kalerkantho

জানা-অজানা

কল সেন্টার

[সপ্তম শ্রেণির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বইয়ে কল সেন্টারের কথা উল্লেখ আছে]

হাবিব তারেক   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



কল সেন্টার

ফোনে তাত্ক্ষণিক তথ্যসেবা দেওয়ার জন্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো কল সেন্টার চালু করেছে।

জরুরি সেবা, হেল্প লাইন, হেল্প ডেস্ক, গ্রাহকসেবা—যে নামেই ফোননির্ভর সেবা দেওয়া

 

হোক, এগুলো মূলত কল সেন্টারই।

 

এমন অনেক জিজ্ঞাসা বা সেবা আছে, যা ফোনেই সেরে নেওয়া যায়। আবার ফোন করে জেনে পরে দরকারি পদক্ষেপ নেওয়া যায়। এর ফলে এক দিকে সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানে গ্রাহকদের ভিড় কমে, অন্যদিকে গ্রাহকদেরও হয়রানি হতে হয় না। যেমন—কারো মোবাইল বা সিম হারিয়েছে। তিনি মোবাইল অপারেটরের কল সেন্টারে ফোন করে তাত্ক্ষণিক সিমটি বন্ধ করতে পারবেন।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে দেশে চালু হয়েছে ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি সার্ভিস ৯৯৯। এ ছাড়া সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আরো বেশ কিছু কল সেন্টার চালু আছে—

কৃষি : ১৬১২৩,

বিটিসিএল : ১৬৪০২,

স্বাস্থ্য বাতায়ন : ১৬২৬৩,

ঢাকা ওয়াসা : ১৬১৬২, মহিলা সংস্থা (তথ্য আপা) : ১০৯২২, দুর্যোগের আগাম বার্তা : ১০৯৪১, চাইল্ড হেল্প লাইন : ১০৯৮,

বাংলাদেশ ব্যাংক : ১৬২৩৬,

নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ সেল : ১০৯, প্রবাসবন্ধু কল সেন্টার : ০৯৬৫৪৩৩৩৩৩৩, ডিএমপি : ১০০,

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান : ০১৭৯৯০৯০০১১,

জাতীয় পরিচয়পত্র : ১০৫,

সরকারি আইনসেবা : ১৬৪৩০,

ইউনিয়ন পরিষদ : ১৬২৫৬।



মন্তব্য