kalerkantho


নবম ও দশম শ্রেণি : অর্থনীতি

সৃজনশীল প্রশ্ন

তাহেরা খানম,সহকারী শিক্ষক,ইসলামিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চতুর্থ অধ্যায় উৎপাদন ও সংগঠন

 

উদ্দীপকটি পড়ে নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

রফিক সাহেব একজন দক্ষ উদ্যোক্তা। তিনি নিজস্ব ভূমির ওপর শ্রমিক কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি দ্বারা কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করেন। তিনি এসব কৃষিজাত দ্রব্য বাজারজাতকরণের মাধ্যমে বিশ্ববাজারে রপ্তানি করে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

 

ক. এক শ্রমঘণ্টা কী?

খ. প্রান্তিক উত্পাদন কী?

গ. রফিক সাহেব কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করতে যেসব জিনিস ব্যবহার করেছেন, সেগুলোকে অর্থনীতিতে কী বলে? ব্যাখ্যা করো।

ঘ. উত্পাদনমুখী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রফিক সাহেবের মতো দক্ষ উদ্যোক্তা আবশ্যক—উক্তিটির যথার্থতা মূল্যায়ন করো।

 

উত্তর :

ক. একজন শ্রমিকের এক ঘণ্টার কাজকে এক শ্রমঘণ্টা বলে।

খ. এক একক উত্পাদনের উপকরণ পরিবর্তনের (অর্থাৎ শ্রম বা মূলধন) ফলে উত্পাদনের যে পরিবর্তন হয়, তাকে প্রান্তিক উত্পাদন বলে।

শ্রম ব্যবহার করলে শ্রমের এবং মূলধন ব্যবহার করলে মূলধনের প্রান্তিক উত্পাদন বলা হয়। অর্থাৎ উপকরণ বা শ্রমিক নিয়োগের ফলে মোট উত্পাদনের যে পরিবর্তন হয়, তাকে প্রান্তিক উত্পাদন বলে। যেমন—শ্রম উপকরণ ১০ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ২০ হলে মোট উত্পাদন বৃদ্ধি পেয়ে ১০ থেকে ২২ কুইন্টাল হয়। এখানে প্রান্তিক উত্পাদন হচ্ছে (২২-১০) = ১২ কুইন্টাল। একইভাবে উপকরণ নিয়োগ ৩০ কুইন্টাল। এখানে প্রান্তিক উত্পাদন হচ্ছে (৩০-২২) = ৮ কুইন্টাল।

গ. রফিক সাহেব কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করতে যেসব জিনিস ব্যবহার করেছেন, সেগুলোকে অর্থনীতিতে উত্পাদনের উপকরণ বলে।

কোনো কিছু উত্পাদনের জন্য যেসব দ্রব্য বা সেবাকর্ম প্রয়োজন হয়, সেগুলোকে উত্পাদনের উপকরণ বলে।

রফিক সাহেব কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করতে ভূমি, শ্রম, মূলধন ও সংগঠন প্রভৃতি ব্যবহার করেছেন। এগুলো উত্পাদনের উপকরণ। উত্পাদনে সাহায্য করে এমন সব প্রাকৃতিক সম্পদকে ভূমি বলে। উত্পাদন কাজে ব্যবহৃত মানুষের সব ধরনের শারীরিক ও মানসিক পরিশ্রমকে শ্রম বলে। মানুষ কর্তৃক উত্পাদিত একমাত্র উত্পাদনের উপকরণ হলো মূলধন। উত্পাদন ক্ষেত্রে ভূমি, শ্রম, মূলধন ইত্যাদি উপকরণের মধ্যে উপযুক্ত সমন্বয় ঘটিয়ে উত্পাদন কাজ পরিচালনা করাকে সংগঠন বলে। রফিক সাহেব নিজস্ব ভূমির ওপর কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করেছেন। কৃষিজাত পণ্য উত্পাদন করতে গিয়ে তিনি শ্রমিক কাজে লাগিয়েছেন। তিনি যন্ত্রপাতি দ্বারা চাষাবাদ ও কৃষিকাজের অন্যান্য কাজ সমাধা করেছেন। তিনি যেসব দ্রব্য উত্পাদন করেছেন, তা বাজারজাতকরণের মাধ্যমে বিশ্ববাজারে রপ্তানি করেছেন। এ ক্ষেত্রে তিনি সংগঠকের ভূমিকা পালন করেছেন। তাই বলা যায় যে তিনি কৃষিজাত দ্রব্য উত্পাদন করতে উত্পাদনের উপকরণগুলো ব্যবহার করেছেন।

ঘ. উত্পাদনমুখী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রফিক সাহেবের মতো দক্ষ উদ্যোক্তা আবশ্যক—উক্তিটি যথার্থ।     

উত্পাদনের ক্ষেত্রে যিনি সমন্বয় ঘটান এবং কাজ পরিচালনা করেন, তাঁকে উদ্যোক্তা বলা হয়। উদ্যোক্তার যোগ্যতার ওপর নির্ভর করে কোনো কিছু উত্পাদনের সফলতা।    

রফিক সাহেব একজন দক্ষ উদ্যোক্তা। তাই তিনি উত্পাদন কাজে সফলতা লাভ করেছেন এবং উত্পাদিত দ্রব্যসামগ্রী বাজারজাতকরণের মাধ্যমে বিশ্ববাজারে রপ্তানি করে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। উদ্যোক্তাকে সংগঠক বা সমন্বয়কারীও বলা হয়। উদ্যোক্তা সাধারণত একটি সংগঠন বা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে থাকেন। তিনি কোনো কিছু উত্পাদনের পরিকল্পনা প্রণয়ন, ভূমি, শ্রম, মূলধন ইত্যাদি একত্রীকরণ ও তাদের মধ্যে সমন্বয় সাধন এবং ঝুঁকি নিয়ে উত্পাদন কাজ পরিচালনা করেন। একজন উদ্যোক্তা উত্পাদনের উপকরণগুলোর ব্যবহার, উত্পাদন পরিকল্পনা, যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ বণ্টন, উত্পাদিত পণ্য বিক্রির জন্য বাজারজাতকরণ প্রভৃতি কাজ করে থাকেন। উদ্যোক্তা দক্ষ না হলে এসব কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করা সম্ভব নয়। আর এসব কাজ সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত না হলে আশানুরূপ উত্পাদন সম্ভব নয়। উপকরণ সংগ্রহ থেকে বাজারে নিয়ে যাওয়া পর্যন্ত সব কাজ তদারকির জন্য দক্ষ উদ্যোক্তা প্রয়োজন। কেননা এসব কাজ দক্ষতার সঙ্গে তদারকি করতে না পারলে নির্দিষ্ট পরিমাণ উপকরণ থেকে সর্বোচ্চ পরিমাণ উত্পাদন পাওয়া সম্ভব নয়।

তাই বলা যায় যে উত্পাদনমুখী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রফিক সাহেবের মতো দক্ষ উদ্যোক্তা একান্ত আবশ্যক।


মন্তব্য