kalerkantho


খাশোগি খুন ও ইয়েমেনে নৃশংসতা

সৌদি যুবরাজকে দায়ী করে নিন্দা প্রস্তাব সিনেটে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সৌদি যুবরাজকে দায়ী করে নিন্দা প্রস্তাব সিনেটে

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যায় সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে দায়ী করে মার্কিন সিনেটে একটি কঠোর প্রস্তাব উত্থাপন করেছে মার্কিন সিনেটরদের একটি সর্বদলীয় গ্রুপ। প্রস্তাবটি পাস হলে সরকারিভাবে খাশোগি হত্যার নিন্দা জানানো হবে। যদিও এ হত্যার ঘটনায় যুবরাজ জড়িত থাকার বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার নীতি গ্রহণ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। সিনেট প্রস্তাবে ইয়েমেন ও কাতার ইস্যুতেও যুবরাজের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছেন সিনেটররা।

গত বুধবার শীর্ষস্থানীয় ছয় সিনেটর এই প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন। খাশোগি হত্যায় মূল পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত দুই সৌদি কর্মকর্তার নামে তুরস্কে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির দিন মার্কিন সিনেটে প্রস্তাবটি উত্থাপন করা হলো।

প্রস্তাব উত্থাপনকারীরা হলেন রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম, মার্কো রুবিও ও টড ইয়াং এবং ডেমোক্রেটিক সিনেটর ডায়ানে ফিনস্টিন এড মার্কি ও ক্রিস কুনস। সিআইএ পরিচালক গিনা হ্যাসপেলের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পরদিনই এই প্রস্তাব তোলেন তাঁরা। তাঁদের এ প্রস্তাব প্রয়োগে আইনি বাধ্যবাধকতা না থাকলেও এর ব্যাপক কূটনৈতিক তাৎপর্য রয়েছে।

সিনেটরদের প্রস্তাবে বলা হয়, দুই মাসের বেশি সময় আগে তুরস্কের ইস্তানবুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেট অফিসে সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার জন্য সৌদি ক্রাউন প্রিন্স (মুকুটধারী যুবরাজ) দায়ী। এই হত্যাকাণ্ডে মোহাম্মদ বিন সালমান যে জড়িত, এ ব্যাপারে সিনেটের উচ্চপর্যায়ের বিশ্বাস।

এই প্রস্তাবটি যদি সিনেটে গৃহীত হয়, নিয়ম অনুযায়ী তাহলে সরকারিভাবে খোশোগি হত্যার জন্য যুবরাজ মোহাম্মদের নিন্দা জানানো হবে। তা হবে ট্রাম্প প্রশাসনের জন্য বিব্রতকর।

প্রস্তাবটি উত্থাপনের পর এক বিবৃতিতে লিন্ডসে গ্রাহাম বলেন, ‘মতবিরোধ ছাড়াই উত্থাপিত এই প্রস্তাবে সুনির্দিষ্টভাবে বলা হয়েছে যে মিস্টার খাশোগি হত্যায় সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স জড়িত এবং তিনি ওই অঞ্চলে আমাদের বহুমুখী জাতীয় স্বার্থের জন্য রেকিং বলে (বহুতল ভবন ভাঙায় ব্যবহৃত ক্রেনের অগ্রভাগে থাকা ধাতব গোলক) পরিণত হয়েছেন।

ইয়েমেন যুদ্ধ ও কাতার ইস্যু নিয়ে কড়া ভাষা : প্রস্তাবে ইয়েমেনে চালানো নৃশংসতার জন্য সৌদি আরবের যুবরাজকে দায়ী করা হয়। প্রস্তাবে মার্কিন সিনেটররা ইয়েমেন যুদ্ধ থেকে সৌদি আরবকে সরে আসা এবং হুতি প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনার আহ্বান জানান। প্রস্তাবে কাতারের ওপর থেকে অবরোধ তুলে নেওয়ার জন্য সৌদি আরবের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। এজন্য উপসাগরীয় অঞ্চলে কূটনৈতিক সম্পর্কের ফাটল মেরামতের জন্য রাজনৈতিক সমাধান অনুসন্ধান করতে বলা হয়।

এ ছাড়া প্রস্তাবে সৌদি আরবে বন্দি ব্লগার রাইফ বাদাবি, নারী অধিকারকর্মী ও অন্য রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানানা হয়।

খাশোগি হত্যা তদন্তে ট্রাম্পকে আলাদা চিঠি : একই দিন সর্বদলীয় চার সদস্যের আরেকটি সিনেটর গ্রুপ খাশোগি হত্যা তদন্ত করার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। রিপাবলিকান সিনেটর বব কোরকার ও লিন্ডসে গ্রাহাম এবং ডেমোক্রেটিক সিনেটর বব মেনেন্দেজ ও প্যাট্রিক লিহির লেখা এই চিঠিতে ‘গ্লোবাল ম্যাগনিটস্কি হিউম্যান রাইটস অ্যাকাউনটিবিলিটি অ্যাক্ট’ অনুযায়ী সাংবাদিক খাশোগি হত্যার তদন্ত করার আহ্বান জানানো হয়। ওই আইন অনুযায়ী যেকোনো স্থানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য তদন্তের অধিকার প্রেসিডেন্টকে দেওয়া হয়েছে। সূত্র : আলজাজিরা, নিউ ইয়র্ক টাইমস।

 



মন্তব্য