kalerkantho


পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা

অবৈধ পাথর উত্তোলন বন্ধ করুন

২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের ফলে সিলেটের পর্যটনকেন্দ্র জাফলং ধ্বংসের মুখে পড়েছে। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে সেখানে বোমা মেশিন ব্যবহার করে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে।

গত এক মাসে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে মারা গেছে সাত শ্রমিক। পাথরখেকোরা প্রকৃতির লীলাভূমি জাফলংকে ধ্বংসের মুখে এনে ফেললেও রহস্যজনক কারণে প্রশাসন নির্লিপ্ত। নেপথ্যে রাজনৈতিক প্রশ্রয়েরও অভিযোগ রয়েছে। অবৈধ পাথর উত্তোলনকারীদের হাতে ধ্বংস হয়ে গেছে অনেক প্রাকৃতিক টিলা।

জাফলংয়ে বোমা মেশিন বন্ধের নির্দেশনা ছাড়াও ২০১২ সালে উচ্চ আদালত এলাকাটিকে প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন ঘোষণার নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু এর পরও অপতত্পরতা থেমে নেই। কোনো নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। পরিবেশ ধ্বংসের অপতত্পরতা সারা দেশেই কমবেশি চলে। তবে জাফলংয়ের নৈরাজ্য যেন নজিরবিহীন।

দেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অন্যতম স্পটটি ধ্বংস করার জন্য যেন সবাই উঠেপড়ে লেগেছে। অথচ জাফলং আমাদের জাতীয় সম্পদ হিসেবেই বিবেচিত। পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে এর রয়েছে বিপুল সম্ভাবনা। পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে এখানে যেসব ব্যবস্থা নেওয়া উচিত ছিল, তার কিছুই করা হয়নি। পরিবেশবাদীরা তাদের মতো করে প্রতিবাদ জানালেও স্থানীয় প্রশাসন তাতে কর্ণপাত করছে বলে মনে হয় না। জাফলংয়ের পরিবেশ ও প্রতিবেশগত সুরক্ষায় অবিলম্বে কিছু ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। সবার আগে পাথর ব্যবসায়ীদের প্রতি রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক নমনীয়তা ও সমর্থন প্রত্যাহার করতে হবে। প্রশাসন ও পুলিশের সহায়তায় অবিলম্বে বোমা মেশিন অপসারণের ব্যবস্থা না নিলে পাথর ব্যবসায়ীদের অবৈধ কাজ বন্ধ করা যাবে না। পাথর ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া গেলে তাদের নিরস্ত করা যেত। আদালতের নির্দেশনা সত্ত্বেও কেন তা মানা হয়নি বা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি, তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণও অনিবার্য হয়ে পড়েছে।

দেশজুড়েই পরিবেশ ধ্বংসের প্রতিযোগিতা চলছে। বন উজাড় হচ্ছে। নদী দূষিত হচ্ছে। যানবাহনের ক্ষতিকর ধোঁয়ায় দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। এসবের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা দৃশ্যমান নয়। সিলেটের পাথর উত্তোলন শুধু পরিবেশেরই ক্ষতি করছে না, মানুষের জীবনও বিপন্ন করছে। পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে জাফলং পর্যটকদের আগ্রহ হারালে তা হবে দেশের জন্য বড় ক্ষতি। পাথরকোয়ারি থেকে অবৈধ পাথর উত্তোলন বন্ধ করতে না পারলে যে পরিবেশ বিপর্যয় ঘটবে, তা হবে ভয়াবহ। কাজেই পরিবেশের স্বার্থে অবিলম্বে পাথর উত্তোলন বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।


মন্তব্য