kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী প্রাথমিক বিজ্ঞান

পাঠ প্রস্তুতি

দিলারা ইয়াছমীন, সহকারী শিক্ষক আইডিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মতিঝিল, ঢাকা   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মহাবিশ্ব

 

সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন :

১। গ্যালাক্সি কাকে বলে?

উত্তর : সূর্যের মতো অনেক নক্ষত্র মিলে যে বিশাল একেকটি সমাবেশ গঠিত হয়, তাকে গ্যালাক্সি বলে।

সুতরাং গ্যালাক্সি হলো গ্রহ ও নক্ষত্রের এক বৃহৎ দল।

২। জ্যোতিষ্ক কাকে বলে?

উত্তর : আকাশে দিনের সূর্য, রাতের চাঁদ এবং অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ঝিকমিক করা আলোকবিন্দুকে একত্রে জোতিষ্ক বলে।

৩। মহাবিশ্ব কী?

উত্তর : মহাকাশে বিদ্যমান নক্ষত্র, ছায়াপথ, নীহারিকা, গ্যালাক্সি, ধূমকেতু ইত্যাদি জ্যোতিষ্কমণ্ডল নিয়ে গঠিত জগেক মহাবিশ্ব বলে।

৪। আহ্নিক গতি কাকে বলে?

উত্তর : নিজ অক্ষের ওপর পৃথিবীর ঘূর্ণায়মান গতিকে আহ্নিক গতি বলে।

৫। ঋতু পরিবর্তনের কারণ কী?

উত্তর : পৃথিবীতে বার্ষিক গতির কারণে ঋতু পরিবর্তন হয়।

৬। গ্রহ ও উপগ্রহের মধ্যে পার্থক্য কী?

উত্তর : গ্রহ ও উপগ্রহের মধ্যে পার্থক্য নিচে বর্ণনা করা হলো—

গ্রহ : মহাবিশ্বের যে বিশালাকার বস্তুগুলো পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরে তা-ই গ্রহ।

উপগ্রহ : মহাকাশের যে বস্তু গ্রহের চারদিকে ঘোরে তা-ই উপগ্রহ।

৭। নক্ষত্র কাকে বলে?

উত্তর : যেসব জ্যোতিষ্কের নিজস্ব আলো আছে তাদের নক্ষত্র বলে। সূর্যের নিজস্ব আলো আছে বলে সূর্য একটি নক্ষত্র।

৮। চাঁদ ও সূর্য সমান দেখায় কেন?

উত্তর : পৃথিবী থেকে চাঁদ ও সূর্যের আকার ভিন্ন হলেও দূরত্বের পার্থক্যের কারণে দুটোই সমান দেখায়।

৯। বার্ষিক গতি কাকে বলে?

উত্তর : সূর্যের চারদিকে নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৃথিবীর আবর্তনকে বার্ষিক গতি বলে।

১০। উত্তর গোলার্ধে কখন দিনের চেয়ে রাত বড় হয়?

উত্তর : উত্তর গোলার্ধে শীতকালে দিনের চেয়ে রাত বড় হয়।

১১। গ্রীষ্মকালে সূর্য কোথায় অবস্থান করে?

উত্তর : গ্রীষ্মকালে সূর্য অপেক্ষাকৃত কাছে অবস্থান করে।

১২। মহাকাশ সম্পর্কিত গবেষণাকে কী বলে?

উত্তর : মহাকাশ সম্পর্কিত গবেষণাকে জ্যোতির্বিজ্ঞান বলে।

১৩। অক্ষ কী?

উত্তর : অক্ষ হলো কোনো বস্তুর কেন্দ্র বরাবর ছেদকারী কাল্পনিক রেখা।

১৪। পৃথিবী থেকে সূর্যের দূরত্ব কত?

উত্তর : পৃথিবী থেকে সূর্যের দূরত্ব প্রায় ১৫,০০,০০,০০০ কিলোমিটার।

১৫। চাঁদের বিভিন্ন দশার কারণ কী?

উত্তর : পৃথিবীকে আবর্তনের সময় পৃথিবীর দিকে মুখ করা চাঁদের আলোকিত অংশের পরিমাণ ভিন্ন ভিন্ন হওয়ায় চাঁদের বিভিন্ন দশার সৃষ্টি হয়।

 

কাঠামোবদ্ধ প্রশ্ন :

প্রশ্ন : গ্যালাক্সি কী? সূর্য নক্ষত্রের চারটি বৈশিষ্ট্য লেখো।

উত্তর : সূর্যের মতো অনেক নক্ষত্র মিলে যে বিশাল একেকটি সমাবেশ গঠিত হয়, তাকে গ্যালাক্সি বলে। সুতরাং গ্যালাক্সি হলো গ্রহ ও নক্ষত্রের এক বৃহৎ দল।

সূর্য নক্ষত্রের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য রয়েছে। নিচে তার চারটি বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হলো—

i সূর্য আমাদের নিকটতম নক্ষত্র।

ii সূর্যের তাপ ও আলো আছে।

iii সূর্যকে কেন্দ্র করেই পৃথিবী গতিশীল।

iv সূর্য একটি বিশাল গ্যাসপিণ্ড। সূর্যে হাইড্রোজেন ও হিলিয়াম গ্যাস আছে।

প্রশ্ন : রিপনদের গ্রামে বছরে ছয়টি ঋতু পরিবর্তিত হয়। ঋতুর এই পরিবর্তন কোন গতির কারণে হয়। পৃথিবীর এ গতি না থাকলে কী হতো। এ গতির তিনটি বৈশিষ্ট্য লেখো।

উত্তর : ঋতুর পরিবর্তন বার্ষিক গতির কারণে হয়। পৃথিবীর বার্ষিক গতি না থাকলে ঋতু পরিবর্তন হতো না। দিন-রাত ছোট-বড় হতো না, সব সময় দিন ও রাত সমান থাকত।

বার্ষিক গতির তিনটি বৈশিষ্ট্য হলো—

i. এ গতিতে পৃথিবী সূর্যকে উপবৃত্তাকার পথে প্রদক্ষিণ করে।

ii. এ গতির ফলে পৃথিবী সূর্যের চারদিকে একবার ঘুরে আসতে ৩৬৫ দিন ৬ ঘণ্টা সময় লাগে

iii. এ গতির ফলে সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব কখনো বাড়ে আবার কখনো কমে।

প্রশ্ন : মহাবিশ্ব সম্পর্কে তোমার ধারণা পাঁচটি বাক্যে লেখো।

উত্তর :

মহাবিশ্ব সম্পর্কে পাঁচটি বাক্য হলো—

i. পৃথিবী সৌরজগতের একটি অন্যতম গ্রহ।

ii. মহাবিশ্বের কোনো সীমা-পরিসীমা নেই।

iii. মহাবিশ্বে অসংখ্য ছায়াপথ রয়েছে।

iv. প্রতিটি ছায়াপথে অসংখ্য নক্ষত্র রয়েছে।

v. গ্যালাক্সি এবং এদের মধ্যবর্তী স্থান মিলে গঠিত হয়েছে মহাবিশ্ব।

প্রশ্ন : পূর্ণিমার রাতে চাঁদকে কিরূপ দেখায়। চাঁদের দশা কী? চাঁদের দশা সম্পর্কে তিনটি বাক্য লেখো।

উত্তর : পূর্ণিমার রাতে চাঁদকে পূর্ণাঙ্গ উজ্জ্বল গোলাকার থালার মতো দেখায়।

চাঁদের দশা : চাঁদ কখনো বড় আবার কখনো ছোট এবং কখনো গোলাকার বা অর্ধ-গোলাকার মনে হয়। চাঁদের উজ্জ্বল অংশের আকৃতির এ রূপ পরিবর্তনশীল অবস্থাকে চাঁদের দশা বলে।


মন্তব্য