kalerkantho


দুর্ভোগ

জয়দেবপুর বাস টার্মিনাল যেন ভাগাড়

যত্রতত্র মলমূত্র ও আবর্জনা রাতে টার্মিনাল থাকে নেশাখোর ও মাদক বিক্রেতাদের দখলে

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



জয়দেবপুর বাস টার্মিনাল যেন ভাগাড়

গাজীপুর শহরের জয়দেবপুর বাসস্ট্যান্ডে আবর্জনার স্তূপ। ছবি : কালের কণ্ঠ

যত্রতত্র মলমূত্র। ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে আবর্জনা। বের হচ্ছে দুর্গন্ধ। দেখলে মনে হয় ভাগাড়। এটি গাজীপুর শহরের জয়দেবপুর বাস টার্মিনালের চিত্র। গতকাল বৃহস্পতিবার গাজীপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, বিআইডিসি সড়ক ঘেঁষে দোতলা টার্মিনাল ভবন। ভবনের দরজা-জানালা নেই। ভেতরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে মলমূত্র। ভবনের উত্তর দিকে স্তূপ হয়ে আছে বাসাবাড়ি ও দোকানপাটের নানা আবর্জনা। সেখান থেকে ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। এ ছাড়া শুধু দক্ষিণ দিক বাদে সবখানেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ময়লা ও কাদাপানি। আবর্জনা ও কাদাপানির মধ্যেই রাখা আছে বাস।

বলাকা পরিবহনের চালক আলী হোসেন জানান, ‘এমনিতেই প্রয়োজনের তুলনায় টার্মিনালটি অনেক ছোট। আশপাশের দোকান ও বাড়িঘরের ময়লা টার্মিনাল ভবনের উত্তরে ফেলা হয়। দীর্ঘদিন পরিষ্কার না করায় আবর্জনার স্তূপ হয়ে আছে। পচে গলে বিশ্রী দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। গন্ধে টেকাই কঠিন হয়ে পড়ে। নিরাপত্তাব্যবস্থা না থাকায় টার্মিনাল ভবনও পরিত্যক্ত হয়ে আছে। রাতে নেশাখোর ও মাদক বিক্রেতাদের দখলে থাকে টার্মিনাল। নিচতলার দরজা-জানালা খুলে নিয়ে গেছে মাদকাসক্তরা। ফলে নিচতলা এখন পরিণত হয়েছে গণটয়লেটে।’ হেলপার বকশি মিয়া বলেন, ‘চালক ও হেলপারদের টয়লেট ও গোসলের ব্যবস্থা নেই। তাই যেদিকে সুযোগ পায় টয়লেট করে। নোংরা থাকার কারণে পুরো টার্মিনালই এখন আবর্জনা রাখার স্থানে পরিণত হয়েছে।’

বাস যাত্রী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘টার্মিনালের সামনের বিআইডিসি সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সড়ক দিয়েই প্রতিদিন মেশিনটুলস কারখানা, সমরাস্ত্র কারখানা, গাজীপুর ও রাজেন্দ্রপুর ক্যান্টনমেন্ট, ডিজেল প্লান্ট, ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ, টাকশাল, ডুয়েট, সদর উপজেলা পরিষদ কার্যালয়সহ বহু সরকারি-বেসরকারি অফিস এবং আবাসিক এলাকার হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। জেলার বাস টার্মিনাল হওয়ার কারণে এখানে দিনরাত মানুষজনের ভিড় থাকে। কিন্তু আবর্জনার কারণে এলাকার পরিবেশ বিষাক্ত ও অস্বাস্থ্যকর হয়ে পড়েছে। পাঁচ মিনিট দাঁড়ালে বমি আসে। কুকুর, কাক ও অন্যান্য পশুপাখি আবর্জনা নিয়ে টানাটানি ও মারামারি করে। এসব দেখার কেউ নেই।’

টার্মিনালের শ্রমিক নেতা মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘দুই শতাধিক গাড়ি এ টার্মিনাল থেকে যাতায়াত করে। প্রয়োজনের তুলনায় টার্মিনালটি এমনিতেই ছোট। তার ওপর ময়লা-আবর্জনায় তিন ভাগের দুই ভাগ ব্যবহারের অনুপযোগী। যাত্রী ও শ্রমিকরা দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ। কিন্তু ময়লা সরানোর কোনো উদ্যোগ সিটি করপোরেশনের নেই। শ্রমিক ও যাত্রীদের কথা ভেবে দ্রুত ময়লা সরানো দরকার।’

এ বিষয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম রাহাতুল ইসলাম বলেন, ‘শিগগিরই ওই এলাকায় ডাস্টবিন বসানো হবে। ডাস্টবিন বসলে সমস্যা থাকবে না।’



মন্তব্য