kalerkantho


আতিউরের পদত্যাগ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

সৎ সাহসের বিরল দৃষ্টান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সৎ সাহসের বিরল দৃষ্টান্ত

‘হ্যাকিং’ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ব্যাংকটির গভর্নর ড. আতিউর রহমানের পদত্যাগকে নৈতিক মনোবল ও সৎ সাহসের বিরল দৃষ্টান্ত বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম এমনটা জানিয়েছেন।

গতকাল সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে পদত্যাগপত্র জমা দেন আতিউর রহমান।

গতকাল দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ইহসানুল করিম বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে গভর্নর আতিউর রহমান সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করে পদত্যাগপত্র পেশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী এ পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আতিউর রহমানের এই পদত্যাগ একটি সাহসী পদক্ষেপ, যা নৈতিক মনোবল ও সৎ সাহসের বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। ’

সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ ব্যাংকে কর্মরত থাকাকালীন আতিউর রহমানের নানা অবদানের কথাও স্মরণ করেছেন বলে জানান ইহসানুল করিম। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ড. আতিউর রহমানের অনেক অবদান রয়েছে বলে উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আতিউর রহমানের সময়ে রিজার্ভ বৃদ্ধি ও ব্যাংকিং সেবা খাত আরো গতিশীল হয়েছে। ’

বাংলাদেশ ব্যাংকের যেসব কর্মকর্তার অর্থ চুরির বিষয়ে দায় রয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের যেসব কর্মকর্তার দায়িত্ব অবহেলায় এ ঘটনা ঘটেছে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সাইবার অপরাধের ধারায় ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে রিজার্ভের অর্থ চুরির বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সূত্রগুলো জানায়, সকাল ১১টার কিছু আগে ড. আতিউর রহমান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আসেন। তিনি ঘণ্টাখানেক অবস্থান করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ত্যাগ করেন।


মন্তব্য