kalerkantho


সম্ভাব্য প্রার্থী গুলিতে নিহত আহত ৫৮

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সম্ভাব্য প্রার্থী গুলিতে নিহত আহত ৫৮

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে বান্দরবানের রুমায় চেয়ারম্যান পদের সম্ভাব্য এক প্রার্থীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তাঁর নাম শান্তি ত্রিপুরা (৪০)। গতকাল সোমবার ভোরে উপজেলার গ্যালেঙ্গ্যা ইউনিয়নের রামদুপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ছাড়া প্রথম ধাপে আজ মঙ্গলবার নির্বাচনের আগে বরিশাল, পিরোজপুর, ময়মনসিংহ, নওগাঁ ও পটুয়াখালীতে হামলা, সংঘর্ষ,  ভাঙচুর, নির্বাচনী কার্যালয় ও বাড়িঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় আহত হয়েছে আরো অন্তত ৫১ জন। রবিবার রাত ও গতকাল এসব ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে বরিশালে এক সদস্য পদপ্রার্থীকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। পিরোজপুর ও পটুয়াখালীতে হামলা হয়েছে দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর ওপর। এর আগে ভোলায় এক সদস্য পদপ্রার্থীর হাতের কবজি কেটে নেওয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত নির্বাচনী সহিংসতায় ১০ জন নিহত হয়েছে।

আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর : বান্দরবান : নিহত শান্তি ত্রিপুরার শ্যালক যোগেশ ত্রিপুরা জানান, সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তাঁকে হত্যা করে। ছয়-সাতজনের ওই দলটির সবার কাছেই অস্ত্র ছিল।

স্থানীয় সূত্রগুলো দাবি করেছে, ‘ত্রিপুরা গ্রুপ’ নামের একটি সন্ত্রাসী চক্র এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। তবে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত কেউ এ হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেনি।

স্থানীয় সূত্রগুলো আরো জানায়, শান্তি ত্রিপুরা একসময় কথিত ‘ত্রিপুরা গ্রুপের’ সঙ্গে জড়িত ছিলেন। চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নের প্রত্যাশায় সাম্প্রতিক সময়ে তিনি সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিতে (পিসিজেএসএস) যোগ দেন।

তৃতীয় ধাপে আগামী ২৩ এপ্রিল অনুষ্ঠেয় এই নির্বাচনের জন্যে ২৭ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমাদানের সুযোগ রয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের জন্যে শান্তি ত্রিপুরার রুমা উপজেলা সদরে যাওয়ার কথা ছিল। তার আগেই সন্ত্রাসীরা তাঁকে হত্যা করে।

বরিশাল : বাবুগঞ্জের কেদারপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা করে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার রাতের এ ঘটনায় বিএনপি ও ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী নূরে আলম বেপারী। এ হামলার জের ধরে তাঁর সমর্থকরা বিএনপির প্রার্থী মনিরুজ্জামান মিল্টনের বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে।

হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী গিয়াস উদ্দিনকে গতকাল সকালে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হুমায়ূন কবির ও তাঁর সহযোগীরা হামলা করেছে বলে অভিযোগ গিয়াস উদ্দিনের।  

বাকেরগঞ্জ উপজেলার গাড়ুরিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে গতকাল পায়রাবাদ, নীলগঞ্জ ও উত্তর দেউলী গ্রামে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।

নওগাঁ : নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার বড় বিদির গ্রামে রবিবার রাতে নির্মইল ইউনিয়নের বিএনপির চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আতাউর রহমানের নির্বাচনী কার্যালয়ে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এক ব্যক্তির বাড়িতে করা এই কার্যালয়ে দেওয়া আগুনে পাশের একটি বাড়ির বারান্দার টিন, খড়ের চালসহ বিভিন্ন মূল্যবান জিনিস পুড়ে গেছে।

পিরোজপুর : স্বরূপকাঠির জলাবাড়ী ইউনিয়নে গতকাল জাতীয় পার্টির (জেপি) চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আশীস বড়ালসহ ২০ জন গুরুতর আহত হয়েছে। এর জের ধরে আশীসের সমর্থকরা জেপি মনোনীত প্রার্থী তৌহিদের সমর্থকদের বেশ কয়েকটি বাড়িঘরে হামলা ও ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : উপজেলার সরিষা ইউনিয়নের মারুয়াখালী গ্রামে গতকাল আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. শাহজাহান ভূঁইয়া ও দলটির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী মো. আকরাম হোসেন ভূঁইয়ার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।

পটুয়াখালী : গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী মো. জাহিদুল ইসলামের বাড়িতে হামলা করেছে দলটির প্রার্থী মো. বাবুল মুন্সির লোকজন। রবিবার রাতে হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে ওই বাড়িতে হামলা করে ১২টি বসতঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। ওই সময় ছয়জন আহত হয়।

বাউফল উপজেলার বগা ইউনিয়নের সাবুপুরা এলাকায় গতকাল আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী এস এম ইউসুফের ওপর হামলা করেছে দলটির প্রার্থী আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের লোকজন। এতে আহত হয় প্রার্থী ইউসুফ এবং তাঁর পাঁচজন সমর্থক।


মন্তব্য