kalerkantho


স্বাস্থ্য সংবাদ

সময়ের আগে প্রসবে হার্টের অসুখের ঝুঁকি বাড়ে

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সাধারণভাবে মাতৃগর্ভে সন্তানের ৩৭ সপ্তাহ থেকে ৩৯ সপ্তাহ থাকার কথা। কিন্তু সিজারিয়ান সেকশন করার সুবিধার্থে, মা-বাবার পছন্দ অনুসারে, গর্ভে সন্তানের অবস্থানজনিত জটিলতার জন্য, মায়ের কোনো আকস্মিক অসুখে বহু ক্ষেত্রে আগে ডেলিভারি করানো হয়।

সাধারণভাবে প্রতি ১০টি শিশুর একটির জন্ম ৩৭ সপ্তাহ পূর্ণ হওয়ার আগেই হয়। যদিও ডাক্তারি ভাষায় বলা হয়, বাচ্চার বয়স ৩৪ সপ্তাহ পার হলে তার ফুসফুস বাতাস থেকে শ্বাস নেওয়ার জন্য মোটামুটি উপযোগী হয়; কিন্তু এর মানে এই নয় যে ৩৪ সপ্তাহের পর জন্ম দিলেই সে সুস্থ থাকবে। অনেক ক্ষেত্রেই আগে জন্মানো বাচ্চারা শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধিতার শিকার হতে পারে, মারাও যেতে পারে। এর বড় কারণ মস্তিষ্ক সাধারণত মাতৃগর্ভেও শেষ সপ্তাহে গিয়ে পরিপূর্ণতা পায়। শেষের দিকে গিয়ে লিভার ও ফুসফুস সম্পূর্ণভাবে তৈরি হয়। তাদের মায়েরাও বিপদে থাকে। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, মাতৃগর্ভে শিশু পূর্ণ সময় না থাকলে জন্মদানকারী মায়ের হার্টের অসুখের ঝুঁকি বাড়ে। গবেষকরা দেখেছেন, যাদের সময়ের আগে বাচ্চা জন্মদানের ইতিহাস আছে পরবর্তী জীবনে তারা হার্টের অসুখে বেশি আক্রান্ত হয়েছে। গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের জার্নাল সার্কুলেশনে। পরিচালনা করেছে বোস্টনের কনরস সেন্টার ফর উইমেন হেলথ অ্যান্ড জেনেটিক বায়োলজি বিভাগ। দেখা গেছে, ৩২ সপ্তাহ হওয়ার আগেই যাদের গর্ভস্থ সন্তানের ডেলিভারি হয়েছে তাদের হার্টের অসুখ অন্য নারীদের তুলনায় দ্বিগুণ হয়েছে। এর আগে যাদের সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়েছে তাদের ঝুঁকি ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বেশি।

 

সোহানী রাগিব

মেডিক্যাল নিউজ টুডে থেকে


মন্তব্য