kalerkantho


রচনা

পঞ্চম শ্রেণি : বাংলা

লুত্ফা বেগম, সিনিয়র শিক্ষক, বিএএফ শাহীন কলেজ, কুর্মিটোলা, ঢাকা   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আমাদের দেশ/প্রিয় স্বদেশ

 

ভূমিকা : আমাদের দেশের নাম বাংলাদেশ। বিচিত্র রূপের লীলাভূমি আমাদের এই দেশ। অরণ্য, নদী, শিলাময় উঁচু পাহাড় নিয়ে এ দেশটি। সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামলা এ দেশের রূপে মানুষ নানাভাবে মুগ্ধ হচ্ছে। এক কথায় প্রকৃতি তার অকৃপণ হাতে অপরূপ সৌন্দর্য আর মাধুর্য ছড়িয়ে সমৃদ্ধ করেছে এ দেশকে।

দেশের আয়তন ও সীমারেখা : বাংলাদেশ একটি ক্ষুদ্র আয়তনের জনবহুল দেশ। এ দেশের আয়তন ১,৪৭,৫৭০ বর্গকিলোমিটার। এ দেশের মোট আয়তনের ১৭ শতাংশ বনভূমি। ২০১৫ সালে ছিটমহল বিনিময় চুক্তি বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের আয়তন আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশের পূর্বে ভারতের ত্রিপুরা ও মিয়ানমার, উত্তরে আসাম ও মেঘালয়, পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর অবস্থিত।

রাজধানী : বাংলাদেশের রাজধানীর নাম ঢাকা। মোগল আমল থেকেই ঐতিহ্যে এ শহরটি বিখ্যাত।

বিভাগীয় শহর : বাংলাদেশে মোট আটটি বিভাগীয় শহর রয়েছে। এগুলো হলো—ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা, চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ।

প্রধান প্রধান নদ-নদী : নদীমাতৃক বাংলাদেশের ওপর দিয়ে অসংখ্য নদ-নদী প্রবাহিত হয়েছে। পদ্মা, মেঘনা, যমুনা, ব্রহ্মপুত্র ও কর্ণফুলী এ দেশের প্রধান নদ-নদী। ছোট-বড় সব নদ-নদীই উত্তর থেকে দক্ষিণে প্রবাহিত হয়ে বঙ্গোপসাগরে গিয়ে পড়েছে।

জনসংখ্যা ও ভাষা : বাংলাদেশ ক্ষুদ্র আয়তনের একটি জনবহুল দেশ। এ দেশের মোট জনসংখ্যা প্রায় ১৬ কোটির মতো। পৃথিবীতে জনসংখ্যার দিকে থেকে বাংলাদেশ অষ্টম। বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। এ দেশের ১৬ কোটি লোকের মুখের ভাষা বাংলা। সারা পৃথিবীতে প্রায় ৩০ কোটি লোক বাংলায় কথা বলে। ভাষাভাষী জনসংখ্যার দিকে থেকে বাংলা পৃথিবীর চতুর্থ বৃহৎ মাতৃভাষা। এ ছাড়া এ দেশের বিভিন্ন নৃগোষ্ঠীর নিজস্ব ভাষা রয়েছে।

জাতীয় প্রতীকসমূহ : আমাদের দেশে বেশ কিছু জাতীয় প্রতীক রয়েছে, যা আমাদের দেশের নিজস্ব পরিচয় বহন করে। যেমন—আমাদের জাতীয় ফুল শাপলা, জাতীয় ফল কাঁঠাল, জাতীয় মাছ ইলিশ, জাতীয় পশু বাঘ ও জাতীয় পাখি দোয়েল।

প্রকৃতি ও পরিবেশ : বাংলাদেশের প্রকৃতি বড়ই বৈচিত্র্যময়। এর উত্তরে ভাওয়াল ও মধুপুর গড়ের গেরুয়া মাটিতে রয়েছে সারি সারি গজারি গাছ। দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর ও সুন্দরবন, পূর্বে পাহাড়ের কোলঘেঁষে সাজানো চা-বাগান, এরই মাঝে বিশাল ছায়াবৃক্ষ। পশ্চিমে ধু-ধু প্রান্তরে রুক্ষতার মাঝেও দেখা যায় সারি সারি আম্রকানন, আখের খেত কিংবা পানের বরজ। কক্সবাজারের সমুদ্র উপকূল বিশ্বের সর্ববৃহৎ সৈকত। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিশাল এলাকাজুড়ে সীমাহীন সৌন্দর্যের সমাবেশ। আর প্রকৃতির এই অপরূপ সৌন্দর্য নিয়েই গড়ে উঠেছে এ দেশের পরিবেশ।

উপসংহার : বাংলাদেশ চিরসবুজের দেশ। প্রাকৃতিক লীলাভূমি আর বিচিত্র মানুষের সমারোহে এ দেশ যথার্থ রূপসী বাংলাদেশ। তাই তো কবি বলেছেন—

বাড়ি বাগান পাখ-পাখালি

     সব মিলে এক ছবি,

নেই তুলি নেই রঙ, তবুও

আঁকতে পারি সবই।

 (স্বদেশ-আহসান হাবীব)


মন্তব্য