kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আপনার প্রশ্ন বিশেষজ্ঞের উত্তর

স্ত্রীরোগবিষয়ক বাছাই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ত্রীরোগ বিভাগের অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি দাশ

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আপনার প্রশ্ন বিশেষজ্ঞের উত্তর

আমার বয়স ২৬ বছর। উচ্চতা ৫ ফুট ২ ইঞ্চি।

ওজন ৫৭ কেজি। আমি অবিবাহিত। অনার্স ফাইনাল ইয়ারে পড়ছি। সমস্যা হলো, চার মাস ধরে মাসিকের সময়টা নির্দিষ্ট হচ্ছে না। ৮ দিন বা ১২ দিন পর পর হচ্ছে। মাসিক নিয়মিত করার জন্য আমি কী করব?

সায়মা আক্তার সাতরাস্তা, বগুড়া।

এই সমস্যাকে ডাক্তারি ভাষায় অ্যাবনর্মাল ইউটেরাইন ব্লিডিং বলে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এর কোনো কারণ পাওয়া যায় না। তবে তলপেটের একটা আলট্রাসনোগ্রাফি করতে পারেন। সঙ্গে রক্তের টিএসএইচ দেখে নেওয়া ভালো। যদি রিপোর্টগুলো ভালো থাকে, তাহলে ট্যাবলেট অরগাট্রিল ৫ মিলিগ্রাম একটি করে দিনে দুইবার মাসিকের ১৬তম দিন থেকে পর পর ১০ দিন সেবন করবেন। এভাবে চলবে তিন-চার মাস।

 

আমার বয়স ২২ বছর। দেড় মাস আগে কন্যাসন্তান প্রসব করি, যা নর্মাল ডেলিভারির মাধ্যমে হয়। কিন্তু তখন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আমাকে কপারটিকা পরিয়ে দেওয়া হয়। বাসায় আসার পর থেকে খুব অস্বস্তিতে আছি। আমি কি কপারটিকা খুলে ফেলতে পারব?

জহুরা বেগম লালপুর, নাটোর।

কপারটিকা পরার পর সাময়িক কিছু অসুবিধা হতে পারে। তবে আপনার জন্য কপারটিকা ভালো। এতে জন্ম নিয়ন্ত্রণের দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থা নেওয়া যায় এবং নিরাপদও।

 

আমার বয়স ১৯ বছর। উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি। ওজন ৫৪ কেজি। প্রচুর পরিমাণে সাদা স্রাব যায় আর মাসিকের সময় অনেক রক্তক্ষরণ হয়; মাঝে মাঝে চাকা চাকা রক্ত যায়। কোমর ও তলপেটে প্রচুর ব্যথা হয়। তখন বিউটাপেন বা প্যারাসিটামলজাতীয় ওষুধ খেলে উপকার পাই। কী করব?

বিলকিস বানু শ্রীনগর, মুন্সীগঞ্জ।

তলপেটের আলট্রাসনোগ্রাফি ও রক্তের টিএসএইচ পরীক্ষা যদি ঠিক থাকে তাহলে ট্যাবলেট এইচপিআর ডিএস অথবা ক্যাপসুল জ্যামিক মাসিক চলাকালে দু-তিন দিন সেবন করে দেখতে পারেন। এ ছাড়া প্রকৃত কারণ জানার জন্য অবশ্যই গাইনি বিশেষজ্ঞকে দেখাতে হবে।


মন্তব্য