kalerkantho


নতুন সংসদের যাত্রা শুরু

সরকারের জবাবদিহি গুরুত্ব পাক

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



নতুন সংসদের যাত্রা শুরু

গত বুধবার থেকে একাদশ জাতীয় সংসদের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলো। ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও মো. ফজলে রাব্বী মিয়া এবারও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জাতীয় সংসদের স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন। সংসদের প্রথম অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে জাতিকে আরো ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ বলেছেন, গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা, আইনের শাসন ও অব্যাহত আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের মতো গড়ে তোলার সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। জাতীয় ঐকমত্য ছাড়া শান্তি ও সমৃদ্ধি স্থায়ী রূপ পেতে পারে না উল্লেখ করে তিনি দল-মত-পথের পার্থক্য ভুলে জাতির গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা ত্বরান্বিত করার আহ্বান জানিয়েছেন। নতুন সরকারকে তার দায়িত্ব সম্পর্কেও সচেতন করেছেন রাষ্ট্রপতি। আশা করেছেন, মানবাধিকার, সুশাসন ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা, গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিক রূপ এবং সমাজের সর্বস্তরে প্রত্যক্ষ জনসম্পৃক্ততার মধ্য দিয়ে কল্যাণমূলক রাষ্ট্র গঠন সম্ভব হবে। সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বক্তৃতায় গণতান্ত্রিক ধারায় সমালোচনা সব সময় গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন। বিরোধী দলকে তিনি এই বলে আশ্বস্ত করেছেন যে সরকারি দল বিরোধী দলকে সমালোচনায় বাধা দেবে না। অন্যদিকে বিরোধীদলীয় উপনেতা ও জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেছেন, সংখ্যায় কম হলেও তাঁরা সরকারের ভুলত্রুটি তুলে ধরবেন।

একটি রাষ্ট্রের এগিয়ে চলার পথে জাতীয় সংসদের গুরুত্ব অপরিসীম। আইনপ্রণেতা হিসেবে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে যাঁরা নির্বাচিত হয়েছেন, তাঁদের ওপর গুরুদায়িত্ব অর্পিত হয়েছে। আগামী পাঁচ বছর তাঁরা দেশ ও জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করবেন। গণতান্ত্রিক শাসন পদ্ধতিতে সংসদই সব ক্ষমতার উৎস। এখানে সরকারকেও জাতীয় সংসদের কাছে জবাবদিহি করতে হয়। সরকারের সব ধরনের কর্মকাণ্ড নিয়ে সংসদে আলোচনা-সমালোচনা হবে। সংসদ কার্যকর থাকলে সরকারও চাপের মধ্যে থাকে। বিশেষ করে শক্তিশালী বিরোধী দল সংসদে থাকলে সরকারের সমালোচনা হবে। তাতে সরকারও সঠিক পথ খুঁজে পাবে। শক্তিশালী বিরোধী দল বলতে শুধু যে সংখ্যাধিক্য বোঝানো হবে, তা নয়। সংখ্যায় কম থাকলেও বিরোধী দল যদি গঠনমূলক সমালোচনা করে, শুধুই বিরোধিতার স্বার্থে বিরোধিতা না করে, তাহলে সংসদ অধিকতর কার্যকর হবে। সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা বলেছেন, তাঁরা সংসদে কথা বলবেন, সরকারের ভুলত্রুটি তুলে ধরবেন। অন্যদিকে গণতান্ত্রিক ধারায় সমালোচনা সব সময় গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিরোধী দলের সমালোচনায় বাধা দেওয়া হবে না।

আমরা আশা করি, সরকারি ও বিরোধী দলের সব সদস্যের উপস্থিতিতে একাদশ সংসদ প্রাণবন্ত হবে। কার্যকর একটি সংসদ হবে জনগণের আশা ও আকাঙ্ক্ষার প্রাণকেন্দ্র।

 



মন্তব্য