kalerkantho


এইচএসসি প্রস্তুতি বাংলা দ্বিতীয় পত্র

বিরাম চিহ্ন

মো. শহিদুল ইসলাম, প্রভাষক ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ খিলগাঁও, ঢাকা   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০




এইচএসসি প্রস্তুতি

বাংলা দ্বিতীয় পত্র

১। বন্ধুগণ দয়া করিয়া আমার কথা শুনুন আপনারা চুপ করিয়া বসিয়া আছেন কেন উঠুন মনে সাহস সঞ্চার করুন তারপর কাজে লাগিয়া যান

উত্তর : বন্ধুগণ! দয়া করিয়া আমার কথা শুনুন। আপনারা চুপ করিয়া বসিয়া আছেন কেন? উঠুন, মনে সাহস সঞ্চয় করুন। তারপর কাজে লাগিয়া যান।

২। মজিদ উঠে আসে ভেতরে ভাবে ঝড় থামুক কারণ আর দেরি নয় ওধারে মেঘের আড়ালে প্রভাত হয়েছে সুবেহ সাদেক

উত্তর : মজিদ উঠে আসে ভেতরে। ভাবে, ঝড় থামুক। কারণ, আর দেরি নয়। ওধারে মেঘের আড়ালে প্রভাত হয়েছে সুবেহ সাদেক।

৩। ভ্রাতঃ আমি ঠকাইতে আসি নাই তুমি ত বলিয়াছ যে খণ্ডিত মস্তক পাইলে চলিয়া যাইবে এখন একি কথা এক মুখে দুই কথা কেন ভাই

উত্তর : ভ্রাতঃ! আমি ঠকাইতে আসি নাই।

তুমি ত বলিয়াছ যে, খণ্ডিত মস্তক পাইলে চলিয়া যাইবে। এখন একি কথা। এক মুখে দুই কথা কেন ভাই?

৪। সেই রুটির দোকানে আসতেন সেখানকার দারোগা কাজী রফিকউদ্দিন এর বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার কাজীর শিমলা গ্রামে নজরুলকে দেখে তাঁর লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ জানতে পেরে তাঁর গান-বাজনা শুনে তিনি মুগ্ধ হলেন

উত্তর : সেই রুটির দোকানে আসতেন সেখানকার দারোগা কাজী রফিকউদ্দিন। এর বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার কাজীর শিমলা গ্রামে। নজরুলকে দেখে, তাঁর লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ জানতে পেরে, তাঁর গান-বাজনা শুনে তিনি মুগ্ধ হলেন।

৫। এবার হৈম ইশারার মানে বুঝিল। স্বর আরো দৃঢ় করিয়া বলিল বাবা এমন কথা কখনোই বলিতে পারেন না মা গলা বাড়াইয়া বলিলেন তুই আমাকে মিথ্যাবাদী বলিতে চাস? হৈম বলিল আমার বাবা তো কখনোই মিথ্যা বলেন না

উত্তর : এবার হৈম ইশারার মানে বুঝিল, স্বর আরো দৃঢ় করিয়া বলিল, “বাবা এমন কথা কখনোই বলিতে পারেন না। ” মা গলা বাড়াইয়া বলিলেন, “তুই আমাকে মিথ্যাবাদী বলিতে চাস?” হৈম বলিল, “আমার বাবা তো কখনোই মিথ্যা বলেন না। ”

৬। তাহেরের বাপ এধার ওধার তাকায় অস্থির অস্থির করে একবার ভাবে বলে না তার দিলে কিছুই নাই তার দিল সাক্ষী

উত্তর : তাহেরের বাপ এধার-ওধার তাকায়, অস্থির অস্থির করে। একবার ভাবে বলে, না তার দিলে কিছুই নাই, তার দিল সাক্ষী।

৭। এ চক্র ছিন্ন তো করতেই হবে করবে কে প্রকাশক না ক্রেতা প্রকাশকের পক্ষে করা কঠিন কারণ ঐ দিয়ে সে পেটের ভাত জোগাড় করে সে ঝুঁকিটা নিতে নারাজ কিন্তু বই কিনে কেউ তো কখনো দেউলে হয়নি

উত্তর : এ চক্র ছিন্ন তো করতেই হবে। করবে কে? প্রকাশক না ক্রেতা? প্রকাশকের পক্ষে করা কঠিন, কারণ ঐ দিয়ে সে পেটের ভাত জোগাড় করে। সে ঝুঁকিটা নিতে নারাজ। কিন্তু বই কিনে কেউ তো কখনো দেউলে হয়নি।

৮। দেখ আমি চোর বটে কিন্তু আমি কি সখ করিয়া চোর হইয়াছি। খাইতে পাইলে কে চোর হয় দেখ যাহারা বড় সাধু চোরের নামে শিহরিয়া ওঠেন তাঁহারা অনেকে চোর অপেক্ষাও অধার্মিক তাহাদের চুরি করিবার প্রয়োজন নাই বলিয়াই চুরি করেন না।

উত্তর : দেখ, আমি চোর বটে; কিন্তু আমি কি সখ করিয়া চোর হইয়াছি? খাইতে পাইলে কে চোর হয়? দেখ, যাহারা বড় সাধু, চোরের নামে শিহরিয়া ওঠেন, তাঁহারা অনেকে চোর অপেক্ষাও অধার্মিক। তাঁহাদের চুরি করিবার প্রয়োজন নাই বলিয়াই চুরি করেন না।

৯। এ লাঞ্ছনা আমার ললাটলিপি যত দিন বেঁচে আছি সইতেই হবে কিন্তু ভালো কথা যাঁরা বলেন রসিক বলে যাঁরা খ্যাত তাঁরা অন্য এক রকমের লাঞ্ছনায় বন্ধুদের নির্যাতিত করেন সেটা সহ্য করা শক্ত

উত্তর : এ লাঞ্ছনা আমার ললাটলিপি। যত দিন বেঁচে আছি সইতেই হবে। কিন্তু ভালো কথা যাঁরা বলেন, রসিক বলে যাঁরা খ্যাত, তাঁরা অন্য এক রকমের লাঞ্ছনায় বন্ধুদের নির্যাতিত করেন। সেটা সহ্য করা শক্ত।

১০। এক গরিব ব্রাহ্মণ ছিলেন তাঁর ঘরে ব্রাহ্মণী ছিলেন আর ছোট একটি মেয়ে ছিল কিন্তু তাদের খেতে দেবার জন্য কিছু ছিল না ব্রাহ্মণ অনেক কষ্টে ভিক্ষে করে যা আনতেন একবেলা ভালো করে না খেতেই তা ফুরিয়ে যেত সব দিন আবার তাও মিলত না

উত্তর : এক গরিব ব্রাহ্মণ ছিলেন। তাঁর ঘরে ব্রাহ্মণী ছিলেন, আর ছোট একটি মেয়ে ছিল। কিন্তু তাদের খেতে দেবার জন্য কিছু ছিল না। ব্রাহ্মণ অনেক কষ্টে ভিক্ষে করে যা আনতেন একবেলা ভালো করে না খেতেই তা ফুরিয়ে যেত। সব দিন আবার তাও মিলত না।

১১। আমি প্রথমে তাহাকে চিনিতে পারিলাম না তাহার সে ঝুলি নাই সে লম্বা চুল নাই শরীরে তাহার পূর্বের মতো তেজ নাই অবশেষে তাহার হাসি দেখিয়া তাহাকে চিনিলাম কহিলাম কিরে রহমত কবে আসিলি

উত্তর : আমি প্রথম তাহাকে চিনিতে পারিলাম না। তাহার সে ঝুলি নাই, সে লম্বা চুল নাই, শরীরে তাহার পূর্বের মতো তেজ নাই। অবশেষে তাহার হাসি দেখিয়া তাহাকে চিনিলাম। কহিলাম, “কিরে রহমত! কবে আসিলি?”

১২। সত্যি অবাক হয়ে যাই মোহনলাল ইংরেজ সভ্য জাতি বলেই শুনেছি তারা শৃঙ্খলা জানে শাসন মেনে চলে কিন্তু এখানে ইংরেজরা যা করছে তা স্পষ্ট রাজদ্রোহ একটি দেশের শাসন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে তারা অস্ত্র ধরছে, আশ্চর্য

উত্তর : সত্যি অবাক হয়ে যাই মোহনাল, ইংরেজ সভ্য জাতি বলেই শুনেছি। তারা শৃঙ্খলা জানে, শাসন মেনে চলে। কিন্তু এখানে ইংরেজরা যা করছে তা স্পষ্ট রাজদ্রোহ। একটি দেশের শাসন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে তারা অস্ত্র ধরছে, আশ্চর্য!


মন্তব্য