kalerkantho


রুহানিকে যুক্তরাষ্ট্র

আয়নায় নিজের চেহারা দেখুন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানিকে আয়নায় নিজের চেহারা দেখার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটন মনে করে, সম্প্রতি ইরানের এক সামরিক কুচকাওয়াজে সন্ত্রাসী হামলার পেছনে কী কারণ থাকতে পারে, তা নিজেদের দিকে তাকালেই তেহরান উপলব্ধি করতে পারবে। জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি গত রবিবার বলেন, ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি দীর্ঘ সময় ধরে নিজের জনগণকে নিষ্ঠুর শাসনে দমিয়ে রেখেছেন। সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা সেই দমনের একটা ফল।

গত শনিবার ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় আহভাজ শহরের ওই সন্ত্রাসী হামলায় ২৫ জন নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে চার বছরের এক শিশুসহ সেনা ও বেসামরিক লোকজন রয়েছে। সরকারবিরোধী আঞ্চলিক গ্রুপ ‘আহভাজ ন্যাশনাল রেসিসটেন্স’ ও ‘ইসলামিক স্টেট’ (আইএস) হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দেয়। তবে কোনো গোষ্ঠীই হামলার সপক্ষে প্রমাণ দিতে পারেনি। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি অভিযোগ করেন, যুক্তরাষ্ট্র ও কয়েকটি আরব দেশ এ হামলায় সহযোগিতা করেছে। রুহানির অভিযোগ তাত্ক্ষণিকভাবে প্রত্যাখ্যান করে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেন, ‘রুহানির অভিযোগ ভিত্তিহীন।’

এদিকে রবিবার জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি বলেন, ‘রুহানি পরোক্ষভাবে তাঁর জনগণকে বিক্ষুব্ধ হওয়ার প্ররোচনা দিচ্ছেন। তিনি ইরানের সব টাকা-পয়সা সামরিক বাহিনীর পেছনে ঢালছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে অন্যায়-অত্যাচারের মাধ্যমে নিজ দেশের জনগণকে দমিয়ে রেখেছেন। এ অবস্থায় কারা হামলা চালিয়েছে, তা অনুসন্ধানে রুহানির উচিত আয়নায় নিজের চেহারা দেখা।’

চলতি সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখোমুখি হবেন রুহানি। অধিবেশনে যোগ দিতে গত রবিবার নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। তার আগে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এটা আমাদের কাছে একেবারে পরিষ্কার যে কারা সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা চালিয়েছে এবং এতে কারা কারা জড়িত।’ রুহানি বলেন, ‘কয়েকটি আরব দেশ হামলাকারীদের অর্থ, অস্ত্র ও রাজনৈতিক সমর্থন দিয়েছে। আর এসব আরব দেশকে উসকানি ও সমর্থন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।’ তবে রুহানি কোনো আরব দেশের নাম উল্লেখ করেননি। যদিও এর আগে তেহরান একাধিকবার এ অভিযোগ তুলেছে, সৌদি আরব ইরানের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা করে। সূত্র : বিবিসি।



মন্তব্য