kalerkantho


স্বর্ণালি দিনের গানে মুগ্ধ শ্রোতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



স্বর্ণালি দিনের গানে মুগ্ধ শ্রোতা

মিলনায়তনের গেট সাজানো হয়েছে সিনেমা হলের আদলে। ভেতরে ঢুকতেই শোনা গেল পুরনো দিনের চলচ্চিত্রের গান। ষাট ও সত্তর দশক ছিল বাংলা চলচ্চিত্র সংগীতের স্বর্ণালি যুগ। অসংখ্য কালজয়ী গান এ সময় রচিত ও গীত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে ঘুরে ফিরে গীত হলো সেই গানগুলো। কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তনে গতকাল এ সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে গানের দল ‘জলতরঙ্গ’।

আধুনিক গান নিয়ে কাজ করছে জলতরঙ্গ। সংগঠনটির চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল আয়োজিত হয় ভিন্নধর্মী সংগীতানুষ্ঠান। ‘গান হয়ে এলে’ শীর্ষক এ সংগীতানুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মাসুদা খান ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন তপন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পরিবেশিত হয় ‘সুতরাং’ সিনেমার গান ‘এই যে আকাশ, এই যে বাতাস’। গানে গানে যেন মেতে ওঠে গোটা মিলনায়তন। এর পর একে একে পরিবেশিত হয় ‘ফুলের কানে ভ্রমর এসে’, ‘পিচ ঢালা এ পথটারে ভালোবেসেছি’, ‘দুটি পাখি একটি ছোট্ট নীড়ে/ কেউ তো কারো পানে চাহে না ফিরে’ ইত্যাদি গান।

শিল্পাঙ্গনে রা কাজলের চিত্র প্রদর্শনী

একদিকে স্বার্থের খেলা; অন্যদিকে জানার স্বাধীনতার লড়াই। এ দুইকে এক করে নিজের নতুন প্রদর্শনী সাজিয়েছেন শিল্পী রা কাজল। গতকাল শুক্রবার থেকে রাজধানীর লালমাটিয়ার শিল্পাঙ্গন গ্যালারিতে শুরু হয়েছেন তাঁর চিত্র প্রদর্শনী ‘গ্রিডম অ্যান্ড ফ্রি ফেইসেস’। যার উদ্বোধন করেন বরেণ্য শিক্ষাবিদ, সাহিত্যিক ও চিত্রসমালোচক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন শিল্পী রা কাজল ও শিল্পাঙ্গন গ্যালারির পরিচালক রুমী নোমান।

গ্রিডম সিরিজের চিত্রকর্মগুলো পেনসিল ও জলরংয়ে আঁকা। অন্যদিকে ফ্রি ফেইসেস চিত্রকর্মগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে ইংক রং। ৩৪টি চিত্রকর্ম নিয়ে এই প্রদর্শনী চলবে ২৮ মার্চ পর্যন্ত প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।



মন্তব্য