kalerkantho

ইথিওপিয়ার বিমান দুর্ঘটনা

ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার, বোয়িংয়ের বিমান ওড়াচ্ছে না বহু দেশ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার, বোয়িংয়ের বিমান ওড়াচ্ছে না বহু দেশ

ইথিওপিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৫৭ জন নিহত হওয়ার পর গতকাল সোমবার বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স এইচ জেটের ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার করা হয়েছে। বিমানটি আদ্দিস আবাবা থেকে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবির দিকে যাচ্ছিল। ইথিওপিয়ার আগে একই কম্পানির একই মডেলের বিমান বিধ্বস্ত হয় ইন্দোনেশিয়ায়। সে ঘটনা মাত্র পাঁচ মাস আগের। এত অল্প সময়ের মধ্যে আবারও দুর্ঘটনার খবরে এভিয়েশন শিল্পসংশ্লিষ্টদের কপালে ভাঁজ পড়েছে। এই বিমান কিনে ব্যবহার করায় চিন্তিত বহু সরকারও। ইথিওপিয়া তো বটেই চীন, ইন্দোনেশিয়াও তাদের বহরে থাকা এই বিমান গ্রাউন্ডেড করে রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

গত রবিবার উড্ডয়নের মাত্র ছয় মিনিটের মাথায় ভেঙে পড়ে ইথিওপিয়ার বিমানটি। নিহত ১৫৭ জনের মধ্যে মোট ৩৫টি দেশের নাগরিক রয়েছে। যাঁদের মধ্যে জাতিসংঘের সদস্য ২২ জন। তাঁরা নাইরোবিতে জাতিসংঘের বার্ষিক জলবায়ুবিষয়ক সম্মেলনে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনার পর এক দিনের শোক দিবস ঘোষণা করে ইথিওপিয়া। গভীর শোক জানিয়েছে জাতিসংঘ। বিমানে সাত ব্রিটিশ নাগরিক থাকায় প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মেও শোক প্রকাশ করেছেন।

দেশটির বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতি দিয়ে গতকাল বলেছে, ‘উদ্ধার ও তদন্তকারী দলের প্রবল প্রচেষ্টার পর ইথিওপীয় এয়ারলাইনস ঘোষণা করছে যে ডিজিটাল ফ্লাইট রেকর্ডার (ডিএফডিআর) ও ককপিট ভয়েস রেকর্ডার (সিভিআর) উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।’ আফ্রিকার সর্ববৃহৎ এই এয়ারলাইনস এরই মধ্যে তাদের কাছে থাকা একই কম্পানির একই মডেলের আরো আটটি বিমানের উড়ান বন্ধ করে দিয়েছে। বোয়িং নামে যুক্তরাষ্ট্রের এই বিমান নির্মাতা কম্পানির কাছে তাদের মোট ৩০টি বিমানের কার্যাদেশ ছিল।

চীনের কাছে এ ধরনের বিমান আছে ৭৬টি। তারা মোট ১৮০টি বিমান কিনতে চায়। চীন এরই মধ্যে এই বিমানগুলোর উড়ান বন্ধ করে দিয়েছে। একই পদক্ষেপ নিয়েছে ইন্দোনেশিয়াও। দেশটির গত অক্টোবরের দুর্ঘটনায় ১৮৯ জন নিহত হয়।

বিমানটিতে ব্রিটেন, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, নাইজেরিয়া, কেনিয়া, আইসল্যান্ড, ইতালিসহ ৩৫টি দেশের নাগরিক ছিলেন। বেশির ভাগই জাতিসংঘের ওই সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য নাইরোবিতে যাচ্ছিলেন। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।

 

মন্তব্য