kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

পথে পথে যানজট

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পথে পথে যানজট

পবিত্র ঈদুল আজহার টানা ছয় দিনের ছুটি শুরু হচ্ছে আজ শুক্রবার থেকে। প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে গতকাল বৃহস্পতিবার শেষ কর্মদিবসের ভোর থেকেই ঢাকা ছাড়তে শুরু করে মানুষ।

কিন্তু মহাসড়কগুলোতে তীব্র যানজটের কারণে ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে ভোগান্তির মধ্য দিয়ে। রাস্তায় যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থেকে নাকাল হতে হচ্ছে যাত্রীদের।

হাইওয়ে পুলিশ কর্মকর্তা বলছেন, ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখো  যাত্রীরা ঢাকা ছাড়তে শুরু করায় সড়কে গাড়ির চাপ কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে কোরবানির পশুবাহী ট্রাকের সারি। এরই মধ্যে বিভিন্ন স্থানে ছোটখাটো দুর্ঘটনায় যানবাহন বিকল হলেই পরিস্থিতি চলে যাচ্ছে নিয়ন্ত্রণের বাইরে।

সকাল থেকেই ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ২০ কিলোমিটার এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ছিল ২৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট। দুপুরে কাঁচপুরে বাসে একই এলাকায় প্রায় দুই ঘণ্টা বসে থাকতে থাকতে ত্যক্ত-বিরক্ত যাত্রী শফিকুর রহমান বললেন, ‘আগে রওনা দিয়েও লাভ  হলো না। ’ তিনি হানিফ পরিবহনে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কাঁচপুর, ভুলতা, যাত্রামুড়া, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁওয়ের বিভিন্ন অংশ, মেঘনা ও গোমতী সেতু এলাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট ছিল। ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রূপগঞ্জে ভুলতা ফ্লাইওভার নির্মাণ, কাঁচপুর সেতু ও মেঘনা সেতুতে সকালে কয়েকটি যানবাহন বিকল হওয়ার কারণে যানজট প্রকট আকারে রূপ নেয়। ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক দিয়ে দেশের ৩৮টি রুটে যান চলাচল করে। এর একটি পয়েন্ট হলো কাঁচপুর সেতুর পূর্ব পার। দুটি মহাসড়ক ওই পার দিয়েই বিভক্ত হয়েছে। ফলে রাজধানী থেকে সেতুর পূর্ব ঢাল পর্যন্ত যানবাহনের চাপ থাকে সবচেয়ে বেশি। সেতুর কয়েক কিলোমিটার আগে নারায়ণগঞ্জের শিমরাইল এলাকা পর্যন্ত মহাসড়ক আট লেনের। ফলে রাজধানী থেকে আসা যানগুলো একসঙ্গে আসার পর শিমরাইল মোড়ে যানজটের শিকার হয়। কারণ শিমরাইল থেকে কাঁচপুর সেতু পর্যন্ত সড়কটি চার লেনের। এর মধ্যে আবার শিমরাইলে বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টার ও যাত্রী ওঠানামা হয়।

কাঁচপুর সেতুর উত্তর দিকে গেছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক। সেখানে ভুলতায় গাউছিয়া মার্কেটের সামনে চলছে ফ্লাইওভারের কাজ। ফলে ওই স্থানে সড়ক সরু হয়ে গেছে। তা ছাড়া যাত্রাবাড়ী থেকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রূপসী পর্যন্ত সড়কের গাড়িও মহাসড়কে গিয়ে জড়ো হয়। কিন্তু ফ্লাইওভারের কারণে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সৃষ্টি হয় যানজট। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রয়েছে কয়েকটি বাসস্ট্যান্ড। এর মধ্যে মদনপুর এলাকায় আবার রয়েছে মদনপুর-গাজীপুর এশিয়ান হাইওয়ে। মদনপুরের যানজটের প্রভাব পড়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কেও। এ মহাসড়কের কাঁচপুর, দাউদকান্দি, মোগরাপাড়া, মেঘনা ও চিপরদীতে গণপরিবহন থামিয়ে যাত্রী তোলায় যানজট তীব্র রূপ নেয়।

শিমরাইল ট্রাফিক ইনচার্জ (টিআই) মোল্লা তাসলিম হোসেন জানান, গত বুধবার রাত থেকে গতকাল ভোর পর্যন্ত তিনটি গাড়ি কাঁচপুর সেতুর ওপর উঠতে গিয়ে বিকল হয়ে পড়ে। তখন সড়কে যানজট শুরু হয়। তিনি বলেন, সব সময় কাঁচপুর সেতুর পাশে একটি রেকার রাখা হয়েছে, কোনো যানবাহন বিকল হলে সঙ্গে সঙ্গে ওই রেকার দিয়ে সরানো হচ্ছে।

কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের ওসি শেখ শরিফুল আলম জানান, সোনারগাঁওয়ের মেঘনা সেতু এলাকায় রাত থেকে ভোর পর্যন্ত ছয়টি গাড়ি বিকল হয়ে পড়ে। তা ছাড়া একটি দুর্ঘটনাও ঘটেছে। এতে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলে এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

মেঘনা সেতুতে গাড়ি বিকল আর অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। গত তিন দিনের যানজটের রেশ কাটতে না কাটতেই বুধবার রাত ২টা থেকে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত মহাসড়কের দাউদকান্দির গৌরীপুর থেকে মেঘনা গোমতী সেতু পার হয়ে সোনারগাঁও উপজেলার কাঁচপুর পর্যন্ত দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার যানজট ছিল। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেনের গাড়িগুলো মেঘনা-গোমতী ও মেঘনা সেতুর ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় দুই লেনে পরিণত হয়। গাড়িগুলোকে ধীরগতিতে সেতু দুটি পার হতে হয়। এ ধীরগতিতে পার হওয়ার সময় থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়। বুধবার রাতে মেঘনা সেতুর ওপর অতিরিক্ত মালবোঝাই একটি ট্রাক বিকল হয়ে পড়লে এ দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ গাড়িটি সরিয়ে নিলে আবার যানবাহন চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ঈদে অতিরিক্ত মালবোঝাই লক্কড়ঝক্কড় ফিটনেসবিহীন ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান যানবাহনগুলো সেতুর ওপর দিয়ে ধীরগতিতে চলায় যানজট আরো দীর্ঘ হয়। সারা দিন থেমে থেমে চলতে থাকে যানবাহন।

গাবতলী থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী কোরবানির পশুবাহী ট্রাকের চালক মো. মনির হোসেন বলেন, ‘ঢাকা থেকে রাত ১০টার গাড়ি ছেড়ে আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল সাড়ে ৯টায় মেঘনা-গোমতী সেতুতে যানজটে পড়ে আছি। জানি না কখন চট্টগ্রামে পৌঁছতে পারব। ’

দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, চার লেনের গাড়িগুলো দুই লেন সেতুর ওপর দিয়ে ধীরগতিতে যাওয়ার সময় যানজটের সৃষ্টি হয়। বিকল্পভাবে নির্মাণাধীন মেঘনা, গোমতী ও কাঁচপুর সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হলেই আর যানজট থাকবে না।

এদিকে সড়কে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে উত্তরাঞ্চলের যাত্রীদেরও। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে গরু ও মালবাহী গাড়ি বিকল হওয়ায় যানজট তীব্র আকার ধারণ করেছে। গতকাল গাজীপুরের চন্দ্রা থেকে টাঙ্গাইলের পাকুল্যা পর্যন্ত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে প্রায় ২৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়।

মির্জাপুরের গোড়াই হাইওয়ে থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান বলেন, আসলে চালকদের মানসিকতার ওপর যানজটের বিষয়টি নির্ভর করে। তারা যদি নিয়ম মেনে যানবাহন চালায়, তাহলে যানজট লাগার কথা নয়। এ ছাড়া মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে বিকল হওয়া যানবাহনগুলো সরিয়ে নিতে কিছুটা দেরি হয়। ঈদযাত্রায় অতিরিক্ত যানবাহনের চাপের কারণে যানজট লাগে। তবে পুলিশ নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

গতকাল দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় পুলিশ কন্ট্রোল রুমের উদ্বোধন, যানজট ও সার্বিক নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শন করেন পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘মহাসড়কের গাজীপুরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ ও কমিনিউটি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। রাস্তায় যেন কোনো চাঁদাবাজি না হয় সেদিকেও নজর রাখা হবে। পুলিশ বা অন্য যে কেউ চাঁদাবাজি করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়া কোনো পরিবহন নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বেশি নিলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন আমাদের নারায়ণগঞ্জ, দাউদকান্দি (কুমিল্লা) ও কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি]

 


মন্তব্য