিষয় তুলে ধরবেন এবং জাতিসংঘের প্রধান কার্যালয়ে বিজনেস কাউন্সিল ফর ইন্টারন্যাশনাল আন্ডারস্ট্যান্ডিংয়ে (বিসিআইইউ) বৈঠকেও যোগ দেবেন। আজ মঙ্গলবার সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। আগামীকাল বুধবার বিকেলে জেনারেল অ্যাসেম্বলি হলে ৭১তম অধিবেশনের সাধারণ আলোচনায় বক্তব্য দেবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী ‘গ্লোবাল কমপ্যাক্ট ফর সেফ, রেগুলার অ্যান্ড অর্ডারলি মাইগ্রেশন : টেকসই উন্নয়নবিষয়ক এজেন্ডা-২০৩০’ বাস্তবায়ন এবং অভিবাসীদের মানবাধিকারের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা অর্জনবিষয়ক রাউন্ড টেবিল ৫-এ যৌথভাবে সভাপতিত্ব করবেন। তিনি পরে হোটেল ম্যারিয়ট ইস্টসাইডে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে আয়োজিত কাউন্টার টেররিজমের ওপর এশিয়ান লিডার্স ফোরামের বৈঠকে যোগ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সদর দপ্তরের কনফারেন্স রুম ২-তে সাউথ সাউথ বিষয়ক জাতিসংঘ অফিসে বাংলাদেশ আয়োজিত পাবলিক সার্ভিস ডেলিভারিতে স্কেলিং আপ ইনোভেশনে সাউথ সাউথ অ্যান্ড ট্রায়াঙ্গুলার কো-অপারেশন বিষয়ক এক বৈঠকে যোগ দেবেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আয়োজিত উদ্বাস্তুবিষয়ক এক বৈঠকে যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এ সময় তিনি জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বারাক ওবামা আয়োজিত মধ্যাহ্নভোজ সংবর্ধনায় যোগ দেবেন।

আগামীকাল সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন লো ভেশ আয়োজিত ডিসেন্ট ওয়ার্ক অ্যান্ড ইনক্লুসিভ গ্রোথ বিষয়ক সোশ্যাল ডায়ালগ সংক্রান্ত গ্লোবাল ডিলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন শেখ হাসিনা। এদিন তিনি জাতিসংঘের প্রধান কার্যালয়ে মহাসচিব বান কি মুন আয়োজিত ভোজসভায় যোগ দেবেন। তিনি জাতিসংঘ সদর দপ্তরের কনফারেন্স রুমে পানিবিষয়ক উচ্চ পর্যায়ের প্যানেল বৈঠকেও যোগ দেবেন। একই দিন নিউ ইয়র্কে হোটেল গ্র্যান্ড হায়াতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেবেন তিনি।

সুইস প্রেসিডেন্ট জোহান চেনিডার আম্মান, ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের (ডাব্লিউইএফ) নির্বাহী চেয়ারম্যান ক্লস শোয়াব এবং বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিমসহ বিভিন্ন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।

আগামী বৃহস্পতিবার ভার্জিনিয়ার উদ্দেশে নিউ ইয়র্ক ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী। রবিবার দেশের উদ্দেশে ওয়াশিংটন ডিসির ডুলেস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ত্যাগ করবেন তিনি। তাঁকে বহনকারী ফ্লাইটটি দুবাই হয়ে সোমবার বিকেলে ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে।


মন্তব্য