kalerkantho


মাদুরোর ‘একনায়কতন্ত্রের’ লাগাম টানার আহ্বান ইভান দুকের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ভেনিজুয়েলাতে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর ‘একনায়কতন্ত্রের’ লাগাম টেনে ধরতে জোর দাবি জানিয়েছেন কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান দুকে। তাঁর ভাষ্য, বিশ্বব্যাপী অভিবাসন ও মানবিক সংকটের জন্য মাদুরো দায়ী।

ডানপন্থী ইভান দুকে এএফপিকে বলেন, ‘অভিবাসন নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতির আসল কারণ হচ্ছে এই একনায়কতন্ত্র। আমাদের অবশ্যই কূটনৈতিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। একনায়কতন্ত্রের অবসান ঘটাতে বহুপক্ষীয় কৌশল গ্রহণের সুযোগ আছে।’

গতকাল রবিবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনব্যাপী পিস ফোরামের জন্য বর্তমানে প্যারিসে অবস্থান করছেন ইভান দুকে। ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ ওই অনুষ্ঠান আয়োজন করেছেন। এই সফরে যাওয়ার প্রাক্কালে ইভান দুকে এএফপির সঙ্গে কথা বলেছেন। এই সাক্ষাৎকারে কলম্বিয়ার সর্বশেষ গেরিলা গ্রুপের সঙ্গে শান্তি নিয়ে আলোচনা, ব্রাজিলে একতরফা নির্বাচন এবং বিশ্বব্যাপী মাদকের বিস্তারের মতো বিষয়গুলো উঠে এসেছে।

২০১৪ সালে ব্রাজিলে অর্থনৈতিক দুর্দশা শুরু হয়। মূলত ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে গিয়ে মাদুরো এই পরিস্থিতি তৈরি করেছেন বলে মনে করেন ইভান দুকে। মাদুরোর সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধী দল ও সুধীসমাজের সমালোচনাকারীদের শক্ত হাতে দমন করার অভিযোগ আছে। কলম্বিয়ান প্রেসিডেন্ট বলেন, “তাঁর প্রতিবেশী ‘বৃহৎ মানবিক সংকটের’ মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। দুই বছরের কম সময়ের মধ্যে আমরা ১০ লাখ অভিবাসী পেয়েছি। এ কারণে কলম্বিয়া কঠিন পরিস্থির মুখে পড়েছে।” এ পরিস্থিতি উত্তরণে তিনি আন্তর্জাতিক সহযোগিতা চেয়েছেন।

মাদক চোরাচালন রোধে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রয়োজন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের সব দেশকেই  মাদকের বিরুদ্ধে শক্তিশালী নীতি গ্রহণ করা দরকার। মাদকের বিরুদ্ধে সংগ্রাম আসলে জোটবদ্ধ সংগ্রাম।

জাতিসংঘের তথ্য মতে, গত বছর কলম্বিয়ায় অবৈধ কোকা উদ্ভিদের উৎপাদন ১৭ শতাংশ বেড়েছে। প্রায় চার লাখ ২৩ হাজার একর জমিতে এই উদ্ভিদ চাষ করা হয়। এই কোকা থেকে শক্তিশালী মাদক কোকেন তৈরি করা হয়ে থাকে।

কলম্বিয়াকে বিশ্বের প্রধানতম কোকেন উৎপাদনকারী দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। দেশটিতে অর্ধশতাব্দী ধরে গেরিলা, আধাসামরিক, সশস্ত্র বাহিনী ও মাদক চোরাচালানকারীদের সংঘাতের মধ্যে এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

সূত্র : এএফপি।



মন্তব্য