kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পিয়েরে ট্রুডোকে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা

কানাডা সফরে নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইবেন প্রধানমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কানাডা সফরে নূর চৌধুরীকে ফেরত চাইবেন প্রধানমন্ত্রী

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে গতকাল রবিবার বঙ্গভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাক্ষাৎ করেন। ছবি : পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বুধবার কানাডার মন্ট্রিয়লের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন। এইডস, যক্ষ্মা ও ম্যালেরিয়া মোকাবিলা বিষয়ক বৈশ্বিক তহবিলের সম্মেলনে অংশ নিতে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর ব্যক্তিগত আমন্ত্রণে তিনি এ সফরে যাচ্ছেন।

তবে এ সফরে কানাডার

প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। সেই বৈঠকে কানাডায় অবস্থানরত বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর অনুরোধ জানানো হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী গতকাল রবিবার ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন কানাডা সফর প্রসঙ্গে বলেন, দীর্ঘদিন পর উত্তর আমেরিকার ওই দেশটিতে বাংলাদেশের কোনো সরকারপ্রধান সফরে যাচ্ছেন। কানাডার প্রধানমন্ত্রী

 জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্ভাব্য বৈঠক প্রসঙ্গে মাহমুদ আলী বলেন, ‘বৈঠকে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনা, বাণিজ্য-বিনিয়োগ, উন্নয়ন সহযোগিতা, জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যু, টেকসই উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমন এবং নিরাপত্তা সহযোগিতাসহ পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় বিষয়ে আলোচনা হবে। ’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে কানাডার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর বাবা সাবেক প্রধানমন্ত্রী পিয়েরে ইলিয়ট ট্রুডোর অবদানের কথা সবাই জানেন। তাঁর সেই অসামান্য অবদানের জন্য ২০১২ সালে তাঁকে মরণোত্তর ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা’য় ভূষিত করা হয়। এবারের সফরে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর হাতে তাঁর বাবার এ সম্মাননা পুরস্কারটি তুলে দেবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী রবিবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে পৌঁছাবেন। প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বাংলায় ভাষণ দেবেন। সেখানে তিনি সন্ত্রাস মোকাবিলা ও বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার ওপর গুরুত্বারোপ করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, একাধিক কারণে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের এবারের অধিবেশনটি বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে। প্রথমত. বিশ্বজুড়ে, বিশেষ করে ইউরোপে চলমান দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তরকালের সবচেয়ে বড় শরণার্থী সংকট ও অভিবাসন সমস্যা এবং যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশগুলো থেকে অন্যান্য দেশে লাখ লাখ আশ্রয়প্রত্যাশীর সমস্যা সমাধানের বিষয়গুলো এবারের অধিবেশনে গুরুত্ব পাবে। অধিবেশনের সাধারণ বিতর্ক পর্বের আগে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের উদ্যোগে অভিবাসী ও শরণার্থী বিষয়ক জাতিসংঘ সম্মেলন আয়োজন করা হয়েছে। একে কেন্দ্র করে উচ্চ পর্যায়ের অধিবেশনের পুরোটা সময় অসংখ্য নীতিনির্ধারণী বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

দ্বিতীয় কারণ হিসেবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে আইএসসহ বিশ্বব্যাপী সহিংস জঙ্গি তৎপরতার উত্থান এবং প্যারিস, ব্রাসেলস, ইস্তাম্বুল, বাগদাদ, মদিনা, জাভা, পুচং, এমনকি ঢাকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রতিক সময়ে সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধানে জাতিসংঘের আওতায় আরো কার্যকর প্রয়াস গ্রহণের বিষয়ে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ সচেষ্ট থাকবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, এবারের অধিবেশনকালে বাংলাদেশসহ বেশ কিছু সদস্য রাষ্ট্র ঐতিহাসিক প্যারিস জলবায়ু চুক্তি অনুসমর্থন করবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে ৭০ সদস্যবিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন। সামগ্রিকভাবে এবারের জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে অংশগ্রহণ বৈশ্বিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে আরো সুসংহত করবে। একই সঙ্গে জাতিসংঘের হাত ধরে বৃহত্তর আন্তর্জাতিক পরিসরে বাংলাদেশের বহুমুখী সফলতা ও অবদানের কথা তুলে ধরার সুযোগ তৈরি হবে।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আগামী ১৭ থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর ভেনিজুয়েলার মার্গারিটা দ্বীপে জোটনিরপেক্ষ আন্দোলনের (ন্যাম) ১৭তম শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম ওই সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ প্রধানমন্ত্রীর : রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে বঙ্গভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল রবিবার বিকেলের এ সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী তাঁর কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্র সফর, বিশেষ করে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনকালীন বিভিন্ন কর্মসূচি সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন। পরে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জানান, গতকাল বিকেলে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গভবনে পৌঁছলে তাঁকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান রাষ্ট্রপতি। এরপর তাঁরা সোয়া এক ঘণ্টা বৈঠক করেন। রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন সফরের সাফল্য কামনা করেন। রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারপ্রধান এ সময় ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা বিনিময় করেন বলেও জানান প্রেস সচিব।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, গ্লোবাল ফান্ড সম্মেলন ও জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভায় যোগ দিতে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে ১২ দিনের সরকারি সফরে আগামী বুধবার ঢাকা ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পথে লন্ডনে এক রাত যাত্রাবিরতি করবেন তিনি। সফর শেষে ২৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য