kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইবির ‘নিখোঁজ’ ৫৩ শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ইবির ‘নিখোঁজ’ ৫৩ শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০ দিনের বেশি অনুপস্থিত ৫৩ শিক্ষার্থীর একটি খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গত ৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব  ওয়েবসাইটে এসব শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন উর রাশিদ আসকারী তালিকা প্রকাশের বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ তালিকা প্রকাশ করেছে বলে উপাচার্য জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য ও প্রশাসনসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি বিভাগের মোট ৫৩ শিক্ষার্থী অনুপস্থিত আছে। ফলিত রসায়ন ও রাসায়নিক প্রযুক্তি বিভাগের ১৮ জন, মার্কেটিং বিভাগের ৫ জন, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ১৩ জন, ব্যবস্থাপনা বিভাগের ১১ জন ও ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগের ৬ জন এ তালিকায় রয়েছে।

অনুপস্থিত এ শিক্ষার্থীদের ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সুনির্দিষ্ট কারণসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব বিভাগে উপস্থিত হয়ে হাজিরা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫টি বিভাগের মধ্যে অন্য ১৫টি বিভাগের কোনো শিক্ষার্থী গ্রহণযোগ্য কারণ ছাড়া অনুপস্থিত নেই। এসব বিভাগের সভাপতিরা বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে নিশ্চিত করেছেন। ইংরেজি, আইন, আল ফিকাহ, হিসাববিজ্ঞান ও তথ্যপদ্ধতি, ফলিত পদার্থবিজ্ঞান, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ফলিত পুষ্টি ও খাদ্যপ্রযুক্তি, ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, গণিত, আল কোরআন, দাওয়াহ, আল হাদিস, অর্থনীতি, আরবি ভাষা ও সাহিত্য এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে কোনো শিক্ষার্থী অনুপস্থিত নেই।

তবে বাংলা, রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও লোকপ্রশাসন বিভাগ থেকে এখনো এ বিষয়ে কোনো তালিকা দেওয়া হয়নি। বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও পরিসংখ্যান বিভাগের তালিকা দেওয়ার কাজ প্রক্রিয়াধীন বলে বিভাগের সভাপতিরা জানিয়েছেন।

উপাচার্য ড. হারুন বলেন, প্রাথমিকভাবে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। ওয়েবসাইটে প্রকাশিত নামের ব্যাপারে কোনো শিক্ষার্থীর অভিযোগ থাকলে তারা ঈদের ছুটির পর লিখিতভাবে জানাতে পারবে। ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান ছুটি শেষে ২০ সেপ্টেম্বর নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হাজির হয়ে অনুপস্থিত থাকার যুক্তিসংগত কারণ দেখাতে ব্যর্থ হলে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য