kalerkantho


যুক্তরাষ্ট্র সরকারে অচলাবস্থা

বৈঠক থেকে ট্রাম্পের ওয়াকআউট

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



বৈঠক থেকে ট্রাম্পের ওয়াকআউট

যুক্তরাষ্ট্র সরকারে চলমান অচলাবস্থা নিরসনে ডেমোক্রেটিক পার্টির সঙ্গে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আলোচনা ভেঙে গেছে। সরকারের অচলাবস্থার গতকাল ছিল ১৯তম দিন। এদিন ডেমোক্রেটিক পার্টির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ট্রাম্প বৈঠকে বসলে অল্প সময়ের মধ্যেই তা পণ্ড হয়ে যায়। বৈঠক করা মানেই ‘সময়ের অপচয়’ বলে মন্তব্য করে বের হয়ে যান ট্রাম্প। ব্যর্থতার জন্য ডেমোক্র্যাটরা ট্রাম্পের ‘খেয়ালি বদমেজাজ’কে দায়ী করেন।

এই অচলাবস্থার কারণে ফেডারেলের প্রায় আট লাখ কর্মী সংকটে পড়েছে। অচলাবস্থা শুরু হওয়ার পর আজ শুক্রবার এসব কর্মীর প্রথম বেতন-ভাতা পরিশোধ করার দিন ছিল। নিশ্চিতভাবেই এ অবস্থায় সেটা আর সম্ভব হচ্ছে না।

হোয়াইট হাউসের সিচুয়েশন রুমে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ডেমোক্রেটিক স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ও সিনেটের সংখ্যালঘু নেতা চাক শুমারের সঙ্গে ট্রাম্পের ওই বৈঠক স্থায়ী হয় মাত্র ১৪ মিনিট। বৈঠকের পরপরই একটি টুইট করেন ট্রাম্প। এতে তিনি জানান, মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে অর্থায়নে রাজি আছেন কি না এ ব্যাপারে তিনি পেলোসিকে সরাসরি প্রশ্ন করেন। পেলোসি নেতিবাচক জবাব দেন। ট্রাম্প তাত্ক্ষণিকভাবে বৈঠক থেকে বের হয়ে যান। ট্রাম্প টুইটে লেখেন, তিনি ‘বাই বাই’ বলে বের হয়ে এসেছেন।

একই কথোপকথন চাক শুমারও নিশ্চিত করেছেন। শুমার বলেন, “তিনি (ট্রাম্প) স্পিকার পেলোসির কাছে জানতে চান, ‘আপনি কি আমার দেয়ালে (অর্থায়নে) রাজি আছেন?’ জবারে স্পিকার বলেছেন, ‘না।’ সঙ্গে সঙ্গে ট্রাম্প উঠে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘তাহলে আমাদের আলোচনা করা অর্থহীন’, এবং তিনি রুম থেকে বের হয়ে যান। আমরা আবারও তাঁর বদমেজাজের নমুনা  দেখতে পেলাম।” শুমার বলেন, ট্রাম্পের কাছে বারবার জানতে চাওয়া হয়েছে, ‘আপনি জনগণকে জিম্মি করছেন কেন? আপনি সরকার সচল করে জনগণকে কষ্ট দেওয়া বন্ধ করছেন না কেন?’

হোয়াইট হাউসের এক মুখপাত্র ট্রাম্পের বরাত দিয়ে বলেন, ‘আমি দেশের জন্য সঠিক কাজটি করার চেষ্টা করছি। এর মধ্যে রাজনীতির কিছু নেই।’ হাউসের রিপাবলিকান নেতা কেভিন ম্যাকার্থি বলেন, বৈঠকে ডেমোক্র্যাটদের আচরণ তাঁর কাছে অত্যন্ত ‘বিব্রতকর’ বলে মনে হয়েছে। গত মঙ্গলবার ট্রাম্প ওভাল অফিস থেকে প্রথমবারের মতো টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন। এ সময় তিনি সীমান্তে মানবিক ও নিরাপত্তা সংকট নিয়ে কথা বলেন। তবে প্রেসিডেন্টের এ হুমকিকে ‘ভুয়া’ বলে অভিহিত করেন ডেমোক্র্যাটরা।

ট্রাম্প অবশ্য নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির বেশির ভাগ সদস্যের সমর্থনই পাচ্ছেন। সীমান্ত নিয়ে তাঁর অনড় অবস্থানকে সঠিক বলে মনে করছেন তাঁরা। নির্বাচনী প্রচারে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে ট্রাম্প মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে কংগ্রেসের কাছে সীমান্ত নিরাপত্তা বাবদ ৫৭০ কোটি ডলার চেয়েছেন। জানুয়ারি থেকে হাউসের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া ডেমোক্র্যাটরা অবশ্য শুরু থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছে। এ নিয়ে মতবিরোধে অর্থ বিল অনুমোদিত না হওয়ায় গত মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

অচলাবস্থার শিকার অনেক সরকারি কর্মী এরই মধ্যে তাদের দুর্দশার চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  শেয়ার করেছে। অনেকে চাকরি ছেড়ে অন্য কাজ খুঁজতে শুরু করার কথা ভাবছে। সূত্র : বিবিসি।



মন্তব্য