kalerkantho


প্রধান বিচারপতি বললেন

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এস কে) সিনহা বলেছেন, দেশে এখন রাজনৈতিক অস্থিরতা নেই। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো। অর্থনৈতিক উন্নয়নে অগ্রগতি দৃশ্যমান। বিভিন্ন খাতে পার্শ্ববর্তী দেশগুলোকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। এর চেয়ে ভালো উন্নয়ন কিভাবে হতে পারে?

গতকাল মঙ্গলবার ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ও ১৬৭ ধারার বিষয়ে হাইকোর্টের ১৫ দফা নির্দেশনার বিরুদ্ধে সরকারের আপিলের ওপর শুনানির সময় প্রধান বিচারপতি এ মন্তব্য করেন।

বিনা পরোয়ানায় ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার এবং ১৬৭ ধারায় রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থে একটি রিট আবেদন করেছিল বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট)। ১৯৯৮ সালে পুলিশ হেফাজতে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির ছাত্র শামীম রেজা রুবেলের মৃত্যুর ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এ রিট করা হয়েছিল। হাইকোর্ট ২০০৩ সালের ৭ এপ্রিল রায় দেন। রায় ঘোষণার ছয় মাসের মধ্যে ১৫ দফা নির্দেশনা বাস্তবায়ন করার আদেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে আইন সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত এসব নির্দেশনা মেনে চলতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

হাইকোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধে চারদলীয় জোট সরকার আপিল করে। গতকাল প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চে ওই আপিলের ওপরই শুনানি হয়েছে।

রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন ড. কামাল হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা। আগামী ১১ মে শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে।

ড. কামাল হোসেন বলেন, এক যুগ আগে ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারা ও ১৬৭ ধারা সংশোধনের রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। নির্দেশনা এখনো বহাল রয়েছে। কিন্তু সরকার রায় কার্যকর করার উদ্যোগ নেয়নি। যদি নেওয়া হতো তাহলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হেফাজতে নাগরিকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটত না।

শুনানির একপর্যায়ে প্রধান বিচারপতি অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনিও এই দেশের নাগরিক। আমিও এই দেশের নাগরিক। দেশের নাগরিকদের মৌলিক অধিকার রক্ষায় সবচেয়ে সচেতন হতে হবে। ’ তিনি বলেন, ‘ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ও ১৬৭ ধারা ব্যবহারের ক্ষেত্রে যে পরিবর্তন এসেছে সে সম্পর্কে আমরা সবাই অবগত। ১৯৭১ সালের পর বর্তমান সময়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো অবস্থানে রয়েছে। তাহলে কেন এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করা হবে না? দেশের নাগরিকের মৌলিক অধিকার রক্ষায় হাইকোর্টের রায় কার্যকরের সময় এখনই। মৌলিক অধিকার রক্ষায় আমাদের সামনে আবেদন এলে আমরা আদেশ দিতে দ্বিধা করি না। ’

প্রধান বিচারপতি বলেন, পুলিশ বিভাগে একদিনে পরিবর্তন আনা যাবে না। এ জন্য পুলিশের প্রশিক্ষণ প্রয়োজন।


মন্তব্য