ফের পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে-334276 | প্রথম পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


রামপুরায় দুই শিশু হত্যা

ফের পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে মাকে

আদালত প্রতিবেদক   

১০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ফের পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে মাকে

রাজধানীর রামপুরায় দুই শিশুকে হত্যার ঘটনায় তাদের মা মাহফুজা মালেক জেসমিনকে গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে পাঁচ দিন জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

গতকাল বুধবার ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আলমগীর কবির রাজ এ অনুমতি দেন। সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) পরিদর্শক লুকমান হেকিম আসামিকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি চাইলে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আগামী ২০ মার্চ মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।

প্রথম দফায় গত ৪ মার্চ আসামিকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পায় পুলিশ। ওই রিমান্ড শেষে গতকাল আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। মামলাটির তদন্তের ভার ডিবিকে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ ফেব্রুয়ারি সিদ্ধেশ্বরীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী নুশরাত জাহান অরণী (১৪) ও হলিক্রিসেন্ট স্কুলের নার্সারির ছাত্র আলভী আমান (৬) মারা যায়। রেস্টুরেন্টের খাবার খেয়ে তাদের মৃত্যু হয় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। তবে এ কথা বলা হলেও মা-বাবা শিশুদের লাশের ময়নাতদন্ত করাতে চাননি। ঢাকা মেডিক্যালের ডাক্তাররা আপত্তি করলে তাঁরা লাশ রেখে জামালপুর শহরে যান দাফনের ব্যবস্থা করার জন্য।

পরদিন ১ মার্চ ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক ডা. প্রদীপ বিশ্বাস জানান, শ্বাসরোধ করে শিশু দুটিকে হত্যা করার আলামত মিলেছে। তাদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

পরে শিশু দুটির বাবা আমান উল্লাহ, মা মাহফুজা মালেক জেসমিন ও খালা আফরোজা মালেককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকায় আনে র‌্যাব।

জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব জানায়, জেসমিন নিজেই তাঁর সন্তানদের শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। পরে রামপুরা থানায় বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন বাবা আমান উল্লাহ।

এদিকে, অভিযুক্ত রেস্টুরেন্টের আটককৃত ম্যানেজার ও প্রধান বাবুর্চিসহ তিনজন এখনো কারাগারেই আছেন।

মন্তব্য