kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


প্রকাশক দীপন হত্যা

পুরস্কারের আরেক জঙ্গি সবুর গ্রেপ্তার ৬ দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পুরস্কারের আরেক জঙ্গি সবুর গ্রেপ্তার ৬ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা ও আহমেদুর রশীদ চৌধুরী টুটুল হত্যাচেষ্টার ‘অন্যতম হোতা’ আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সদস্য আবদুস সবুরকে শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গতকাল  রবিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে ছয় দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান ও ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম গতকাল এক ব্রিফিংয়ে জানান, মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল টঙ্গী রেলওয়ে স্টেশন থেকে সবুরকে গ্রেপ্তার করেছে। ২৩ বছর বয়সী সবুর ওরফে রাজু ওরফে সাদ ওরফে সামাদ নামেও পরিচিত। সে এবিটির সামরিক শাখার শীর্ষ চারজনের একজন।

ব্লগার, প্রগতিশীল লেখক ও প্রকাশক হত্যায় জড়িত যে ছয়জনকে চিহ্নিত করে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছিল ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি), তাদের মধ্যে সবুর একজন। তার নামে পুরস্কারের অঙ্ক ছিল দুই লাখ টাকা। সবুর কুমিল্লার নাঙ্গলকোট থানার ঢালুয়া ইউনিয়নের ইদ্রিস পাটোয়ারির ছেলে।

ডিএমপির জনসংযোগ দপ্তরে ব্রিফিংয়ে মনিরুল বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সবুর বলেছে, সে এবিটি সদস্যদের সামরিক প্রশিক্ষণ দেওয়ার পাশাপাশি দীপন ও টুটুলের ওপর হামলার ছক তৈরি, ঘটনাস্থল রেকি করাসহ ওই ঘটনার সার্বিক দায়িত্বশীল একজন ছিল। সে মোহাম্মদপুরের নবোদয় হাউজিংয়ে এবিটির একটি বোমা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ নেয় এবং পরে বাড্ডার সাঁতারকুলে ওই সংগঠনের নতুন এক আস্তানায় নিজেও প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করে।

এর আগে গত ২৩ আগস্ট রাতে দীপন হত্যার ঘটনায় পুরস্কার ঘোষিত শীর্ষ জঙ্গি শামীম ওরফে সিফাত ওরফে সমীর ওরফে ইমরানকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। তাকেও টঙ্গীর চেরাগ আলী থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। পরের দিন আদালতে হাজির করে ছয় দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। বর্তমানে শামীম কারাগারে আছে।

গত বছরের ৩১ অক্টোবর বিকেলে শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সেদিনই লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনীর কার্যালয়ে ঢুকে এর কর্ণধার টুটুলসহ তিনজনকে কুপিয়ে আহত করা হয়। ওই দুই প্রকাশনা থেকেই বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়ের বই প্রকাশিত হয়েছে, যিনি গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে জঙ্গি কায়দার হামলায় নিহত হন।

গোয়েন্দা পুলিশের ভাষ্য, দীপন ও টুটুলের ওপর হামলার পরও সবুর এবিটি সদস্যদের নিয়ে সারা দেশে ব্লগার ও মুক্তমনা লোকজনকে হত্যার পরিকল্পনায় তৎপর ছিল। এ ছাড়া সে এবিটিতে নতুন সদস্য যোগ করতে মগজ ধোলাইয়ের কাজও করত। অভিজিৎ ও দীপনের হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণকারীরা সবুরের ধর্মীয় ব্যাখ্যায় উদ্বুদ্ধ হয়েছিল। সে হিসেবে সবুর অভিজিৎ ও দীপন হত্যার অন্যতম মাস্টারমাইন্ড।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, সবুর এবিটির শ্লিপার সেলের একজন অন্যতম সদস্য। গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকটি হত্যার ঘটনায় তার সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। সেগুলোর বিষয়ে তদন্ত এখনো শেষ হয়নি।

এদিকে আমাদের আদালত প্রতিবেদক জানান, গতকাল বিকেলে দীপন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সবুরকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি চেয়ে আদালতে হাজির করেন গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন। শুনানি শেষে ঢাকার ৪ নম্বর অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।


মন্তব্য